শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিএনপির ইশতেহারে পাহাড়ি ও সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চাকরি ও শিক্ষাক্ষেত্রে সব সুবিধা

বিএনপির ইশতেহারে পাহাড়ি ও সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চাকরি ও শিক্ষাক্ষেত্রে সব সুবিধা

প্রকাশিত: ২০১৮-১২-১৮ ১৪:২১:২৫

   আপডেট: ২০১৮-১২-১৮ ১৪:৩৭:৩১

অনলাইন ডেস্ক >>

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ঘোষিত বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা করা হয়েছে।

ইশতেহারে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন, বিচার বিভাগ, মত প্রকাশের স্বাধীনতাসহ ১৯ দফা বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

ইশতেহারে গুরুত্বারোপ করা ১৯ দফার অন্যান্য বিষয়গুলোর মধ্যে রয়েছে- ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ, অর্থনীতি, মুক্তিযোদ্ধা, যুব নারী ও শিশু, শিক্ষা ও কর্মসংস্থান, জ্বালানি, তথ্য ও প্রযুক্তি, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, বৈদেশিক ও প্রবাসী কল্যাণ, কৃষি ও শিল্প, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা, প্রতিরক্ষা ও পুলিশ, আবাসন, পেনশন ফান্ড ও রেশনিং ফান্ড প্রতিষ্ঠা, পরিবেশ, পররাষ্ট্র এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়।

মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর গুলশানে হোটেল লেকশোরে ইশতেহার ঘোষণা করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিয়ে ইশতেহারে রয়েছেঃ

>পাহাড়ি ও সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবন, সম্পদ, সম্ভ্রম ও মর্যাদার সুরক্ষা করা হবে।

>অনগ্রসর পাহাড়ি ও সমতলের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চাকরি ও শিক্ষাক্ষেত্রে সব সুবিধা এবং পার্বত্য অঞ্চলের উন্নয়ন কার্যক্রম জোরদার করা হবে।

> দল, মত, জাতি, ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে ক্ষুদ্র-বৃহৎ সকল জাতি গোষ্ঠীর সংবিধান প্রদত্ত সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও ধর্মকর্মের অধিকার এবং জীবন, সম্ভ্রম ও সম্পদের পূর্ণ নিরাপত্তা বিধান করা হবে।এই লক্ষ্যে ধর্মীয় সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে।

এছাড়াও রয়েছেঃ

>বিএনপি নির্বাচনের দিনের গণতন্ত্রকে নিত্যদিনের অনুশীলনে পরিণত করবে।

>সংবিধানের ১১৬ অনুচ্ছেদ সংশোধন করে নিম্ন আদালতে নিয়ন্ত্রণ রাষ্ট্রপতির হাত থেকে সুপ্রিম কোর্টের হাতে ন্যস্ত করা হবে।

>বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪ বাতিল করা হবে।

>দেশের সর্বত্র মুক্তিযোদ্ধাদের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা স্মৃতি রক্ষা করা হবে।

>২৫ বছর বয়স্কদের নিয়ে ইয়ুথ পার্লামেন্ট গঠন করা হবে।

>কর্মসংস্থান না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষিত বেকারদের বেকারভাতা দেয়া হবে।

>রোবোটিক্স তৈরির ক্ষেত্রে গবেষণার জন্য ইনভেস্ট করা হবে।

>প্রতি জেলায় আধুনিক প্রযুক্তি-নির্ভর ক্রীড়া অ্যাকাডেমি স্থাপন করা হবে।

>বিদেশফেরতদের তালিকা করে কল্যাণমুখী নানা প্রকল্প নেয়া হবে। জাতীয় নির্বাচনে তাদের নির্বাচন নিশ্চিত করে অংশগ্রহণের সুযোগ।

>ভ্যাট বিরোধী কোটা সংস্কার এবং নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সকল শিক্ষার্থীদের মামলা প্রত্যাহার করা হবে।

>প্রথম বছর মেধাবীদের ২ লাখ সরকারি চাকরি দেয়া হবে।

>আগামী ৫ বছরে ১ কোটি নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।

>আন্তর্জাতিক নদী আইন অনুযায়ী বাংলাদেশে বহমান আন্তর্জাতিক পানির ন্যয্য হিস্যা আদায় নিয়ে আঞ্চলইক ও পারস্পরিক সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে আলাপ আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। ইত্যাদি।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত