আজ শুক্রবার, | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  সন্তুু লারমার কুশপুত্তলিকা দাহ করার প্রতিবাদে ও স্বেচ্ছায় বাঘাইছড়িতে আ. লীগের অর্ধশত পাহাড়ী নেতা-কর্মীর পদত্যাগ   পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তিতে যেসব বিষয় অবাস্তবায়িত রয়ে গেছে   অনাদী রঞ্জন চাকমা হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি   রাংগামাটি বাঘাইছড়ি পৌরসভা ও ইউনিয়নে স্বেচ্ছায় আরো ২১ জন পাহাড়ি আ. লীগ নেতার পদত্যাগ   এবার আয়ারল্যান্ড থেকে সু চির \'ফ্রিডম অব ডাবলিন সিটি’ পুরস্কার প্রত্যাহার   শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য ১৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিবে যুক্তরাষ্ট্র   ২০ হাজার ভিক্ষু নিয়ে মান্দালয়ে অনুষ্ঠিত হবে থাইল্যান্ড এবং মিয়ানমারের মহাদান অনুষ্ঠান   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিক আটক, দোষী সাব্যস্ত হলে ১৪ বছর কারাদন্ড হতে পারে   ত্রিপুরা রাজ্যে মায়েদের সন্তান পালনের জন্য ছুটি দুই বছর   প্যারিসে শীর্ষক গণশুনানি ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ   আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ কনফেডারেশন মহাসচিব হিসেবে নির্বাচিত হলেন ত্রিপুরা বৌদ্ধ ভিক্ষু   জালালাবাদ এসোসিয়েশন অফ টরোন্টোর ট্রাস্টী এবং উপদেষ্টামণ্ডলীর পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত   ত্রাণের উপর ঘুমাচ্ছে রোহিঙ্গারা , শীতে কেমন আসে লংগদুর পাহাড়িরা?   পার্বত্য এলাকায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষার প্রাথমিক দায়িত্ব আঞ্চলিক ও জেলা পরিষদের ওপর ন্যস্ত করার সুপারিশ   হামলার অভিযোগে আটককৃত ব্যক্তিরা রাঙ্গাপানি ও ভেদভেদী এলাকার অটোরিক্সা চালক, ছাত্র ও দিনমজুর   তিব্বতীয় মুসলমানরা দালাই লামাকে এখনো নেতা হিসেবে মনে করে   রাঙ্গামাটিতে ৬৯ গ্রামবাসী ও জেএসএস সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, নিরীহ ১৯ জনকে গ্রেফতার, ১২ জনকে হয়রানির অভিযোগ   নিউইয়র্কে হামলাকারী সন্দেহভাজন ব্যক্তি চট্টগ্রাম থেকে, পরিবার আতঙ্কিত   বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চ ভাষণের বিশ্ব স্বীকৃতিতে কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের আনন্দ শোভাযাত্রা

রোবেন মেনেই নিয়েছেন, তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন শেষ!

প্রকাশিত: ২০১৭-১০-০৮ ১৪:০৮:৪২

নিউজ ডেস্ক

সতীর্থের পাস থেকে বল পেয়ে উল্কার গতিতে ছুটে চলেছেন ন্যাড়া মাথার এক ফুটবলার। প্রতিপক্ষের দু-তিনজন ডিফেন্ডার মিলেও তাকে ট্যাকল করতে হিমশিম খাচ্ছে। ২০১০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপের সবচেয়ে পরিচিত ও দৃষ্টিনন্দন দৃশ্যগুলোর একটি ছিল এটি। দুটি বিশ্বকাপেই টুর্নামেন্টের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ছিলেন আরিয়েন রোবেন। রোবেনের ব্যক্তিগত নৈপূণ্যের দ্রুতিতে তার দেশ নেদারল্যান্ডসও দুটি বিশ্বকাপেই ছিল দুর্দান্ত। ২০১০ বিশ্বকাপে রানার্সআপ, ২০১৪ বিশ্বকাপে উঠেছিল সেমিফাইনালে। নিয়তির কি পরিহাস, প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগকে ছিন্ন-ভিন্ন করা রোবেনের সেই কারিকুরি দেখা যাবে না ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে! দেখা যাবে কমলা জার্সিধারীদের টোটাল ফুটবলের মোহনীয় জাদু! কাগজে-কলমে সম্ভাবনা এখনো আছে। কিন্তু সেই সমীকরণ এতোটাই কঠিন যে, রোবেন মেনেই নিয়েছেন তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন শেষ!

স্বপ্ন শেষ মেনে নিয়েছেন বলেই শনিবার রাতে বেলারুসের বিপক্ষে ৩-১ গোলের জয়ের পরও হতাশায় মাঠেই বসে পড়েন রোবেন। রাজ্যের হতাশা এসে ঘিরে ধরে পুরো নেদারল্যান্ডস শিবিরকেই। রেফারির শেষ বাঁশি রোবেনদের জয়োল্লাসে না ভাসিয়ে হতাশার সাগরে ডুবিয়ে দেওয়ার কারণ, মোবাইল-বার্তায় তার আগেই তাদের কানে ভেসে এসেছে এ গ্রুপে দিনের আরেক ম্যাচে লুক্সেমবার্গোকে ৮-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে সুইডেন।

শনিবার রাতে এ গ্রুপের আরেক ম্যাচে জয় পেয়েছে ১৯৯৮ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সও। দিদিয়ের দেশমের দল বুলগেরিয়াকে ১-০ গোলে হারিয়ে ধরে রেখেছে শীর্ষস্থান। ৯ ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে থাকা ফ্রান্সকে পেছনে ফেলা নেদারল্যান্ডসের পক্ষে সম্ভব নয়। কারণ সমান ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট তাদের। ফলে সরাসরি বিশ্বকাপে জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা শেষ। লুক্সেমবার্গোকে সুইডেন ৮ গোল দিয়ে ফেলায় রোবেনদের প্লে-অফে খেলার স্বপ্নও প্রায় শেষ! বিশাল এই জয়ে সুইডেন পূর্ণ ৩ পয়েন্টে এগিয়ে নেদারল্যান্ডসের চেয়ে। এগিয়ে গোল ব্যবধানেও।

আগামী মঙ্গলবার এই সুইডেনের বিপক্ষেই বিশ্বকাপ বাছাইয়ের শেষ ম্যাচ রোবেনদের। সুইডেনকে পেছনে ফেলে প্লে-অফ স্বপ্ন পূরণ করতে হলে সেই ম্যাচে রোবেনদের করতে হবে অবিশ্বাস্য কিছু। জিততে হবে ৭ গোলের ব্যবধানে! সুইডেনের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে সেও কী সম্ভব? নেদারল্যান্ডসের কোচ ডিক এডভোকাত এখনো আশা ছাড়ছেন না। তিনি বরং স্বপ্ন দেখছেন নিজেদের ঘরের মাঠে অলৌকিক কিছু ঘটনোর। কিন্তু রোবেনের মতে, সেই আশা মিছে।

তার মানে এই নয় যে, রোবেন হারার আগেই হার মেনে নিয়েছেন। ছেড়ে দিয়েছেন লড়াই করার আশা। তিনি বরং বাস্তববাদী। বাস্তবতা মেনেই রোবেন বলেছেন, সুইডেনের বিপক্ষে ৭ গোলের ব্যবধানে জেতা সম্ভব নয়। সুতরাং তাদের বিশ্বকাপ স্বপ্ন শনিবার রাতেই শেষ। তাদের স্বপ্নটা চুরমার করে দিয়েছে লুক্সেমবার্গো মুড়িমুড়কির মতো গোল খেয়ে! লুক্সেমবার্গো এতো গোল না খেলেই তো তাদের এমন কঠিন সমীকরণের মুখে পড়তে হয় না।

বেলারুসের বিপক্ষে জয়ে রোবেন নিজেও একটা গোল করেছেন। বায়ার্ন মিউনিখ উইঙ্গার পেনাল্টি থেকে সেই গোলটা করে ছুঁয়ে ফেলেছেন ফাস উইলকেস ও রুদ ফন নিস্টলরয়কে। নেদারল্যান্ডস জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তাদের তিনজনেরই গোল এখন সমান ৩৫টি করে। যা দেশের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় তাকে তুলে এনেছে যৌথভাবে পঞ্চম স্থানে। কিন্তু জয়-গোল কীর্তি কোনো কিছুই রোবেনের মুখের হতাশার প্রলেপটাকে হালকা করতে পারেনি।

ম্যাচ শেষে হতাশামাখা কণ্ঠে বলেই দিয়েছেন, ‘সুইডেন ৮-০ গোলে জিতেছে, এটা শোনাটা ছিল বিশাল এক ধাক্কা। সুইডেনের ওই রেজাল্টের পর বুক চিতিয়ে লড়াই করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। কিন্তু বেলারুসের বিপক্ষে ৮-০ গোলে জেতা সম্ভব হয়নি। সুইডেনের বিপক্ষেও ৭-০ গোলে জেতা সম্ভব হবে না। তা ঘটবে না।’ স্বপ্ন শেষ জানিয়ে বলেছেন, ‘এটা খুবই কষ্টের। তবে দুর্ভাগ্যজনক হলেও এটা খেলারই একটা অংশ।’

রোবেনের শেষ মানছেন বটে। তবে কোচ এডভোকাতের মতো অধিনায়ক রোবেনও কী ভেতরে ভেতরে কী ৭ গোলের অলৌকিক কাণ্ড ঘটানোর স্বপ্নও দেখছেন? রোবেনের মতো ফুটবলার বিশ্বকাপে থাকবেন না,  ফুটবলপ্রেমীদের কিন্তু এটা মেনে নেওয়া কষ্টের।

আপনার মন্তব্য


আলোচিত