শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারের সম্মতিতে রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাইয়ে নির্মিত হচ্ছে ক্যাম্প

মিয়ানমারের সম্মতিতে রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাইয়ে নির্মিত হচ্ছে ক্যাম্প

প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-১১ ২৩:৪৫:২১

অনলাইন ডেস্ক

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী শনিবার মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে মংডু এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গণমাধ্যমে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের অংশ হিসেবে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের পরিচয় যাচাইয়ে বাংলাদেশ অংশে একটি ক্যাম্প স্থাপনে সম্মতি প্রকাশ করেন মিয়ানমার ও বাংলাদেশ। দুদেশের একমতেই ক্যাম্পটি নির্মিত হবে বলে জানা যায়। স্থাপিত ক্যাম্পেই রোহিঙ্গাদের মাঝে ফরম বিতরণ করা হবে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে পরিদর্শনকালে তার সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ১৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল মিয়ানমারে গেলেও রাখাইন পরিদর্শনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিবসহ পাঁচজনকে অনুমতি দেওয়া হয়। পরিদর্শনকালে তাদের সঙ্গে ছিলেন মিয়ানমারের সমাজ কল্যাণ ও পুনর্বাসনমন্ত্রী ড. উইন মিয়াত।

সূত্র জানায়, সকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের মিয়ানমারের সিত্তে শহর থেকে হেলিকপ্টারযোগে মংডুতে নেওয়া হয়। সেখানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সফরসঙ্গীরা রোহিঙ্গাদের ফেরত নিয়ে এসে সাময়িকভাবে রাখার জন্য নির্মিত ট্রানজিট ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। এ ছাড়া রাখাইনে রোহিঙ্গা গ্রামও পরিদর্শন করেন তারা। সেখানকার পরিবেশ পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন তারা। পরে বেলা ১টার দিকে প্রতিনিধি দলটি আবারও সিত্তয়ে ফিরে আসে। সেখান থেকে ফিরে ইয়াংগুনে যায়।

শুক্রবার নেপিদোতে দুদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসানে দুই পক্ষ একমত হয়। রোববার ঢাকায় ফিরবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত