শিরোনাম

  রাঙ্গামাটি কুদুকছড়িতে চান্দের গাড়ি উল্টে ১ জন নিহত   এই বছর বাড়ির ছাদেও থার্টিফাস্ট নাইট পালন করা যাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   ১০ বছরে ২৫ লাখ বিএনপির নেতাকর্মী আসামী : মামলা সংখ্যা ৯০ হাজার   রাষ্ট্র এবং রাজনীতি সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয় বলেই তারা দেশ ত্যাগ করে : রানা দাশগুপ্ত   না ফেরার দেশে ব্রাজিলের হলুদ জার্সির রূপকার   দীঘিনালায় প্রধান শিক্ষক ঊষা আলো চাকমাকে মুক্তি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা   এবারের বিসিএস আবেদনকারীর সংখ্যা মালদ্বীপ ও আইসল্যান্ডের জনসংখ্যার থেকেও বেশি!   কাল থেকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা শুরু   রোহিঙ্গা বিদ্রোহী (আরসার) ভয়ে রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরেনি: পুনর্বাসন মন্ত্রী   মিয়ানমারের ইয়াংগুনের উপকূলে শতাধিক রোহিঙ্গা আটক   নেইমারের গোলে জিতল ব্রাজিল   ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলে নিহত ৭১, নিখোঁজ ১ হাজার   মুক্তি পেল চলচ্চিত্র ‘হাসিনা : এ ডটার'স টেল’   ৪০তম বিসিএসে রেকর্ড সংখ্যক প্রার্থীর আবেদন   নির্বাচনে গুজব ঠেকাতে প্রস্তুত রয়েছে র‌্যাব-পুলিশ   ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’র আঘাতে মৃত ৩০   এসিল্যান্ড নাজিম উদ্দিনসহ রাঙ্গামাটির ১০ উপজেলায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে   জনগণ আমাদের সাথে রয়েছে, বিএনপিকে অপকর্ম থেকে বিরত থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আহবান   নির্বাচন আর পেছানো হচ্ছে না : ইসি   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নবান্ন উৎসব শুরু
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / দুই আদিবাসী শিক্ষিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

দুই আদিবাসী শিক্ষিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২৯ ২১:৩০:১২

   আপডেট: ২০১৮-০৬-২৯ ২১:৫২:০১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমার শান রাজ্যে ধর্ষণের পর দুই জাতিগত আদিবাসী শিক্ষিকাকে খুন করা হয়েছে।

কুটকাই প্রত্যন্ত গ্রামে ২০১৫ সালে ১৯ জানুয়ারী এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে দায়ী করা হয়েছে। তবে মিয়ানমার সেনাবাহিনীরা অভিযোগ অস্কীকার করেছে।

আজ ২৯ জুন মিয়ানমার সংবাদ মাধ্যম ইরাবতি এ তথ্য জানিয়েছে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল মিন অং হ্লাইং দাবি করেন, তিন বছর আগে যে দুই শিক্ষিকাকে ধর্ষণের পর নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে তা কোনভাবে মিয়ানমার সেনাবাহিনী জড়িত নয়।

তবে এঘটনায় মিয়ানমার স্থানীয় জাতিগত বিদ্রোহী সংগঠন (কাচিন ইন্ডিপেন্ডেন্স আর্মি) মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে দায়ী করেছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার ২৮ জুন রাজধানী নেপিডোটে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে সেনাবাহিনী প্রধান এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত নয় বলে অভিযোগ অস্কীকার করেছেন।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ে সুষ্ঠ তদন্ত করা হচ্ছে।

জানা গেছে, কাচিন ব্যাপটিস্ট কনভেনশন (কেবিসি) একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে দুই শিক্ষিকা সহ ২০ জন কাজ করেন। এর মধ্যে মারন লুরা ও থাংবোকন নামে দুই শিক্ষিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়।

এছাড়াও স্থানীয়রা এ ঘটনায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ব্যাটালিয়ন ৫০৩ পদাদিক সেনাসদস্য জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

সংগঠনের এক মুখপাত্র বলেন,  হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের এখনো চিহ্নিত করা যায়নি। তবে আমরা জানি এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছিল। কিন্তু তারা বারবার অভিযোগ অস্কীকার করছে।

পুলিশের গঠিত একটি তদন্ত কমিশন এ ঘটনায় তদন্ত চালাচ্ছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত