শিরোনাম

  গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা   বিশ্বের প্রথম উঁচু ভাস্কর্য 'চীনের স্প্রিং টেম্পল বুদ্ধ'   আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস || আদিবাসীদের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসার অাহ্বান   বনের রাজা সিংহকে নিয়ে রাঙ্গামাটিতে দৌড়াবেন ঊষাতন তালুকদার   আজ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস   নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জন্য যেসব মার্কা দেওয়া হচ্ছে...   নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় সকল প্রার্থীদের যা যা মেনে চলতে হবে   নির্বাচনে গাড়ি প্রতীক পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমরান এইচ সরকার   দেশে ৫৮টি নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বিটিআরসি   পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য শেখ হাসিনাকে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া উচিত
প্রচ্ছদ / সমগ্র দেশ / আব্বাসকে ৪ ব্যাগ রক্ত দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা

আব্বাসকে ৪ ব্যাগ রক্ত দিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা

প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-০৮ ১৪:১৮:০৬

   আপডেট: ২০১৮-০৪-০৬ ১০:৪৭:৩৪

সুভ্রত মন্ডল

ঢাকার মালিবাগে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে এন্ড হসপিটাল লিমিটেডে চিকিৎসাধীন বিরল রোগে আক্রান্ত মাদারীপুর রাজৈরের ১৩ বছরের কিশোর আব্বাস শেখের রক্ত শূণ্যতা পূরণের জন্য চার ব্যাগ রক্ত দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতা কর্মীরা।এ চার ব্যাগ রক্ত আব্বাস শেখকে পর্যায়ক্রমে দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মাদারীপুর মেডিক্যাল এন্ড ডেন্টাল স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের আহ্বায়ক তামিম হাওলাদার সর্বশেষ আব্বাসকে রক্ত প্রদান করেন।

রক্তদান শেষে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এ সদস্য তামিম হাওলাদার বলেন, আব্বাস শেখকে দেখতে আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এসেছিলেন।আব্বাসকে চার ব্যাগ রক্ত দেওয়া হয়েছে। চার ব্যাগ রক্তের সবই ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতা কর্মীরা দিয়েছেন। আব্বাসের অপারেশন করার সময় যদি রক্তের প্রয়োজন হলে, আমরা সংগ্রহ করে দেব।

আব্বাসের সর্বশেষ অবস্থা জানতে চাইলে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেডের চিফ ইক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ বলেন, আব্বাসকে আজও এক ব্যগ রক্ত দেওয়া হবে।আজকের রক্ত দেওয়া হলে আব্বাসের শরীরে এ নিয়ে চার ব্যাগ রক্ত দেওয়া হবে। এ রক্ত আরো আগে দেওয়ার কথা থাকলেও আব্বাসের শরীরের ভেন খুব দুর্বল। বারবার ক্যানালা প্রবেশ করানো হলেও কিছুক্ষণ পর তা অকার্যকর হয়ে পড়ে। এজন্য আব্বাসকে রক্ত দিতে কষ্ট হচ্ছে। আব্বাসের চিকিৎসার জন্য যখন যেটা দরকার আমরা সেটাই করছি।

এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক ও ছাত্রলীগ কর্মী জান্নাত আরা ১ম ব্যাগ, ২ মার্চ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ ২য় ব্যাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক রাহিদুল ইসলাম রাহিদ আব্বাসকে ৩য় রক্ত প্রদান করেন।

২৫ ফেব্রুয়ারি ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে আব্বাসকে ভর্তি করানোর পর প্রথম আব্বাসকে দেখতে আসেন গুলশান থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার হামিদুর রহমান ‍নুর ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খন্দকার নুরুজ্জামান নবীন।চিকিৎসক, নার্স, হাসপাতালের স্টাফ ও পরিবারের বাইরের প্রথম মানুষ হিসেবে আব্বাসের গা ছুয়ে স্পর্শ করেন গুলশান ছাত্রলীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার হামিদুর রহমান নুর ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খন্দকার নুরুজ্জামান নবীন।এসময় তারা আব্বাস ও তার বাবাকে নতুন পোশাক পড়িয়ে দেন। আব্বাসের জন্য তারা রাতের খাবার নিয়েন আসেন।

প্রসঙ্গত, বিগত পাঁচ বছর যাবৎ আব্বাসের ডান পায়ের ফুলা অংশ থেকে দুর্গন্ধ তরল পদার্থ বের হতো। যার কারণে তার কাছে কেউ যেত না। ডা. সিরাজুল ইসলাম ভর্তির পর আব্বাসের পা থেকে তরল পড়া বন্ধ হয়েছে।

২৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় আব্বাসের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে ছুটে আসেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। এসময় ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ আব্বাস ও তার বাবার সাথে কথা বলার পাশাপাশি তাদের আর্থিক সহযোগীতা করেন।

বিরল রোগে আক্রান্ত আব্বাস শেখের চিকিৎসার দায়িত্ব নেবার জন্য ডা. সিরাজুল ইসলমা মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেডের চিফ ইক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও)ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজকে ধন্যবাদ জানান ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। আব্বাসের পরিবারের পাশে দাড়াঁনোর কথাও ব্যক্ত করেন ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ।

চিকিৎসা বঞ্চিত বিরল রোগে আক্রান্ত মাদারীপুরের আব্বাস শেখকে ২১ ফেব্রুয়ারি ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে ভর্তি করানো হয়। গত ১৯ ও ২১ ফেব্রুয়ারি বিভিন্ন গণমাধ্যমে আব্বাস শেখের শারীরিক দুর্বস্থা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেডের চিফ ইক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) ও স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় মহাসচিব প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ আব্বাস শেখের চিকিৎসার দায়িত্বভার নেন। ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালের পক্ষ থেকে রাজ্জাক শেখের যোগাযোগ করা হলে আব্বাস শেখের চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করবে বলে জানান। 

২১ ফেব্রুয়ার বিকাল তিনটায় রাজ্জাক শেখ আব্বাসকে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটালে সার্জারী বিভাগে ভর্তি করা হয়। ২২ ফেব্রুয়ারি ৬ সদস্যোর সার্জিক্যাল টিম গঠন করা হয়। আব্বাস শেখ ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেডের সার্জারী বিভাগের প্রধান মেজর জেনারেল (অব) অধ্যাপক ডা. এম এ বাকীর অধীনে আব্বাসের চিকিৎসা চলছে। গত সপ্তাহে আব্বাসের বায়োপসি করানো হয়। বায়োপসি রিপোর্ট হাতে পেলে আব্বাসের চিকিৎসার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে সার্জিক্যাল টিম। বর্তমানে আব্বাস হাসপাতালটির ১০০১ নং কেবিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পাশাপাশি আব্বাসের বায়োপসি সহ বিভিন্ন পরীক্ষা করানো হয়। আগামী সপ্তাহ নাগাদ আব্বাসের চিকিৎসার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেড কর্তৃপক্ষ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত