শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে সেনা- জাতিগত বিদ্রোহী সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ২৯

মিয়ানমারে সেনা- জাতিগত বিদ্রোহী সংঘর্ষে নিহত ২০, আহত ২৯

প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১২ ১৫:২৯:৪১

   আপডেট: ২০১৮-০৫-১২ ১৫:৩৩:৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারের শান প্রদেশে সেনাবাহিনী এবং জাতিগত বিদ্রোহীদের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন নিহত ও ২৯ জন আহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে একজন পুলিশ ক্যাপ্টেন ও ছিলেন।

আজ ১২মে মিয়ানমার সংবাদমাধ্যম ইরাবতি এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলর এর কার্যালয়ের মহাপরিচালক ইউ জা ইতয় বলেন, সংঘর্ষে ১৫ জন বেসামরিক নাগরিক, একজন পুলিশ ক্যাপ্টেন এবং তিনজন সরকার সমর্থিত মিলিশিয়ার সদস্য নিহত হয়েছেন।

এছাড়াও ২০ জন স্থানীয় লোক, তিন পুলিশ সদস্য ও ছয়জন সেনাবাহিনীর সদস্য আহত হয়েছে।

অন্তত ১০০ জন সৈন্য নিয়ে আজ ভোরে ৫টার সময় পান কান ব্রিজের সামনে হামলা করে। এতে ঘটনাস্থলে উভয়পক্ষে হতাহত হয়।

ঘটনার সত্যটা স্বীকার করে বিদ্রোহী দল (ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি) জানায়- ভোর সাড়ে ৫ টার দিকে তারা হামলা চালায় এবং সাড়ে ৮ টায় যুদ্ধ শেষ হয়।

বিদ্রোহীদের মধ্যে একজন মুখপাত্র জানান, এটি তুলনামূলক ছোট হামলা। তিনি বলেন মিয়ানমারের সেনাবাহিনী আমাদের অস্থায়ী ক্যাম্পগুলো ধ্বংস করে দিয়েছে। এ কারণে এ সংঘর্ষ হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে স্বায়ত্বশাসনের দাবিতে সরকারের বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে এ সংগঠনটি। শনিবার সেনাবাহিনীর সঙ্গে এই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়।

এর আগে এই রকম হামলা ২০১৬ সালে নভেম্বরে হয়েছিল।

এদিকে, মিয়ানমারের প্রত্যন্ত উত্তরাঞ্চলে সেনাবাহিনী ও জাতিগত বিদ্রোহী গোষ্ঠীর মধ্যে নতুন করে শুরু হওয়া সংঘর্ষের কারণে হাজার হাজার লোক বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে।

সম্প্রতি মিয়ানমারের উত্তর প্রান্তে চীন সীমান্তের কাছে কাচিন রাজ্যে ৪ হাজারের বেশি আদিবাসী লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

এর আগে বছরের শুরুতে ওই অঞ্চলে সংঘর্ষ-সহিংসতার কারণে আরো প্রায় ১৫ হাজার লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

২০১১ সালে মিয়ানমার সরকার ও শক্তিশালী বিদ্রোহী গোষ্ঠী কাচান ইন্ডিপেন্ডেন্স আর্মির মধ্যে অস্ত্রবিরতি চুক্তি ভেঙ্গে যাবার পর থেকে কাচিন ও শান রাজ্যের শরণার্থী শিবিরগুলোতে আশ্রয় নেয়া অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যূত মানুষের সংখ্যা ৯০ হাজার অতিক্রম করেছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত