শিরোনাম

  ভুটানকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা   খাগড়াছড়িতে সেটেলার কর্তৃক পাহাড়ী নারীকে ধর্ষণ চেষ্ঠা   গুলো-গুলি || আলোময় চাকমা   বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা   মহালছড়িতে আবার ৩ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা   আজ খালেদা জিয়ার জন্মদিন!   বাঙালির শোকের দিন আজ   বঙ্গবন্ধুর শোক দিবসে ২১০টি গরু জবাই দিয়ে কাঙালি ভোজ আয়োজন !   পিসিপি ২৬ তম কাউন্সিল ও ছাত্র সম্মেলন সম্পন্ন , নিপন ত্রিপুরাকে সভাপতি ও অমর শান্তি চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক   পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন : অর্থনৈতিক না রাজনৈতিক সমস্যা ?   খাগড়াছড়িতে ৪ গ্রামবাসীকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে   শান্তি চুক্তির পর পাহাড়ে যে উন্নয়ন হয়েছে তা টেলিটক থেকে মেসেজ করে আমরা পৌঁছে দেব : তারানা হালিম   এবার বিশ্বের মধ্যে খারাপ শহরের তালিকায় ২য় স্থানের নাম লিখেছে ঢাকা , বাংলাদেশ   জিয়াউর রহমানই পাহাড়ে সমতল থেকে মানুষ নিয়ে অশান্তির বীজ বপন করেছিল   সরকারি চাকরিজীবীরা বেতন-বোনাস পাচ্ছেন বৃহস্পতিবার   নেপালকে ৩-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে মারিয়া মান্দার দল বাংলাদেশ   দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই   শহিদুলের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন নোবেলজয়ী স্টিগলিজসহ ১৩ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব   খাগড়াছড়িতে ৪ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা   রিমান্ড শেষে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন অভিনেত্রী নওশাবা
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে আদিবাসী অধিকার ও সরকারের বনভূমি পরিকল্পনা

মিয়ানমারে আদিবাসী অধিকার ও সরকারের বনভূমি পরিকল্পনা

প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৬ ১৪:১৯:৫০

   আপডেট: ২০১৭-১২-০৬ ২১:৪৫:০১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারে স্থানীয় সামাজিক সংগঠন (সিএসও) চায় এই অঞ্চলে বসবাসরত আদিবাসী তথা উপজাতিদের ভূমির অধিকারসহ আনুষ্ঠানিকভাবে নাগরিকদের সাংবিধানিক স্বীকৃত দিয়ে সংস্কৃতি রক্ষা করা। মিয়ানমারে ৮ টি আদিবাসী জাতিগোষ্ঠী রয়েছে। তারমধ্যে প্রধান জাতিদের 'বামর' বলে আখ্যায়িত করা হয় এবং বাকীদের কাচিন, কেইন, কেয়াহ, শিন, মোন,শান,রাকিন বলে অভিহিত করা হয়।

সরকার কার্বন নিঃসরণ মোকাবেলার জন্য প্যারিসে জলবায়ু-পরিবর্তন শোধন সংক্রান্ত চুক্তির বাস্তবায়নের জন্য কর্ম পরিকল্পনা এবং যাতে আদিবাসীদের বনভূমি সংরক্ষণ করা যায় প্রকল্পগুলির জন্য পথ তৈরি করে দেওয়ার চেষ্ঠা চালাচ্ছে।

জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক কনভেনশন (ইউএনএফসিসিসি) কর্তৃক আদিবাসীদের সর্বোত্তম সহায়তা এবং অধিকার হিসেবে অংশীদারিত্বের জন্য আইনত একটি প্ল্যাটফর্ম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

এটি ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্যারিসে চুক্তির অংশ হিসেবে এটি অনুমোদিত হয় । এছাড়াও জার্মানীর বোন শহরে গত মাসে কৌশলগত পরিকল্পনা, পদ্ধতি এবং কাঠামো প্ল্যাটফর্ম সহ তা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য সুপারিশগুলি জমা দেওয়া হয়েছিল।

মিয়ানমারের সামাজিক সংগঠনের কিছু দলও তথা শিন জাতিগোষ্টীদের দ্বারা পরিচালিত (শিন হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন) সম্প্রতি জার্মানি বোন শহরে আদিবাসীদের সামাজিক জীবন-বৈচিত্র উন্নয়নের লক্ষে গত ৬ নভেম্বর বন সম্মেলনে যোগদান করেছে ।

মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতির সাথে সম্মেলনে অংশগ্রহণ করা এক প্রতিনিধির সাক্ষাৎকারে (মাই টিন ইউ মুন) সে জানায়, মূলত আদিবাসীদের জীবন-মান উন্নয়ন সহ তথা তাদের চিরাচরিত ঐতিহ্যে লালিত বৈচিত্র এই জনগোষ্ঠি সমূহের জীবন ও সংস্কৃতি যাতে সংরক্ষণ করা যায় সেজন্য স্থানীয় সরকার এবং সামাজিক সংগঠগুলো দ্বিপার্শ্বিকভাবে কাজ করছে।

তিনি আরো জানান, (শিন হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন) এর প্রতিনিধি বহু বছর ধরে জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন কনফারেন্সে অংশ নিচ্ছেন।

কার্বন নির্গমন কমানোর জন্য ২০১৫ সালে মিয়ানমার - ন্যাশনাল ডিট্রিমান্ড কমিটিমেন্ট (এনডিসি) কে একটি খসড়া দাখিল করে। যেখানে ভবিষ্যত বছরগুলির কথা চিন্তা করে জলবায়ু-পরিবর্তন শোধন এবং অভিযোজনগুলির উপর লক্ষ্যগুলির রূপরেখা প্রদান করা হয়।গ্লোবাল ফরেস্ট রিসোর্সেস অ্যাসেসমেন্টস ২০১৫ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী মিয়ানমারের সম্পূর্ন বনভূমি ২৫ বছর আগে নাটকীয়ভাবে ৬০ শতাংশ নিচে নেমে এসেছে।  

২০১০ এবং ২০১৫ সালের মধ্যে মিয়ানমারের বার্ষিক বনের হার পূর্বাভাসে ছিল ১.৭ শতাংশ। যা বছরে প্রায় ৫৪৬০০০ হেক্টর বনের ক্ষতি হয়েছে। "এক দশকের মাঝামাঝি সময়ে পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে সেখানে।