শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / থাইল্যান্ডে আজ থেকে শুরু হয়েছে জলকেলি উৎসব 'সংক্রান '

থাইল্যান্ডে আজ থেকে শুরু হয়েছে জলকেলি উৎসব 'সংক্রান '

প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-১৩ ০৮:৩২:১৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নতুন বছরকে বরণ করে নিতে থাইল্যান্ডে আজ শুক্রবার থেকে আনন্দে মেতে উঠেছেন সর্বস্তরের মানুষ। প্রস্তুত করা হয়েছে ওয়াটার গান। এগুলো দিয়েই গুলি ছোঁড়ার মতোই পরস্পরকে লক্ষ্য করে ছুড়বেন পানি।

প্রাচীন শ্যামদেশের এই বর্ষবরনের আয়োজনের নাম "সংক্রান"। এই উৎসবেই মাতোয়ারা এখন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশ।

১৯৩৯ সাল থেকে সবাই যে থাইল্যান্ডকে চেনেন তার সাবেকী নাম শ্যামদেশ। থাই ভাষাতে যাকে বলা হতো সায়াম্‌।

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে সেই সায়াম্‌ মানে আজকের থাইল্যান্ডেই চলছে সংক্রান উৎসব।

উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ জলকেলি। এই উৎসবে শামিল হবেন দেশি ভিনদেশি সবাই। কেউ বাদ্য বাজাচ্ছেন। কেউ বা নেচে গেয়ে পথচারীকে পানি ছুঁড়বেন। কোথাও হাতির শূর দিয়ে পানি ছিটিয়ে-ও রঙ ছড়ানো হবে। কেউ বা আবার সরাসরি পানির পাইপ নিয়ে মাতবেন সংক্রানের উৎসবে।

পর্যটন নগরী পাতায়া থেকে রাজধানী ব্যাংকক সর্বত্র চোখে পড়ছে এই দৃশ্য। আদতে গোটা দেশেরই  চিত্র এটা।

উৎসবের এই সংস্কৃতির সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়া যায় বাংলাদেশের। দেশে আদিবাসী হিসেবে মারমাদের সাংগ্রাই উৎসব যারা দেখেছেন তারা "সংক্রান"এর ছবির সঙ্গে মিল খুঁজে পাবেন এই উৎসবের।

কেবল থাইল্যান্ডই নয়,আশিয়ানের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মায়ানমার,লাওস, কম্বোডিয়া আর চীনের দাই জাতিগোষ্ঠীরাও মেতেছে এই উৎসবে। তবে একেক দেশে এর একেক নাম।

থাইল্যান্ডে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে প্রতিবছর আয়োজন করা ভিন্নধর্মী এক খেলা। যা আমরা অনেকেই পানি খেলা বলে জানি। এবছরও আয়োজন করা হয়েছে এমন ভিন্নধর্মী পানি খেলা। যেখানে শুধু মানুষই নয়, অংশ নেবে ছোট বড় অসংখ্য হাতি।

পানি খেলা। নাম শুনলেই চোখে ভাসে ছেলে মেয়ে বা মানুষের পানি খেলার দৃশ্য। কিন্তু এ যেনো ভিন্ন রকম এক পানি খেলা। যেখানে মানুষ মানুষকে নয়, বরং খেলায় মেতে উঠেছে ছোট বড় অসংখ্য সব হাতি। যাদেরকে তুলির আঁচরে সাজানো হয়েছে লাল, হলুদ, সবুজসহ ভিন্ন ভিন্ন সব রঙে। আর এসব হাতি আনা হয় আইয়ুতথায়া এলিফেন্ট প্যালেস এবং রয়াল ক্রাল থেকে। যা ব্যাংকক থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার উত্তরে।

থাইল্যান্ডে প্রতিবছর আয়োজন করা হয় মজার এই খেলাটি। যা থাইল্যান্ডে সংক্রান উৎসব নামে পরিচিত। উৎসবটি শুরু হয় সাধারণত ১৩ এপ্রিল থেকে। থাইল্যান্ড ছাড়াও, মিয়ানমার, লাও এবং কম্বোডিয়ায় উদযাপন করা হয় এই পানি উৎসব। নতুন বছরে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বিরা শান্তি লাভের আশায় তাদের বৌদ্ধ মূর্তি স্নানের জন্য পানি ছেটাতে এমন হাতির ব্যবহার করে থাকেন।

কিন্তু হাতিরা যে কেবল মূর্তির গায়েই পানি ছেটায় তা নয়, উৎসবে আসা পর্যটকদেরও ছেড়ে কথা বলে না এসব হাতি। রাস্তায় হেঁটে যাওয়া পর্যটক থেকে শুরু করে হাতির পিঠে চড়া পর্যটকরাও ভিজে যায় হাতির ছেটানো পানিতে। শুড় দিয়ে পানি তুলে সামনে যাকে পাচ্ছে তাকেই ভিজিয়ে দিচ্ছে তারা।

এদিকে, 'সংক্রান' উৎসবকে কেন্দ্র করে থাইল্যান্ডে বিভিন্ন স্থানে কড়া নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার ১৩ তারিখ থেকে শুরু হয়ে ১৫ তারিখ পর্যন্ত পালিত হবে ‘সংক্রান’ উৎসব।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত