শিরোনাম

  ২৪ ডিসেম্বর থেকে পার্বত্য এলাকাসহ মাঠপর্যায়ে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হবে   গ্রাম আদালতের একটি সফল গল্প   টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের পদত্যাগের পর চার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব বণ্টন   আগামী ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশ   নির্বাচনকালীন ইউএনও-ডিসির স্বাক্ষরে শিক্ষকদের বেতন-ভাতা : শিক্ষা মন্ত্রণালয়   খালেদার মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ   'তিন পার্বত্য জেলায় ৩৮ টি ভোটকেন্দ্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে'   সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন নিশ্চিত করার আহ্বান ইউরোপীয় দেশগুলোর   তরুণ ও নারী ভোটাররাই আওয়ামী লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ারঃ কাদের   গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / রোহিঙ্গা হত্যার দায় স্বীকার মিয়ানমার সেনাবাহিনীর

রোহিঙ্গা হত্যার দায় স্বীকার মিয়ানমার সেনাবাহিনীর

প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১১ ০৯:৫০:১৫

   আপডেট: ২০১৮-০১-১১ ১০:৩৬:৩০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গেল বছর ডিসেম্বরে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের একটি গ্রামে দেশটির সেনাবাহিনীর দ্বারা সন্ধানকৃত গণকবরটি নিয়ে বেশ অনুসন্ধান চালাচ্ছে মিয়ানমারের তদন্ত কমিশন। সর্বশেষ তদন্ত কমিশন বুধবার গণমাধ্যমে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে কিছু তথ্য উঠে এসেছে।

রাখাইনের রাজধানী সিত্তে থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার উত্তরে ইন দিন গ্রামে অজ্ঞাত পরিচয় লোকজনের সন্ধ্যান পাওয়া গণকবরে ডিন গ্রামে দশজন মানুষকে হত্যার সাথে জড়িত রয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীরা।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, এটা সদ্য যে গ্রামবাসী এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা উভয়পক্ষই স্বীকার করেছে যে তারা ১০জন 'সন্ত্রাসী'কে হত্যা করেছে"। তবে মিয়ানমারের সেনা কর্তৃপক্ষ বেসামরিক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সহিংসতার বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

এর আগে সেনাবাহিনীরা ঘোষণা দিয়েছিল আইন অনুযায়ী কোন সদস্য জড়িত থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এতে সেনাবাহিনীর মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট জেনারেল 'আই উইন' এর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত দল গ্রামে গিয়ে গণকবরটি আশেপাশে তল্লাশি চালায়।

গত বছর ২৫ আগস্ট রাখাইনে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর ৩০টি চৌকিতে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির হামলার পর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নির্বিচারে রোহিঙ্গা নিধন শুরু করে।নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে গত কয়েক মাসে সাড়ে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। মানবাধিকার সংগঠনগুলোর বলছে, রোহিঙ্গাদের শত শত গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত