শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ-মুসলিম উদ্দেশ্যে সাঙ্গাকারার শান্তির বার্তা

শ্রীলঙ্কায় বৌদ্ধ-মুসলিম উদ্দেশ্যে সাঙ্গাকারার শান্তির বার্তা

প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-০৮ ২১:২৯:১৪

অনলাইন ডেস্ক

জাতিগত সহিংসতায় টালমাটাল শ্রীলঙ্কা। সেখানে মুসলমানদের সঙ্গে বৌদ্ধদের দফায় দফায় সংঘর্ষ ও সহিংসতা চলছে।
 
চলমান সহিংসতা নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যাওয়ায় কারফিউ জারি করে সরকার। দেশে রক্তক্ষীয় এ সংঘাত বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন কিংবদন্তী ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকারা। ফেসবুকে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে তিনি শান্তির বার্তা দিয়েছেন। ভিডিওটি দেখতে চাইলে তাঁর ভেরিফাইড আইডিতে পাওয়া যাচ্ছে। তাঁর এই শান্তির বার্তাটি আন্তর্জাতিক কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে।

তিনি বলেন- 'এটা আমার পক্ষ থেকে স্বদেশী শ্রীলঙ্কানদের প্রতি বার্তা। আমরা কি অতীত থেকে কোনো শিক্ষাই নিইনি? আমরা কি সাধারণ মানবিকতা এবং ভালোবাসাও হারিয়ে ফেলেছি? আমরা সবাই কি মানসিকভাবে এতটাই দৈন্য যে আমরা বুঝতে পারছি না বিবেকহীন ও নির্বোধ কাণ্ডকীর্তি আমাদের ভবিষ্যৎ ক্ষতিগ্রস্ত করছে! আমরা কি মৌলিক মানবিক গুণাবলি হারিয়ে ফেলছি?'

ক্যান্ডির দাঙ্গায় রোববার মুসলিম সম্প্রদায়ের দোকানপাট ও বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এরআগে একজন সিংহলিজ ট্রাকচালকের মৃত্যু ও তাঁর শেষকৃত্যের পরপরই এই ঘটনা ঘটে।

এই হানাহানির এখানেই শেষ দেখতে চান সাঙ্গাকারা।

'অপরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা আমাদের সবার দায়িত্ব। প্রতিবেশীর ভালো-মন্দ দেখাও আমাদের দায়িত্ব। আমরা আমাদের বোনের রক্ষাকবচ, ভাইয়ের রক্ষাকবচ। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে প্রত্যেক শ্রীলঙ্কান নিরাপদ।'

সবাইকে উদারতার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, 'আমরা প্রত্যেকের জন্য আমাদের হৃদয় ও মনকে খোলা রাখব। সবাই মিলে আমরা এই জাতিগত বিদ্বেষ ও দাঙ্গার পাগলামি বন্ধ করতে চাই। এসব আমাদের এখনই বন্ধ করতে হবে।'

আবেগী সাঙ্গা বলেন, ‘আমি যখন আমাদের শ্রীলঙ্কান ভাই-বোনদের চোখের দিকে তাকাই, কোনো পার্থক্য দেখি না। সিংহলিজ, তামিল, মুসলিম—সবার মধ্যেই আমি নিজেকে দেখতে চাই। আমি তাদের চোখে একই ধরনের প্রত্যাশা ও স্বপ্ন দেখি। সবার চোখেই দেশের জন্য একই ধরনের ভালোবাসা দেখি। একে অন্যের প্রতিও ভালোবাসা দেখি। আসুন, আমরা নিশ্চিত করি, এই চোখগুলোয় অজ্ঞানতার কারণে যেন কোনো ধরনের অন্ধতা ভর না করে। কোনো ভয় ও সংশয়ও যেন না থাকে।'

পাকিস্তান সুপার লিগে খেলতে সাঙ্গাকারা বর্তমানে অবস্থান করছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তার এই ভিডিও বার্তা কতজন শ্রীলঙ্কানের কাছে পৌঁছবে সেটা নিয়ে অবশ্য সংশয় রয়েই গেছে। গতকালই দাঙ্গা প্রতিরোধে সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যম বন্ধ করে দিয়েছে শ্রীলঙ্কান সরকার।

উল্লেখ্য, দ্বীপ দেশ শ্রীলঙ্কায় জরুরি অবস্থা জারি করেছে দেশটির সরকার। দেশটির মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের দোকান ও মসজিদে সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধরা অগ্নিসংযোগ করলে সহিংসতা ঠেকাতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়।

ঘটনার সূত্রপাত এক সপ্তাহ আগে। সংখ্যালঘু মুসলিমরা অভিযোগ করেছে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী এক ব্যক্তিকে মুসলিমরা পিটিয়ে মেরে ফেললে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনার প্রতিশোধ নিতে এক মুসলিমকে আগুনে পুড়িয়ে মারে বৌদ্ধরা। তার লাশ মঙ্গলবার এক ভবনে পায় কর্তৃপক্ষ। এতে নতুন করে প্রতিশোধমূলক হামলা হতে পারে। এই ভেবে শ্রীলঙ্কা কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার জরুরি অবস্থা জারি করা হয়।

এদিকে, শ্রীলঙ্কা সরকার জনমনে বিভ্রান্তি ও মুসলিম বিরোধী অপ্রচার বন্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। তারমধ্যে ফেসবুক সহ তথা ইন্টারনেট মিডিয়া মাধ্যমগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। এর আগে গতকাল মংগলবার মুসলিম ও সেখানকার সংখ্যাগরিষ্ট বৌদ্ধদের মধ্যে দাঙ্গা দেখা দিলে কারফিউ জারি করা হয়। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাতে পরিস্থিতি এখনো থমথমে রয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যম চ্যানেল এশিয়া ।

দেশটির ঊর্ধ্বতন এক সরকারী কর্মকর্তা জানিয়েছেন, শ্রীলংকার টেলিকম নিয়ন্ত্রকেরা ইন্টারনেট সরবরাহকারীদেরকে ফেসবুক এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের অ্যাক্সেস ব্লক করে দিয়েছে।

তবে এই পদক্ষেপ সাময়িকভাবে চালু করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ এলে আবার ব্যবহারকারীরা অ্যাক্সেস করতে পারবে বলে তিনি জানান।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত