শিরোনাম

  ছেলেদের চেয়ে এবারও এগিয়ে মেয়েরা   চট্টগ্রাম বোর্ডের পাশের হার ৬২.৭৩ %   যারা ফেল করেছে তাদের বকাঝকা করবেন না : প্রধানমন্ত্রী   এইচএসসি তে পাসের ধস নেমেছে এবার   এইচএসসি ও সমমানে পাসের হার এবার ৬৬.৬৪   হাসপাতাল ছাড়ার পর এবার থাই কিশোররা সবাই শ্রামণ হয়ে প্রবজ্যা গ্রহণ করবে   থাইল্যান্ডের গুহায় আটকা পড়া কিশোররা হাসপাতাল ছেড়েছে   ৮ দল নিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আত্মপ্রকাশ   আগামীকাল এইচএসসির ফল প্রকাশ হবে   নেলসন ম্যান্ডেলার জন্ম শতবার্ষিকী আজ   চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসেই মিলবে হারানো জাতীয় পরিচয়পত্র   উ. কোরিয়াকে নিরাপত্তা নিশ্চয়তা প্রদানে অংশ নিতে প্রস্তুত রাশিয়া   রাঙামাটিতে ইউপিডিএফ নেতা রাহেলকে ৪ দিনের রিমান্ড দিয়েছে আদালত   এবার খাগড়াছড়িতে সেটেলার কর্তৃক আদিবাসী স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ   দেশে ছয় মাসে ধর্ষণের শিকার ৫৯২: মহিলা পরিষদ   ফ্রান্সে বিশ্বকাপ বিজয় উল্লাস করতে গিয়ে ব্যাপক সংঘর্ষ-লুটপাট, নিহত ২   মিয়ানমারে জাতিগত ৩ গ্রুপের বিদ্রোহীদের সংঘর্ষে শতাধিক মানুষ পালিয়েছে   নির্বাচন আসছে, সংখ্যালঘুদের মধ্যে চিন্তা বাড়ছে: জাফর ইকবাল   ডুবুরী সানামের জন্য শোক ও মঙ্গলকামনা করেছেন গুহায় আটকা পড়া কিশোররা   আয়ারল্যান্ডে ‘হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের’ “অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনের ডাক”
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / সন্তানের কাছে যেমন ছিলেন স্টিফেন হকিং

সন্তানের কাছে যেমন ছিলেন স্টিফেন হকিং

প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-১৮ ১১:২০:১১

অনলাইন ডেস্ক

পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং পারিবারিক জীবন কিভাবে অতিবাহিত করছেন? কিভাবে কেটেছে তার সংসার? সন্তানের কাছে স্টিফেন হকিং কেমন ছিলেন? একজন বিখ্যাত ব্যক্তি সম্পর্কে এরকম নানা প্রশ্নের উকি দেয়াটা স্বাভাবিক ব্যাপার।

ব্যক্তিগত জীবনে স্টিফেন হকিং দুই বিয়ে করেন। প্রথম বিয়ের দুই বছর আগে মোটর নিউরোন রোগে আক্রান্ত হন তিনি।

জানা যায়, মোটর নিউরোন রোগটি ধরা পড়ার ২ বছর পর ১৯৬৫ সালের ১৪ জুলাই স্টিফেন হকিংসের সঙ্গে বিয়ে হয় ভাষাতত্ত্বের ছাত্রী জেন উইলডের। যদিও রোগটি ধরা পড়ার এক বছর আগে পারিবারিক এক অনুষ্ঠানে হকিংয়ের সঙ্গে জেনের প্রথম পরিচয় হয়। বিয়ের পর স্টিফেন ও জেন দম্পত্তির ঘরে জন্ম নেয় তিন সন্তান- রবার্ট, লুসি, টিম। তবে হকিংসের অসুস্থতার কারণে এই তিন সন্তানকে আগলে রাখতে হতো জেনকেই। আবার হকিংসের সেবা যত্নেও করতে হতো তাকে।

এদিকে, পরিবারে আর্থিক স্বচ্ছলতা আসতে থাকলে স্টিফেন হকিংসকে সার্বক্ষণিক দেখাশোনা করার জন্য একজন নার্স নিয়োগ করা হয়। ১৯৯৫ সালে জেনের সাথে হকিংয়ের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। আর সেই বছরের সেপ্টেম্বরে হকিং তার নার্স এলিনা মেসনকে বিয়ে করেন। দশ বছর সংসারের পর ২০০৬ সালে এলিনার সাথে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। পরে স্টিফেনের সাথে প্রথম স্ত্রী জেনের সম্পর্ক ভালো হতে শুরু করে।

হকিংসের ছোট ছেলে টিম বলেন, পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত বাবার কথা কিছুই বুঝতাম না। আমার বাবা তার নিজস্ব ভঙ্গিতে কথা বলতেন। আমার পক্ষে বাবার আধো আধো কথা বোঝা খুব কঠিন ছিল। তবে বাবার সাথে জোড়া লাগানো কথা বলার যে বক্স ছিল সেটা কখনোই আমার কাছে বাধা হিসেবে ছিল না। বরং বক্সটি আমাদের মধ্যে একটা ভালোবাসার বন্ধন তৈরি করেছিল।

তিনি বলেন, বাবা ভয়েস সিনথেসাইজারের মাধ্যমে কথা বলতেন। আমি যখন এটা বুঝতে পারলাম, তখন আর বাবার সাথে কথা বলতে কোনো সমস্যা হতো না। এটা আমার পরিবারের জন্য মর্মস্পশী বিষয় হলেও আমরা শুরু থেকেই বাবার সাথে সম্পর্ক তৈরি করতে পেরেছিলাম। বাবা দাবা খেলায় বেশ দক্ষ ছিলেন। তাই সময় পেলেই বাবার সাথে দাবা খেলতে বসে যেতেন বলেও জানান টিম।

গত ১৪ মার্চ ক্যামব্রিজে নিজ বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেন স্টিফেন হকিং। মহাবিশ্বের সৃষ্টি রহস্যের তাত্ত্বিক ব্যাখায় কৃষ্ণবিবর ও বিকিরণতত্ত্বের ব্যাখা দিয়ে তিনি এ সময়ের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানীর স্থানটি দখল করে নেন। সূত্র: বিবিসি।

 

আপনার মন্তব্য

আলোচিত