শিরোনাম

  ২৪ ডিসেম্বর থেকে পার্বত্য এলাকাসহ মাঠপর্যায়ে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হবে   গ্রাম আদালতের একটি সফল গল্প   টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের পদত্যাগের পর চার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব বণ্টন   আগামী ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশ   নির্বাচনকালীন ইউএনও-ডিসির স্বাক্ষরে শিক্ষকদের বেতন-ভাতা : শিক্ষা মন্ত্রণালয়   খালেদার মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ   'তিন পার্বত্য জেলায় ৩৮ টি ভোটকেন্দ্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে'   সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন নিশ্চিত করার আহ্বান ইউরোপীয় দেশগুলোর   তরুণ ও নারী ভোটাররাই আওয়ামী লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ারঃ কাদের   গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জঙ্গিদের হামলার ঘটনায় আমেরিকা দূতাবাসের নিন্দা

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জঙ্গিদের হামলার ঘটনায় আমেরিকা দূতাবাসের নিন্দা

প্রকাশিত: ২০১৮-০১-০৮ ১৭:৩৫:২৮

   আপডেট: ২০১৮-০১-০৮ ১৭:৩৮:৩০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গত শুক্রবার মিয়ানমার রাখাইনে রোহিঙ্গা জঙ্গিদের হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের নিন্দা জানিয়েছে মিয়ানমারে অবস্থিত রেঙ্গুন দূতাবাস।

(৮ জানুয়ারী ) সোমবার আমেরিকা দূতাবাস থেকে এই প্রতিক্রিয়া জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর হামলায় আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) কে নিন্দা জানাচ্ছি সেই সাথে যারা হামলায় আহত হয়েছে তাদের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করছি।

আমেরিকা দূতাবাসের পক্ষ থেকে আরো বলা হয়, আমরা এই অঞ্চলটিতে শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

গত শুক্রবার (৫ জানুয়ারী) উপকূলের উত্তরের অংশে মংডু থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে আরাকানিজ গ্রামে ২০ জন জঙ্গি একসঙ্গে ঘরে তৈরি মাইন ও ছোট আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে আক্রমণ চালিয়েছে৷ এসময় মিলিটারি ট্রাকে হামলা চালিয়ে কয়েকজন সেনাকর্মী মারাত্মকভাবে জখম হয়।

এই ঘটনার জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনী আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বরাতে নিন্দা জানিয়েছে।

এদিকে, রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের সংগঠন অারাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধের বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন। রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের গ্রুপ আরকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) নেতা আতা উল্লাহ এক বিবৃতিতে এ দাবি করেছেন।

সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তখনও প্রথমে আরসা সেনাবাহীনির ৩০টির বেশি চৌকিতে হামলা চালিয়েছিল৷ এরপরে রাখাইনে সেনা অভিযান শুরু করা হয়৷ এর জেরে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রাণভয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশের চট্টগ্রামে ঢুকে পড়েছেন৷ বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে৷

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এই অভিযানকে জাতিগত নিধনের চেষ্টা হিসেবে চিহ্নিত করে নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমার সরকার জাতিসংঘের এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

মিয়ানমার সরকার ইতিমধ্যে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। তবে চুক্তি ও শর্তঅনুযায়ী তাদের ফিরিয়ে নেওয়া হবে বলে রাষ্ট্রীয় বিবৃতিতে এমনতাই দাবি করা হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ১৯ ডিসেম্বর ঢাকায় বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের পর প্রথম বৈঠক আগামী ১৫ জানুয়ারি মিয়ানমারে অনুষ্ঠিত হবে। তবে ২৩ নভেম্বর প্রত্যাবাসন চুক্তি সই হওয়ার তিন মাসের মধ্যে অর্থাৎ আগামী ২২ জানুয়ারি প্রত্যাবাসন শুরুর যে লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে, তা বাস্তবায়ন করা কঠিন হতে পারে।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার জেরে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমানের মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) গেল বছর ২০১৭ সালে ২৩ নভেম্বর সই হয়েছে।

সই হওয়া চুক্তিটি ১৯৯২ সালে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সরকারের মধ্যে সই হওয়া চুক্তির আলোকেই করা হয়েছে এবং রাখাইনের বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদের পর্যায়ক্রমে যাচাই ও ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে সাধারণ নির্দেশিকা ও নীতিমালা এতে রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত