শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / লাওসে বাঁধ ধসে ৩৬ জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ৯৮

লাওসে বাঁধ ধসে ৩৬ জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ৯৮

প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-১৩ ১৬:৪৯:৪৪

বাসস >>

লাওসের দক্ষিণাঞ্চলে বাঁধ ধসে ৩৬ জন মারা গেছে এবং আরো ৯৮ জন নিখোঁজ হয়েছে।নিখোঁজদের উদ্ধারে সেনা সদস্যদের সঙ্গে সিঙ্গাপুরের একটি উদ্ধারকারী দল তল্লাশী অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। সোমবার স্থানীয় দৈনিক ভিয়েনতিয়েন টাইমস একথা জানিয়েছে।খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।

লাও পিপল’স আমি’র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পলিটিক্যাল ডিপার্টমেন্টের উপ মহাপরিচালক ফ্যালম লিনথোং বলেন, ‘শনিবার তিনলাথ গ্রামে আমরা তিন বছর বয়সী একটি মেয়ের লাশ পেয়েছি। এই নিয়ে ৩৬ জনের মৃতের কথা জানা গেল। এদের মধ্যে আহত তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার সময় মারা যায়।’

তিনি আরো বলেন, ৫শ ৮৫ সেনা সদস্য ও সিঙ্গাপুর থেকে ১৭ উদ্ধারকর্মী এখনো নিখোঁজদের সন্ধানে তল্লাশী চালিয়ে যাচ্ছে। তবে ঘন কাদার কারণে তাদের তৎপরতা ব্যাহত হচ্ছে। কারণ এগুলোর কারণে লাশগুলো সনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়েছে।

ফ্যালম বলেন, ‘এক সপ্তাহ টানা বৃষ্টিপাতের পর অনেক এলাকা এখনো পানিতে নিমজ্জিত থাকায় অভিযানটি কঠিন হয়ে পড়েছে। ঘন কাদা, বালি ও অন্যান্য ধ্বংসাবশেষের কারণে আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে।’

রোববার তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এই ঘন ও শক্ত কাদা অপসারণে আমাদের আরো ভারী সরঞ্জামাদির প্রয়োজন। সৈন্য ও সিঙ্গাপুরের উদ্ধারকারী দলকে কাদাপানির মধ্যেই কাজ করতে হচ্ছে। এছাড়াও উপড়ে পড়া গাছ, ডালপালা ও ভবনের ধ্বংসস্তুপ উদ্ধার কাজকে অনেক কঠিন করে দিচ্ছে।’

দল দুটি এখন আত্তাপেউ প্রদেশের মাই, হিনলাথ ও থাসায়েংচান গ্রামে তল্লাশী শুরু করেছে।গত ২৩ জুলাই এই বন্যা দেখা দেয়। চীন, থাইল্যা- ও রিপাবলিক অব কোরিয়া ও লাওস থেকে উদ্ধারকারী দল তল্লাশী, ত্রাণ ও উদ্ধার অভিযানে যোগ দেয়।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত