আজ রবিবার, | ১৯ নভেম্বর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় বিশ্বসুন্দরী হলেন ভারতের মেডিক্যালের ছাত্রী মানুসি চিল্লার   অনৈতিক কাজে জড়াচ্ছে রোহিঙ্গা তরুণীরা   ট্রাকের চাপায় বান্দরবানে এক শিক্ষকের মৃত্যু   ১৯৯৩ সালে নানিয়াচর গণহত্যায় নিহতদের স্মরণে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শোকসভা ও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন   রাবিতে ছাত্রী অপহরণের ঘটনায় বামপন্থী ও শিক্ষার্থীদের উপাচার্যের বাসভবন ঘেরাও   হিল ভ্যালি প্রোডাকশন নিয়ে এসেছে চাকমা গান   রংপুরে তাণ্ডব: ৭ দিনেও গ্রেফতার হয়নি ‘মূল হোতারা’   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত   জেএসএস নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলার প্রতিবাদে ঢাকা শাহবাগে বিক্ষোভ মিছিল   রিপনা চাকমা\'র জীবনের গল্প : কৃষ্ণ এম. চাকমা   উ. কোরিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সিঙ্গাপুর   জেএসএস নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার,ধর-পাকড় ও হয়রানির প্রতিবাদে বিক্ষোভ   রংপুরে সাম্প্রদায়িক তাণ্ডব: ২ ইউপি সদস্য আটক   রুনা লায়লার জন্মদিন আজ   পাকিস্তানে বুদ্ধের ১৭০০ বছরের সবচেয়ে পুরনো মূর্তি উন্মোচন   আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে সিটি অব অটোয়া   নিউজিল্যান্ডের বিদায়, ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপে পেরু   রেকর্ড দামে বিক্রি ভিঞ্চির চিত্রকর্ম   উস্কানিমূলক লিফলেট বিতরণকালে ৪ রোহিঙ্গা আটক   বৃষ্টি হতে পারে আরো ২ দিন

মোরার আঘাতে বান্দরবানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

প্রকাশিত: ২০১৭-০৫-৩০ ১৪:৪৮:১০

   আপডেট: ২০১৭-০৬-১২ ০০:০৬:২৯

অনলাইন ডেস্ক

ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র আঘাতে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ে নাইক্ষ্যংছড়ি লামা, আলীকদম ও রুমা উপজেলায় শতাধিক কাঁচা ঘরবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চিম্বুক পাহাড়ের নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্র ও নিরাপত্তা বাহিনীর অনেক ক্যাম্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাছ চাপা পড়ে লামা ও নাইক্ষ্যংছড়িতে শিশুসহ ৪ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে লামায় আহত ক্যচিং থোয়াই ও শিশু কামরুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় লামা চকরিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। প্রচণ্ড ঝড়ের কারণে পুরো জেলায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

মঙ্গলবার ভোর থেকেই জেলা শহর ও উপজেলাগুলোতে বিদ্যুৎ নেই। বিদ্যুতের কারণে মোবাইল নেটওয়ার্কও বন্ধ হয়ে গেছে বিভিন্ন এলকায়। সড়কে গাছ পড়ে বান্দরবানের লামা, আলীকদম, চকরিয়া ও বান্দরবান থানছি সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কক্সবাজার সংলগ্ন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ও লামা উপজেলা। এই এলাকার ঘুনধুম, বাইশারী সোনাইছড়ি এলাকায় সহস্রাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।

ঘুনধুম ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম জানান, ইউনিয়নে বেশির ভাগ ঘরবাড়িই ঝড়ে ভেঙে পড়েছে। বৃষ্টি হওয়ায় মানুষ কষ্টের মধ্যে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।'

বান্দরবান বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী চিংহ্লা মং মারমা জানান, বিদ্যুতের তারের উপর গাছ পড়ায় ও বিভিন্ন জায়গায় খুঁটি উপড়ে পড়ায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তবে লাইন সচল করতে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীরা চেষ্টা চালাচ্ছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরির পর এলাকায় ত্রাণ পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মো. মাকসুদ চৌধুরী।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত