শিরোনাম

  আগামী ১৮ নভেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা, থাকছে না এমসিকিউ   অবশেষে তিন মাস পর জামিন পেলেন আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম   নির্বাচনী এলাকায় ৭-১০ দিন আগে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে : নির্বাচন কমিশন   মিয়ানমারে নিয়ে যাওয়ার ভয়ে তালিকাভুক্ত সব রোহিঙ্গা পালিয়ে গেল   ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৯, নিখোঁজ ১৩০   রাঙ্গামাটি থেকে বুদ্ধগয়ার যাওয়ার উদ্দেশ্যে তীর্থযাত্রীর বাস দুর্ঘটনায় ১ জন নিহত   পুলিশের গাড়িতে আগুন দেওয়া দুই যুবক ‘শনাক্ত’   পুলিশকে ধন্যবাদ দিলেন প্রধানমন্ত্রী   বলিউডের স্টার দীপিকা-রণবীরের বিয়ে সম্পন্ন   এবার থেকে সরকারী চাকরিজীবীর স্ত্রী মারা গেলে আজীবন পেনশন পাবেন স্বামী   ৩ বছরের কারাদণ্ড ডেসটিনির চেয়ারম্যানের   দীঘিনালায় শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক ঊষা আলো চাকমাকে অপহরণ   হামলা করে নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে সরকার : ফখরুল   নির্বাচন বানচাল করতে পুলিশের ওপর হামলা করেছে বিএনপি : কাদের   স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন ইমরান এইচ সরকার   খালেদার দু’টি আসন পাচ্ছেন দুই পুত্রবধূ!   আগামীকাল থেকে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে পাঠানো হবে, যেতে চায়না রোহিঙ্গারা   চলে গেলেন স্পাইডারম্যান-আয়রনম্যান লেখক   অনৈতিক কাজে জড়িত কক্সবাজার এসিল্যান্ড নাজিম উদ্দিনকে রাঙামাটিতে বদলি   এবার এরশাদের জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন হিরো আলম
প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারে আদিবাসী অধিকার ও সরকারের বনভূমি পরিকল্পনা

মিয়ানমারে আদিবাসী অধিকার ও সরকারের বনভূমি পরিকল্পনা

প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৬ ১৪:১৯:৫০

   আপডেট: ২০১৭-১২-০৬ ২১:৪৫:০১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মিয়ানমারে স্থানীয় সামাজিক সংগঠন (সিএসও) চায় এই অঞ্চলে বসবাসরত আদিবাসী তথা উপজাতিদের ভূমির অধিকারসহ আনুষ্ঠানিকভাবে নাগরিকদের সাংবিধানিক স্বীকৃত দিয়ে সংস্কৃতি রক্ষা করা। মিয়ানমারে ৮ টি আদিবাসী জাতিগোষ্ঠী রয়েছে। তারমধ্যে প্রধান জাতিদের 'বামর' বলে আখ্যায়িত করা হয় এবং বাকীদের কাচিন, কেইন, কেয়াহ, শিন, মোন,শান,রাকিন বলে অভিহিত করা হয়।

সরকার কার্বন নিঃসরণ মোকাবেলার জন্য প্যারিসে জলবায়ু-পরিবর্তন শোধন সংক্রান্ত চুক্তির বাস্তবায়নের জন্য কর্ম পরিকল্পনা এবং যাতে আদিবাসীদের বনভূমি সংরক্ষণ করা যায় প্রকল্পগুলির জন্য পথ তৈরি করে দেওয়ার চেষ্ঠা চালাচ্ছে।

জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক কনভেনশন (ইউএনএফসিসিসি) কর্তৃক আদিবাসীদের সর্বোত্তম সহায়তা এবং অধিকার হিসেবে অংশীদারিত্বের জন্য আইনত একটি প্ল্যাটফর্ম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

এটি ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্যারিসে চুক্তির অংশ হিসেবে এটি অনুমোদিত হয় । এছাড়াও জার্মানীর বোন শহরে গত মাসে কৌশলগত পরিকল্পনা, পদ্ধতি এবং কাঠামো প্ল্যাটফর্ম সহ তা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য সুপারিশগুলি জমা দেওয়া হয়েছিল।

মিয়ানমারের সামাজিক সংগঠনের কিছু দলও তথা শিন জাতিগোষ্টীদের দ্বারা পরিচালিত (শিন হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন) সম্প্রতি জার্মানি বোন শহরে আদিবাসীদের সামাজিক জীবন-বৈচিত্র উন্নয়নের লক্ষে গত ৬ নভেম্বর বন সম্মেলনে যোগদান করেছে ।

মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতির সাথে সম্মেলনে অংশগ্রহণ করা এক প্রতিনিধির সাক্ষাৎকারে (মাই টিন ইউ মুন) সে জানায়, মূলত আদিবাসীদের জীবন-মান উন্নয়ন সহ তথা তাদের চিরাচরিত ঐতিহ্যে লালিত বৈচিত্র এই জনগোষ্ঠি সমূহের জীবন ও সংস্কৃতি যাতে সংরক্ষণ করা যায় সেজন্য স্থানীয় সরকার এবং সামাজিক সংগঠগুলো দ্বিপার্শ্বিকভাবে কাজ করছে।

তিনি আরো জানান, (শিন হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন) এর প্রতিনিধি বহু বছর ধরে জাতিসংঘ জলবায়ু পরিবর্তন কনফারেন্সে অংশ নিচ্ছেন।

কার্বন নির্গমন কমানোর জন্য ২০১৫ সালে মিয়ানমার - ন্যাশনাল ডিট্রিমান্ড কমিটিমেন্ট (এনডিসি) কে একটি খসড়া দাখিল করে। যেখানে ভবিষ্যত বছরগুলির কথা চিন্তা করে জলবায়ু-পরিবর্তন শোধন এবং অভিযোজনগুলির উপর লক্ষ্যগুলির রূপরেখা প্রদান করা হয়।গ্লোবাল ফরেস্ট রিসোর্সেস অ্যাসেসমেন্টস ২০১৫ সালের রিপোর্ট অনুযায়ী মিয়ানমারের সম্পূর্ন বনভূমি ২৫ বছর আগে নাটকীয়ভাবে ৬০ শতাংশ নিচে নেমে এসেছে।  

২০১০ এবং ২০১৫ সালের মধ্যে মিয়ানমারের বার্ষিক বনের হার পূর্বাভাসে ছিল ১.৭ শতাংশ। যা বছরে প্রায় ৫৪৬০০০ হেক্টর বনের ক্ষতি হয়েছে। "এক দশকের মাঝামাঝি সময়ে পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে সেখানে।