শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিগত ৫ বছরে পাহাড়িদের সুখ-দুঃখের কথা আমি মহান সংসদে বলার চেষ্ঠা রেখেছিঃ ঊষাতন তালুকদার

বিগত ৫ বছরে পাহাড়িদের সুখ-দুঃখের কথা আমি মহান সংসদে বলার চেষ্ঠা রেখেছিঃ ঊষাতন তালুকদার

প্রকাশিত: ২০১৮-১২-১৯ ১৬:২০:৪৭

   আপডেট: ২০১৮-১২-২৩ ১৭:০৭:৫৪

ফাইল ছবি।

>>

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতির সমিতির সহ-সভাপতি সাংসদ সদস্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার বলেছেন, আমি বিগত ৫ বছরে আপনাদের সুখ-দুঃখের কথা, পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের কথা মহান সংসদে এবং সংসদের বাহিরে আমি বলার চেষ্ঠা রেখেছি।

তিনি বলেন, আপনারা আমাকে নির্বাচিত করে মহান সংসদে পাঠিয়েছিলেন বিধায় আমি পাহাড়ি জনগোষ্ঠির সুখ-দুঃখের কথা সংসদে উত্থাপন করেছি। আপনাদের উপর দমন-পীড়ন-নিপীড়ন, নির্যাতন, আপনাদের সুখ-দুঃখের কথা আমি বলার চেষ্ঠা রেখেছি। আমি চেষ্ঠার কোন ত্রুটি রাখি নাই।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে ঊষাতন তালুকদার বলেন, নির্বাচন আসলে অনেকে জনগণকে মধুর মধুর কন্ঠে বিভ্রান্তি করার চেষ্ঠা করবে। তাঁরা অনেক কিছু বলে।আপনাদেরকে বিভ্রান্ত করতে চায়। কিন্তু আজকে আপনাদের ভাবতে হবে। গভীরভাবে ভাবতে হবে।

বিলাইছড়ি বাজারে নির্বাচনি প্রচারনা ও জনসমাবেশে গত বুধবার তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন- 'আমার ভোট আমি দেবো; যাকে খুশী তাঁকে দেবো।' বিভ্রান্তি হয়ে নয়। ভালভাবে বুজেশুনে দেবো। কিন্তু ভোট দেওয়ার আগে আপনাদের ভাবতে হবে কেননা আমি যাকে ভোট দিয়ে মহান সংসদে পাঠাবো উনি আমাদের কি উপকারে আসবে। এই অশান্ত পার্বত্য চট্টগ্রামের জন্য সেই প্রতিনিধি কি ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, 'কি ভূমিকা রাখবে আপনাদের পক্ষে। সেই কথা ভোট দেওয়ার আগে ভাবতে হবে।'

ঊষাতন বলেন, অনেক টাকার ছুড়াছড়ি হচ্ছে। কারণ তাঁরাতো ১০-১৫ বছরে অনেক টাকা কামাই করেছে। আপনাদের মাথা বিক্রি করে তাঁরা এখন টাকা উড়াচ্ছে। টাকা দিয়ে আপনাদের মন জয় করার চেষ্ঠা করা হচ্ছে। কিন্তু আজকে আমাদের ভাবতে হবে। আমাদের ভাবতে হবে পার্বত্য চট্টগ্রামের বাস্তবতা।

তিনি বলেন, এখনো পার্বত্য চুক্তি যথাযতভাবে বাস্তবায়ন হয়নাই। পার্বত্য চট্টগ্রামে এখনো পরিপূর্নভাবে শান্তি ফিরে আসে নাই। যদিও আগের থেকে কিছু ভাল আছি। আবার কোন কোন ক্ষেত্রে খারাপ আছি। ভাল ও নাই মন্দ ও নাই। তাহলে এভাবে আর কত দিন? সে মারমা হোক বা বাঙালি হোক কিন্তু মানুষ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীব। মানসম্মান নিয়ে মানুষের মত মানুষ হয়ে মাথা-উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকার অধিকার সবারই আছে।

কিন্তু আজ পাহাড়ে ভয়-উৎকন্ঠা নিয়ে মানুষ কি এভাবে বাঁচতে পারে? বাঁচতে পারেনা। আর কত দিন? এভাবে আর বাঁচা যাবেনা। অধিকার আনতে হবে।

স্বাধীন-সার্বভৌম দেশে ২০ লক্ষ শহীদের বিনিময়ে ২লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আমরা বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি বলে এসময় তিনি শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

ঊষাতন বলেন, কিন্তু আজ এই স্বাধীন দেশে আমাদের আজকে করুণ অবস্থা কেন? কেন তাঁরা রক্ত দিলো? বাংলার মানুষ লড়াই করেছিলেন, সংগ্রাম করেছিলেন। কেন করেছিলেন? হিন্দু হোক , মুসলিম হোক, বুদ্ধ হোক, খ্রিস্টান হোক সবাই বাংলাদেশের নাগরিক। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন একারণে তাঁরা স্বাধীনভাবে থাকবে, ঘুরবে, ব্যবসা-বানিজ্য করবে, লেখাপড়া শিখবে। এটাইতো আমরা চেয়েছিলাম।কিন্তু কি হচ্ছে আজকে? পার্বত্য চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশে কি হচ্ছে?

নির্বাচনী সমাবেশে ঊষাতন তালুকদার সরকারের উদ্যোগে দূর্গম এলাকায় স্কুলগুলো সরকারীকরণ করে দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা ও আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

ঊষাতন তালুকদার এসময় বলেন, 'তালুকদার সাহেব আপনি পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষদের বোকা ভাববেন না।' মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করেছেন মানে আপনি উনাকে বিক্রি করে বাজারে প্রচার করে আপনি পার পাবেন না। কেননা সেটা প্রধানমন্ত্রী করেছেন। সেটা উনার ব্যপার। আপনি কি করেছেন সেটাই বলেন।

তিনি বলেন, পার্বত্য কমপ্লেক্স ঢাকায় যেটা নির্মাণ করা হয়েছে সেটা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অবদান।

চুক্তি কি কারণে বাস্তবায়ন হচ্ছেনা মর্মে তিনি বলেন, 'অনেকে চান না চুক্তি বাস্তবায়ন হোক, সেটা উচ্চকর্মকর্তা হোক বা সামরিক হোক। এজন্য চুক্তি আজ বাস্তবায়ন হচ্ছেনা। তিনি দিপংকর তালুকদারকে সমালোচনা করে বলেন, এরপিছনে দিপংকর সাহেব তাল মিলাই। এজন্য চুক্তি বাস্তবায়ন হচ্ছে না।'

আপনার মন্তব্য

আলোচিত