শিরোনাম

  আগামী ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশ   নির্বাচনকালীন ইউএনও-ডিসির স্বাক্ষরে শিক্ষকদের বেতন-ভাতা : শিক্ষা মন্ত্রণালয়   খালেদার মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ   'তিন পার্বত্য জেলায় ৩৮ টি ভোটকেন্দ্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে'   সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন নিশ্চিত করার আহ্বান ইউরোপীয় দেশগুলোর   তরুণ ও নারী ভোটাররাই আওয়ামী লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ারঃ কাদের   গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা   বিশ্বের প্রথম উঁচু ভাস্কর্য 'চীনের স্প্রিং টেম্পল বুদ্ধ'   আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস || আদিবাসীদের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসার অাহ্বান   বনের রাজা সিংহকে নিয়ে রাঙ্গামাটিতে দৌড়াবেন ঊষাতন তালুকদার
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / সাংবাদিকদের ওপর হামলায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত থাকলে বিচার করব : কাদের

সাংবাদিকদের ওপর হামলায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত থাকলে বিচার করব : কাদের

প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-০৬ ২১:৫০:২৫

নিউজ ডেস্ক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায়  ছাত্রলীগের কেউ যদি জড়িত থাকে, আমি তার বিচার করব। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সোমবার (৬ আগস্ট) বিকালে রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা আমাকে তথ্যপ্রমাণ দেন, ছাত্রলীগের কারা হামলা করেছে লিস্ট দেন। আমি অবশ্য এর বিচার করবো।

আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা করেনি। অল্পবয়সী ছেলেমেয়েরা কেউ অস্ত্র নিয়ে রাস্তায় আসেনি। কারণ কোমলমতি শিক্ষার্থীদের রাজনৈতিক কোনো উদ্দেশ্য নাই। এদের আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা করার কোনো এজেন্ডা নেই। এই এজেন্ডা তাদের যারা, তাদের আন্দোলনের ওপর ভর করে এখানে রাজনীতির ডার্টি খেলায় মেতে উঠেছে।

রাজধানীর সায়েন্সল্যাব মোড়ে রোববার হামলার ঘটনায় ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রদলের এক নেতার ছবিসংবলিত একটি পত্রিকায় কাটিং দেখিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমির খসরু মাহমুদের প্রকাশ্য যে আহ্বান, এই আহ্বানটি তারা সিক্রেটলি সারা দেশে পৌঁছে দিয়েছিল। যার ফলে বিএনপি এবং জামায়াতের তরুণ ক্যাডাররা গত কয়েক দিন ধরে ঢাকায় আসে। যেই মুহূর্তে তারা দেখল শিক্ষার্থীদের আন্দোলন জমছে না, তারা ঘরে ফিরে যাচ্ছিল, সেই মুহূর্তে এই দুই দলের তরুণ ক্যাডাররা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সেই শাহবাগ মোড় থেকে সায়েন্সল্যাব মোড় হয়ে আওয়ামী লীগ অফিসের দিকে আসে।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত তাদের নয় বছরের আন্দোলন করতে না পারার ব্যর্থতা ঢাকতে শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনে দলীয় ক্যাডারদের অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে সরকার হঠাও আন্দোলনের নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে।

মন্ত্রিসভার অনুমোদন পাওয়া সড়ক ও পরিবহন আইন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বেপরোয়া যান চালনায় মানুষ হত্যা হলে সর্বোচ্চ ৫ বছর জেলের বিধান এবং হত্যার উদ্দেশ্যে যানবাহন চালানোর ফলে হত্যা হলে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। বেপরোয়া যান চালনায় মানুষ হত্যা হলে ১৯৮৩ সালের আইনে তিন বছর জেল-এর বিধান ছিল, সেটাই স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করে ৫ বছর জেলের বিধান করা হয়েছে। এ আইনে জামিনের কোনো সুযোগ নেই।

মন্ত্রী বলেন, হত্যার উদ্দেশ্যে যানবাহন চালালে এবং তা প্রমাণ হলে তা ৩০২ ধারায় চলে যাবে এবং তাতে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। প্রসঙ্গত ১৯৮৩ সালের সড়ক নিরাপত্তা আইনে বেপরোয়া যান চালনায় হত্যা হলে সর্বোচ্চ তিন বছরের জেলের বিধান ছিল।

রমিজ উদ্দিন কলেজের ছাত্র দুর্ঘটনায় দুজন মারা যাওয়ার বিষয়ে কাদের বলেন গাড়ির মালিক, ড্রাইভার, হেলপার গ্রেফতার হয়েছে, রিমান্ডে নেয়া হয়েছে এবং যদি প্রমাণিত হয় তারা হত্যার উদ্দেশ্যে গাড়ি চালিয়েছে তাহলে ৩০২ ধারায় বিচার করার সুযোগ আছে বলেও জানান তিনি।।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত