শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / `তারেক রহমান যুক্তরাজ্যের নাগরিক প্রমাণিত’

`তারেক রহমান যুক্তরাজ্যের নাগরিক প্রমাণিত’

প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২৪ ২১:৫৮:৪০

নিউজ ডেস্ক

‘কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে সাপ বের হয়েছে। তারেক রহমান ব্রিটিশ নাগরিক হিসেবে সে দেশে কোম্পানি খুলে তার পরিচালক হয়েছেন। বাংলাদেশ সরকার প্রমাণ করে দিয়েছে, তারেক রহমান বিদেশে নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যে যুক্তরাজ্যের নাগরিক তা প্রমাণিত।’ 

কথাগুলো পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের। তিনি আরও বলেন, ‘লন্ডন সফরকালে আমি বলেছিলাম তারেক রহমান বাংলাদেশের নাগরিকত্ব সারেন্ডার করেছেন। আমাকে চ্যালেঞ্জ করে বিএনপি তথ্য প্রমাণ চেয়েছিল। আমার ইচ্ছা ছিল না কিন্তু বাধ্য হয়েছিলাম তাদের সেই চ্যালেঞ্জ গ্রহণে। উকিল নোটিশ দিয়ে আমাকে বলা হয়েছে, আমি যদি প্রমাণ দিতে না পারি তাহলে আমার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই উকিল নোটিশের দেড় মাস অতিক্রম হয়েছে। তাদের সেই সৎ সাহস নেই।’

জানা গেছে, সম্প্রতি একটি ব্রিটিশ কোম্পানির ডিরেক্টর হিসেবে তারেক রহমানের নাম উল্লেখ রয়েছে, সেখানে তার নাগরিকত্বের উল্লেখ করা হয়েছে ‘ব্রিটিশ’। যদিও চার মাস পরে তা তুলে বদল করে বাংলাদেশি’ উল্লেখ করা হয়েছে। এটি উইকিলিকসসহ আরও বেশ কয়েকটি তদন্ত সংস্থা প্রকাশ করেছে। কোম্পানি হাউসের ওয়েবসাইটে হোয়াইট অ্যান্ড ব্লু কনসালট্যান্ট লিমিটেড (ব্রিটিশ কোম্পানি রেজিস্ট্রেশন নম্বর-০৯৬৬৫৭৫০) নামের একটি নতুন কোম্পানির ডিরেক্টর হিসেবে তারেক রহমান নিযুক্ত হোন ২০১৫ সালের জুলাই মাসে।

কোম্পানি হাউসের তথ্যানুযায়ী তারেক রহমানের নাগরিকত্ব বলা হয়েছে বাংলাদেশি। তবে কোম্পানি হাউসের শেয়ারসহ অন্য তথ্যের জায়গায় উল্লেখ করা হয়েছে তিনি ব্রিটিশ নাগরিক।

কোম্পানিটি চ্যারিটি ইন করপোরেট হিসেবে নিবন্ধিত। কোম্পানির ১০০ শেয়ারের ৫০ শতাংশ তারেক রহমানের নামে আছে বাকি ৫০ শতাংশের মালিক তাঁর স্ত্রী জোবায়দা রহমানের নামে। গত ২১ এপ্রিলের তথ্যানুযায়ী, কোম্পানিটি মাইক্রো কোম্পানি হিসেবে ১ আগস্ট ২০১৬ থেকে ৩১ জুলাই ২০১৭ সময়ের ব্যবসা সংক্রান্ত প্রথম রিটার্ন জমা দেয়। এতে কোম্পানির সম্পদ দেখানো হয়েছে ১২০৭ পাউন্ড যা বর্তমান দরে বাংলাদেশি ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। এই অল্প সময়ে কোম্পানিটির আয় দেখানো হয়েছে ১০ হাজার ৮১০ পাউন্ড যা বাংলাদেশি টাকায় ১২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এই কোম্পানির ঠিকানাটিও তারেক রহমানের বাসভবনের বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত