শিরোনাম

  প্রযুক্তি ফাঁদে পড়েছেন রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক   সেনাক্যাম্প কমান্ডার কর্তৃক জনপ্রতিনিধিদের উপর হয়রানি ও নির্যাতনের ঘটনায় জেএসএসের প্রতিবাদ   বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে ১ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান হবে : প্রধানমন্ত্রী   রোনালদোর গোলে এগিয়ে গেল পর্তুগাল   ইন্দোনেশিয়ায় ফেরি ডুবিতে নিখোঁজ ১৯২   চালু হলো বাইসাইকেল শেয়ারিং সেবা   আলজি দাধাহ || আলোময় চাকমা   বাংলাদেশের সমর্থকদের প্রতি মেসির ভালোবাসা   জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল ত্যাগ যুক্তরাষ্ট্রের   পাহাড় ধস, পাহাড়িরা নয়, দায়ী মূলত সমতল থেকে নিয়ে যাওয়া বাঙালিরা : আবু সাদিক   কবি সুফিয়া কামালের ১০৭তম জন্মবার্ষিকী আজ   মিশরকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিল রাশিয়া   পোল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে মাঠে নাচ দেখাল সেনেগাল   জাতীয় অধ্যাপক হলেন তিন বরেণ্য শিক্ষাবিদ   এক সপ্তাহে পাহাড়ে ৩ জন আঞ্চলিক নেতাকর্মী খুন   অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ১০, নিহত ১   কলম্বিয়ার বিপক্ষে জাপানের জয়   চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় মডেল তিথি বড়ুয়া নিহত   বাংলাদেশ থেকে তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে নিজের দেশে ফিরলেন জার্মান তরুণী   খুনের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে প্রধান শিক্ষক দেবদাস চাকমাকে আটক করেছে পুলিশ
প্রচ্ছদ / সোশ্যাল মিডিয়া / আদিবাসীদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদের মুখে আবারো ব্যর্থ হয়েছে সেটেলারদের দখলবাজি প্রচেষ্টা

আদিবাসীদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদের মুখে আবারো ব্যর্থ হয়েছে সেটেলারদের দখলবাজি প্রচেষ্টা

'আজকের ঘটনা'

প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২১ ২২:১৬:১১

   আপডেট: ২০১৮-০৫-২১ ২২:২৬:১৭

সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক

সাধনাটিলা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার দীঘিনালা উপজেলার বাবুছড়া এলাকায় আদিবাসী অধ্যুষিত একটি জায়গা। আজ থেকে বেশ কয়েক মাস পূর্বে একবার এই এলাকার আদিবাসীদের ভূমি এবং একটি বিহারের জায়গা দখল করে সমতল থেকে পার্বত্যে স্থানান্তরিত বাঙ্গালীদের (সেটেলার বাঙ্গালী) সেখানে বসবাস করার চেষ্টা করা হয়েছিল, কিন্তু সফল হয়নি। গতকাল থেকে পুনরায় সেখানে প্রশাসনের পরোক্ষ সহযোগিতায় সেটেলার বাঙ্গালীরা দলে দলে সেই একই এলাকায় ভিড় জমাতে শুরু করে। খোলা ময়দান, স্কুলের বারান্দায় স্থান নিতে শুরু করে তারা গতকাল থেকেই। উদ্দেশ্য আজ দিনের আলোতে পুনরায় আদিবাসীদের ভূমিতে নিজেদের বাড়িঘর স্থাপন করা।

বিষয়টি টের পেয়ে গতকাল হতেই স্থানীয় আদিবাসী লোকজন সজাগ হয়ে উঠেন। আজ সকাল থেকে দলে আদিবাসী জনতা এসে একত্রিত হতে শুরু করেন উল্লেখিত এলাকায়। যেকোন মূল্যে তারা সেটালারদের এই দখলের মনোভাব প্রতিহত করার জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়ে জমায়েত হন। প্রশাসনও আসে এক পর্যায়ে। কিন্তু আদিবাসীদের ঐক্যবদ্ধ জমায়েত আর প্রতিবাদের মুখে আবারো ব্যর্থ হয়েছে সেটেলারদের দখলবাজি প্রচেষ্টা।

সরকারের দায়িত্বশীল মহলের কাছে প্রশ্ন, কেন আদিবাসীদের ভূমিতে সমতল থেকে স্থানান্তরিতদের বসবাসের চেষ্টা করতে হবে? কেন তাদের জন্য উপযুক্ত ভূমির বন্দোবস্ত না করেই তাদেরকে সমতল হতে পার্বত্যে স্থানান্তর করা হবে? এতে তো একটা বিষয়ই স্পষ্ট হয়ে ওঠে, আর তাহলো যেকোন উপায়ে আদিবাসীদের ভূমি দখল করে একটা গোলযোগের পরিবেশ তৈরি করে তাদেরকে সেখান থেকে বিতাড়িত করাটাই আসল লক্ষ্য।

ভাগ্যিস আজ উত্তেজনা বিরাজ করলেও শেষ পর্যন্ত সেখানে কোন ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয় নাই। হলে সরকার আর স্থানীয় প্রশাসনকেই তার দায়ভার নিতে হতো। কিন্তু তারা আদৌ নিতেন কি? অতীতের ইতিহাস অন্তত এর স্বপক্ষে স্বাক্ষী দেয়না।

শেষ পর্যন্ত বাবুছড়ার সাধনাটিলা এলাকার আদিবাসী বাসিন্দাদের একটা ধন্যবাদ না দিলেই নয় তাদের আজকের এই ঐক্যবদ্ধ অবস্থানের জন্য। এটা অন্তত বর্তমান প্রেক্ষাপটে তাদেরসহ পার্বত্য তিন জেলাতেই একটা মাইলফলক হয়ে থাকবে আদিবাসীদের ঐক্যের প্রতীক হিসেবে। এই ছোট ঘটনাটি থেকে হলেও তাদের শিক্ষা নেয়া প্রয়োজন। ঐক্যবদ্ধ হতে পারলে শাসক শোসকের সকল বাঁধা অতিক্রম করা সম্ভব, সম্ভব নিজেদের যৌক্তিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত করা।

 

আহমেদ আমান মাসুদের ফেসবুক থেকে নেওয়া।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত