শিরোনাম

  গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা   বিশ্বের প্রথম উঁচু ভাস্কর্য 'চীনের স্প্রিং টেম্পল বুদ্ধ'   আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস || আদিবাসীদের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসার অাহ্বান   বনের রাজা সিংহকে নিয়ে রাঙ্গামাটিতে দৌড়াবেন ঊষাতন তালুকদার   আজ বিশ্ব মানবাধিকার দিবস   নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জন্য যেসব মার্কা দেওয়া হচ্ছে...   নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় সকল প্রার্থীদের যা যা মেনে চলতে হবে   নির্বাচনে গাড়ি প্রতীক পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমরান এইচ সরকার   দেশে ৫৮টি নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বিটিআরসি   পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য শেখ হাসিনাকে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দেওয়া উচিত
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / জাতীয় দলের খেলোয়াড় আনুচিং মারমা, আনাই মারমা ও মনিকা চাকমার দায়িত্ব নিলেন জেলা পরিষদ

জাতীয় দলের খেলোয়াড় আনুচিং মারমা, আনাই মারমা ও মনিকা চাকমার দায়িত্ব নিলেন জেলা পরিষদ

প্রকাশিত: ২০১৮-০১-০৯ ১৮:২৮:৪৭

   আপডেট: ২০১৮-০১-০৯ ২০:২৩:০৪

স্পোর্টস ডেস্ক

অভাবের পরিবার থেকে উঠে আসা দুই আদিবাসী যমজ বোন আনুচিং মারমা , আনাই মারমা ও মনিকা চাকমার লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়েছেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী।

জানা যায়, মঙ্গলবার তাঁদের বাড়িতে গিয়ে গৃহ নির্মাণ সহ পড়ালেখা খরচ চালানোর প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। সেই সাথে জাতীয় দলের আরেক খেলোয়াড় লক্ষ্মীছড়ির দূর্গম সুমন্ত পাড়ার মনিকা চাকমার দায়িত্ব ও নিয়েছেন।

আনুচিং ও আনাই কয়েক বছর ধরেই খেলছে জাতীয় দলে। একই সঙ্গে বয়সভিত্তিক দলেরও নিয়মিত মুখ। ২০১৬ সালে ঢাকায় এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুবাদে বেশ উপার্জনও হয়েছিল তাদের; যা অসচ্ছল পরিবারের মুখে ফুটিয়েছে হাসি। তাদের উপার্জন দিয়ে বাড়িতে দেওয়া হয়েছে ঘর, কেনা হয়েছে জমি।

খাগড়াছড়ির সাতভাইয়া পাড়ায় তাদের বসবাস। মা-বাবা এবং চার বোন ও তিন ভাই মিলে বড় পরিবার। বাবা-মা দুজনই কৃষক। আর ভাইয়েরা মিস্ত্রি। এমন পরিবারে দুই ফুটবলার যমজ বোনই এখন আশার প্রদীপ। যাদের জন্য পরিবারটিকে এলাকায় এখন সবাই চেনে।

এক গর্ভে একই সঙ্গে জড়াজড়ি করে তারা থেকেছে নয় মাস। পৃথিবীর আলো-বাতাস দেখেছে দুই মিনিট আগে ও পরে। কিন্তু তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যগুলো পুরোপুরিই ভিন্ন।

আনুচিং সব সময় ঘুরে বেড়াচ্ছে। মুখে সব সময় হাসি লেগেই থাকে। আর আনাই বড্ড লাজুক। গা ঢাকা দিয়ে রাখতে পারলেই যেন বাঁচে। বড় বোনকে পাশে রেখে ছোট আনুচিং নিজেই বলে, ‌‘ওর সঙ্গে আমার তো কোনো মিলই নেই। এমনকি ও যে খাবার পছন্দ করে, তা আমার বেশি পছন্দ নয়।’

এদিকে, খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীচরের বিন্দু কুমার কৃষি কাজ করেন। তার স্ত্রী রবি মালা গৃহিনী। ৫ কন্যার সবার ছোট মনিকা চাকমা রাঙ্গামাটির ঘাগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী। পরিবারের কারোরই সম্পৃক্ততা নেই ফুটবলে। বিন্দু কুমার ও রবি মালার কেউই চাননি তার কোনো মেয়ে ফুটবল খেলুক। খেললেও বকা দিতেন, বাধা দিতেন।

বাবা-মায়ের বাধা উপক্ষো করেই ফুটবল নিয়ে মাঠে ছুটেছেন ছোট মেয়ে মনিকা। ২০১১ সালে বঙ্গমাতা প্রাথমিক বিদ্যালয় টুর্নামেন্টে ফুটবল খেলেছেন ময়মনসিংহের হয়ে। দুই বছর পর খেলেছেন নিজ স্কুলের জার্সি গায়ে। বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট থেকে উঠে আসা সেই মনিকাই এখন দেশের নারী ফুটবলের অন্যতম বড় মুখ। খেতে ফসল ফলানো বিন্দুর মেয়ে ফুটবলের ফুল ফুটিয়ে যাচ্ছেন লাল-সবুজ জার্সি গায়ে। ফুটবল মাঠ রাঙাচ্ছেন বাবার চোখ রাঙানি খাওয়া সেই মেয়ে মনিকা।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাফ অনুর্ধ্ব ১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশীপের বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে সংর্বধনা দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, র‍্যাংকিংয়ে অনেক এগিয়ে থাকা ভারতকে উড়িয়ে দিয়ে অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ১-০ গোলে গেল বছর জয় তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। বর্তমানে তাঁরা সাফ অনুর্ধ্ব ১৫ নারী ফুটবল দলের সাথে খেলছেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত