শিরোনাম

  ২৪ ডিসেম্বর থেকে পার্বত্য এলাকাসহ মাঠপর্যায়ে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করা হবে   গ্রাম আদালতের একটি সফল গল্প   টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের পদত্যাগের পর চার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব বণ্টন   আগামী ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশ   নির্বাচনকালীন ইউএনও-ডিসির স্বাক্ষরে শিক্ষকদের বেতন-ভাতা : শিক্ষা মন্ত্রণালয়   খালেদার মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ   'তিন পার্বত্য জেলায় ৩৮ টি ভোটকেন্দ্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে'   সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন নিশ্চিত করার আহ্বান ইউরোপীয় দেশগুলোর   তরুণ ও নারী ভোটাররাই আওয়ামী লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ারঃ কাদের   গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বাংলাদেশের ১ম মহিলা বাইকার কি টিনা চাকমা?

বাংলাদেশের ১ম মহিলা বাইকার কি টিনা চাকমা?

প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১২ ১৪:২৯:৪৮

   আপডেট: ২০১৭-১১-২২ ১২:২৮:৫০

অনলাইন রিপোর্ট

বাংলাদেশের ১ম মহিলা বাইকার রাঙ্গামাটির মেয়ে টিনা চাকমা না চট্টগ্রামের মেয়ে এভ্রিল তা জানার জন্য মানুষদের কৌতূহল বেড়ে গেছে। অনেকে বলছেন 'এভ্রিল'হবে আর কেউ কেউ বলছেন টিনা হবে। সে হিসেবে মহিলা দুর্দান্ত প্রথম বাইকারকে খোঁজার জন্য বাংলাদেশের প্রথম সারির মিডিয়াগুলোর সূত্র অনুসরণ করে যা পাওয়া গেল।

সম্প্রতি মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় সেরা সুন্দরী হিসেবে প্রথম নির্বাচিত জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল এরপর তিনি সমালোচনার মুখে মুকুট হারিয়ে সেই মুকুট জেসিয়া ইসলামের কাছে চলে আসে। বর্তমানে জেসিয়া ইসলাম চীনাতে রয়েছে।

বিডিনিউজ ২৪ ও বাংলানিউজ ২৪ এভ্রিলকে নিয়ে সমস্ত রিপোর্ট পর্যবেক্ষণ করে যেটা পাওয়া গেছে , মাত্র ১৪ বছর বয়সেই বাইক চালানো শিখেছেন এভ্রিল । এরপর আস্তে আস্তে মোটরবাইক চালানো তার শখে পরিণত হয়। এ যান ঘিরেই চলতে থাকে তার নানা কসরত। মোটরসাইকেল নিয়ে বিভিন্ন নৈপুণ্য দেখাতে পারদর্শী হয়ে ওঠেন। এভাবে তিনি বাইকার হয়ে উঠেন।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এগুলো তিনি প্রফেশনাল হিসেবে কত সালে সর্বপ্রথম বাংলাদেশে মহিলা বাইক রাইডার হিসেবে যোগদান করেছিলেন?

সেই উত্তর জানার জন্য বাংলানিউজ ২৪ ডটকমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৩ সালের ১১ জুন চন্দনাইশ পৌর এলাকার বাসিন্দা ও কাপড় ব্যবসায়ী রানার সঙ্গে এই সুন্দরীর বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। তাদের বিয়ের দেনমোহর ছিলো ৮ লাখ টাকা।

কিন্তু সেই বিয়ে মানতে পারেনি তিনি। এভ্রিল আর একটি ভিডিও লাইভে বলেছেন, ‘১৬ বছরে বিয়ে দিলেই কোনো মেয়ের বিয়েটা হয়না। সেটা বাল্যাবিবাহ হিসেবে গণ্য। আমি চেয়েছিলাম সে সবের এগেইনেস্টে কাজ করতে।’ ‘আমি ডিভোর্সি, ফাইন, আমি একটা মেয়ে। এজ এ হিউম্যান আমার রাইট আছে, একটা ইন্টারন্যাশনাল প্ল্যাটফর্মে গিয়ে নিজেকে প্রেজেন্ট করার। কই আমি তো নিজের জন্য কিছু চাইনি! আমি চেয়েছিলাম আপনাদের দেশের মেয়েগুলাকে জাস্ট দেখিয়ে দিতে যে, একটা মেয়ে চাইলে কী কী পারে।’

এখন মূল কথা যেটা দাড়াচ্ছে এভ্রিলের বিবাহ বিচ্ছেদ হয় ২০১৩ সালে । এরপর তিনি নিজেকে আত্নগোপন করে বাইক রাইডারে যোগ দেন। সে খুব ভাল বাইক চালাতেন। অনেক নাম পেয়েছেন। তবে এগুলো পেছনে ৪-৫ বছর হবে। ২০১৪-২০১৭ সালের নাগাত তিনি বেশ বাইক রাইডার হিসেবে পরিচিত।

এদিকে, সময় টিভির গত ১১ নভেম্বর ২০১৭ তে বাংলাদেশের ১ম মহিলা বাইকার রাঙ্গামাটির মেয়ে টিনা চাকমা বলে এক প্রতিবেদন তুলে ধরেছে।

সময় টিভি টিনা চাকমাকে প্রশ্ন করেছিলেন, আপনি কত সাল থেকে সর্বপ্রথম মহিলা বাইক রাইডারে যোগদান করেছেন?

জবাবে টিনা জানিয়েছিলেন, ছোটকাল থেকে তিনি বাইক ও সাইকেল শেখার প্রতি অনেক আগ্রহী ছিলেন।আর বাড়িতে পিতা-মাতা্র সমর্থন পেয়ে তিনি আরো উৎসাহী হয়ে উঠেন। ২০০৭ সাল থেকে তিনি বাইক চালাতেন এরপর প্রফেশনাল হিসেবে ইয়ামাহা ব্রান্ডের কোম্পানির সাথে'গোস্ট' রাইডার গ্রুপে ২০০৯ সালে যোগদান করেছিলেন। বর্তমানে তার আন্ডারে অনেকজন প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন এবং ঈয়ামাহা ব্রান্ড সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

বিডিনিউজ ২৪ ডটকম,বাংলানিউজ ২৪ এবং রাইজিংবিডি ডটকম সহ কয়েকটি প্রথম সারির নিউজ প্রিন্ট এবং অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত অনুসন্ধানে যেটা উঠে এসেছে সেটা হল এভ্রিলের বিবাহ বিচ্ছেদ হয় ২০১৩ সালে। এরপর আত্নগোপন চলে যান। তার পর থেকে তিনি বাইক রাইডারে প্রফেশনাল হিসেবে যোগদান করেছিলেন। তাহলে বিষয়টি দাঁড়াচ্ছে টিনা চাকমা ২০০৯ সালে প্রফেশনাল হিসেবে যোগদান করেছিলেন আর এভ্রিলে ২০১৩ সালে বিবাহ বিচ্ছেদের পর প্রফেশনাল হিসেবে যোগদান করেছিলেন। 'এভ্রিল' ওরফে আমেনা যেসমস্ত নাম পেয়েছিলেন তা সবকিছু হয়েছিল বিবাহ বিচ্ছেদের পর।তিনি খুব মেধাবী ও সাহসী বলা যায়।তার সামাজিক সচেতনার জন্য তিনি এতদূর এগিয়ে যাচ্ছেন।

এছাড়া আলোচিত এই এভ্রিল মেধাবী হওয়ার কারণে বর্তমানে লাভেলো কোম্পানির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছেন।

এদিকে-বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে এর আগে এভ্রিল কোন আলোচিত পর্দায় আসেনি। সম্প্রতি মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতাকে ঘিরে তিনি সবার নজরে আসেন । যেখানে উঠে এসেছিল তার পুরোনো কাহিনী। মূলত তার মেধা এবং সচেতনার জন্য এভ্রিল এত সাফল্য পেয়েছেন। এভাবে তিনি আলোচিত হন।আর টিনা চাকমা বাংলাদেশের সর্বপ্রথম 'গোস্ট রাইডার 'গ্রুপের সাথে ২০০৯ সালে প্রফেশনাল হিসেবে যোগ দিয়ে এখনো কর্মরত আছেন। এভাবে তিনি বাইকার হয়ে উঠেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত