শিরোনাম

  ভিয়েতনামে বন্যায় ২০ জনের মৃত্যু , ১ লাখ ১০ হাজার হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট   দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা   ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী সতর্ক করেছেন: কাদের   থানকুনি পাতার জাদুকরি উপকারিতা   চট্টগ্রাম কর্ণফুলীতে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, গ্রেফতার ৩   পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়নে সেনাবাহিনীর ভূমিকা অপরিসীম : প্রধানমন্ত্রী   চিকিৎসা খাতে নতুন আবিষ্কার রঙিন ও থ্রি-ডি এক্স-রে   গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেঁদেছেন প্রধানমন্ত্রী   না ফেরার দেশে রাজীব মীর   নানিয়াচর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান প্রীতিময় চাকমাকে অপহরণ   ছেলেদের চেয়ে এবারও এগিয়ে মেয়েরা   চট্টগ্রাম বোর্ডের পাশের হার ৬২.৭৩ %   যারা ফেল করেছে তাদের বকাঝকা করবেন না : প্রধানমন্ত্রী   এইচএসসি তে পাসের ধস নেমেছে এবার   এইচএসসি ও সমমানে পাসের হার এবার ৬৬.৬৪   হাসপাতাল ছাড়ার পর এবার থাই কিশোররা সবাই শ্রামণ হয়ে প্রবজ্যা গ্রহণ করবে   থাইল্যান্ডের গুহায় আটকা পড়া কিশোররা হাসপাতাল ছেড়েছে   ৮ দল নিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আত্মপ্রকাশ   আগামীকাল এইচএসসির ফল প্রকাশ হবে   নেলসন ম্যান্ডেলার জন্ম শতবার্ষিকী আজ
প্রচ্ছদ / সমগ্র দেশ / মোরার আঘাতে বান্দরবানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

মোরার আঘাতে বান্দরবানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

প্রকাশিত: ২০১৭-০৫-৩০ ১৪:৪৮:১০

   আপডেট: ২০১৭-০৬-১২ ০০:০৬:২৯

অনলাইন ডেস্ক

ঘূর্ণিঝড় ‘মোরা’র আঘাতে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ে নাইক্ষ্যংছড়ি লামা, আলীকদম ও রুমা উপজেলায় শতাধিক কাঁচা ঘরবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চিম্বুক পাহাড়ের নীলগিরি পর্যটন কেন্দ্র ও নিরাপত্তা বাহিনীর অনেক ক্যাম্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গাছ চাপা পড়ে লামা ও নাইক্ষ্যংছড়িতে শিশুসহ ৪ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে লামায় আহত ক্যচিং থোয়াই ও শিশু কামরুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় লামা চকরিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। প্রচণ্ড ঝড়ের কারণে পুরো জেলায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

মঙ্গলবার ভোর থেকেই জেলা শহর ও উপজেলাগুলোতে বিদ্যুৎ নেই। বিদ্যুতের কারণে মোবাইল নেটওয়ার্কও বন্ধ হয়ে গেছে বিভিন্ন এলকায়। সড়কে গাছ পড়ে বান্দরবানের লামা, আলীকদম, চকরিয়া ও বান্দরবান থানছি সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কক্সবাজার সংলগ্ন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ও লামা উপজেলা। এই এলাকার ঘুনধুম, বাইশারী সোনাইছড়ি এলাকায় সহস্রাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।

ঘুনধুম ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম জানান, ইউনিয়নে বেশির ভাগ ঘরবাড়িই ঝড়ে ভেঙে পড়েছে। বৃষ্টি হওয়ায় মানুষ কষ্টের মধ্যে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।'

বান্দরবান বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী চিংহ্লা মং মারমা জানান, বিদ্যুতের তারের উপর গাছ পড়ায় ও বিভিন্ন জায়গায় খুঁটি উপড়ে পড়ায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তবে লাইন সচল করতে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীরা চেষ্টা চালাচ্ছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরির পর এলাকায় ত্রাণ পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মো. মাকসুদ চৌধুরী।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত