শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন

বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন

প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-০৬ ১০:২৩:৩৭

ঢাকা

বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড, মাদক ব্যবসায়ীদের বিচারের আওতায় এনে শাস্তি এবং ক্রসফায়ার প্রতিরোধের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন।মঙ্গলবার বিকালে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে তারা এ বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজনের সঞ্চালনায় এবং সভাপতি গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামিনা লুৎফা, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোশাইদা সুলতানা ঋতু, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি বাকি বিল্লাহ, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি সৈকত মল্লিক, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের সভাপতি নিরুপা চাকমা, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান রিচার্ড, ছাত্র ফেডারেশনের ঢাবি শাখার সভাপতি উম্মে হাবিবা বেনজির, সাধারণ সম্পাদক তাহসীন মাহমুদ প্রমুখ।

সমাবেশে সামিনা লুৎফা বলেন, ক্রসফায়ার কোনো বিচারিক প্রক্রিয়ায় ঘটেনা। ‘ক্রসফায়ার’ বলতে যা বোঝানো হয়, তা এদেশে ঘটেনা। এদেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ইচ্ছামতো তালিকা তৈরি করে মানুষকে হত্যা করছে। ক্রসফায়ারে নির্দোষ মানুষও নিহত হচ্ছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই এ ধরণের বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড চলে আসছে। কিন্তু গত দুই দশক ধরে ক্রসফায়ারে হত্যার কথা বেশি শোনা যাচ্ছে। এর বিরুদ্ধে শুধু আওয়াজ তুললেই হবে না , আইনিভাবেও এটিকে বন্ধ করতে হবে।

মোশাইদা সুলতানা ঋতু বলেন, আমরা অল্প কয়েকদিন ধরে ক্রসফায়ারের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছি। অথচ প্রতিবছর ক্রসফায়ারে অসংখ্য মানুষ মারা যায়। একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই এই বিষয়টি এ পর্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে। বিচার বহির্ভূত হত্যার দায় বিচার ব্যবস্থার। তাদের ব্যর্থতার কারণেই এ ধরণের হত্যাকান্ড সংগঠিত হচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে গোলাম মোস্তফা বলেন, বাংলাদেশের জনগণ বর্তমান সরকারকে বিচার বহির্ভূত হত্যার লাইসেন্স দেয়নি। বিচার ছাড়াই যদি হত্যা করা হয়, তাহলে বিচার বিভাগের দরকার কি? আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাজ জনগণের নিরাপত্তা দেয়া। কিন্তু এখন মানুষ তাদের দেখলে ভয় পায়। তারা মনে করেন এই বুঝি তাদের মাদক মামলায় দিয়ে হয়রানি করবে পুলিশ বা র‌্যাব। অথচ জনগণের টাকা থেকেই তারা বেতন পায়।

তিনি বলেন, সরকারের লোকই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। অথচ তাদের শাস্তি না দিয়ে প্রান্তিক পর্যায়ের লোককে হত্যা কর হচ্ছে। একজন মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসলে সেটা বিচার করে, অভিযুক্তকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিয়ে, অভিযোগ প্রমাণ করে তারপরে তাকে শাস্তি দেয়া উচিত। সরকার বিনা বিচারে তাদের হত্যা করছে। অথচ বিরোধী দলগুলো এর প্রতিবাদ করছেনা। এ ধরণের হত্যাকান্ড অবৈধ।

তিনি আরো বলেন, মাদকবিরোধী অভিযানে মাদক ব্যবসা বন্ধ হবেনা । বরং এর মাধ্যমে মাদক ব্যবসার সিন্ডিকেট শক্তিশালী হবে। অভিযান বন্ধ হলেই তারা আবার সক্রিয় হবে। মাদকবিরোধী অভিযান আমরাও চাই কিন্তু এভাবে বিনা বিচারে মানুষ হত্যা করে নয়। সরকার এ হত্যার বিচার না করলেও জনগণের আদলতে এর বিচার হবে।

এসময় তারা বিভিন্ন ধরণের প্ল্যাকাড প্রদর্শন করেন। তাতে লেখা ছিল : ‘বাড়ছে যত স্বৈরাচার, বাড়ছে তত ক্রসফায়ার’, ‘ক্রসফায়ার একটি মারাত্মক অপরাধ, ক্রসফায়ার অপরাধ নির্মূলের কোনো পন্থা নয় ’, ‘মানুষ মারার সরকার নয়, মানুষ বাঁচানোর সরকার চাই ’, ‘বিনাবিচারে রাষ্ট্রীয় হত্যাযজ্ঞ বন্ধ কর’, ‘ক্রসফায়ার রুখে দাঁড়াও’ ইত্যাদি।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত