শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / রাজনীতি / সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব পৃথিবীকে বদলে দিয়েছে : রাশেদ খান মেনন

সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব পৃথিবীকে বদলে দিয়েছে : রাশেদ খান মেনন

প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১১ ২৩:৫২:৫৬

   আপডেট: ২০১৭-১১-১২ ০০:০১:২৮

নিউজ ডেস্ক

অক্টোবর বিপ্লবের শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানের সমাপনী সমাবেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব পৃথিবীকে বদলে দিয়েছে এবং এই পৃথিবীর সভ্যতাকে বাঁচিয়েছে। এই বিপ্লবের ফলেই পরাধীন দেশ ও জাতিগুলো মুক্তির পথ দেখেছিল।

আমাদের বাংলাদেশের মানুষের মানষ গঠন হয়েছিল অক্টোবর বিপ্লবের কারণে। যার জন্য ১৯৬৯ সালে গ্রামের কৃষক শ্রমজীবি মানুষ শ্লোগান তুলেছিল ‘শ্রমিক কৃষক অস্ত্র ধরো বাংলাদেশ স্বাধীন করো’। আর তার মধ্যদিয়ে এ দেশে সূচিত হয়েছিল মুক্তিযুদ্ধের নতুন পথ চলা।

শনিবার বিকেল ৩টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পাটির উদ্যেগে ‘পুঁজিবাদ-নয় সমাজতন্ত্রই মানবমুক্তির পথ’ স্লোগান নিয়ে অক্টোবর বিপ্লবের শতবর্ষ পালনের সমাপনী সমাবেশ আয়োজনে করা হয়। এ ছাড়াও ঘোষণা পাঠ ও সবশেষে ‌র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে মেনন বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি চরমে! নিত্যপণ্যের দাম বাড়লেও শ্রমজীবী মানুষের কথা কেউ ভাবছে না। আমার শ্রমিক মজুরি কমিশন পায় না, ঠিক মতো বেতন পায় না। পে-স্কেলও হয় না। অনেকের পে-স্কেল বাড়লেও আমার কৃষক শ্রমিক ভাইদের কোনো পে-স্কেল হয় না।তাই তাদের জীবন পরিচলানাই কষ্টসাধ্য। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে অর্থনৈতিক উন্নয়ন হচ্ছে কিন্তু এই উন্নয়ন কার জন্য?

এ সময় তিনি আরো বলেন, 'সমাজতন্ত্র অলীক কল্পনা নয়, এটা বাস্তব। রুশ বিপ্লবের মধ্য দিয়ে এটি বাস্তবে প্রয়োগ হয়েছিল। আমাদের সংবিধানে আমরা সমাজতন্ত্রকে মূলনীতি হিসেবে গ্রহণ করেছি, সুতারাং তার বাস্তবায়ন সাংবিধানিক দায়িত্ব। এটা দুঃখজনক যে, দেশের অর্থনীতি নয়া উদারনীতি দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। এর ফলে তার নিয়ন্ত্রণ চলে গেছে লুটেরা পুজিপতিদের হাতে। সৃষ্টি হচ্ছে আয় বৈষম্য। গ্রাম-শহরের মধ্যে বৈষম্যের বিপরীতে সমাজতান্ত্রিক আদর্শনীতি গ্রহণ করা না হলে উন্নয়নের সুফল জনগণ পাবে না। '

অনুষ্ঠানে ঘোষণা পাঠ করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা, এমপি। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন পলিটব্যুরো কমরেড নুর আহমদ বকুল। সভায় পলিটব্যুরো, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশ শেষে উপস্থিত কয়েক হাজার নেতাকর্মী কাস্তে হাতুড়ি খচিত লাল পতাকা হাতে নিয়ে ‌র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় শহীদ মিনার থেকে শুরু করে দোয়েল চত্তর হয়ে হাইকোর্ট মাজার রোড দিয়ে কদম ফোয়ারা হয়ে, পল্টন মোড় ঘুরে প্রেস ক্লাবের সামনে গিয়ে র‌্যালিটি শেষ হয়। এর আগে সমাবেশের শুরুতে উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর ও তার দল, গণশিল্পী সংস্থা ও কেন্দ্রীয় খেলাঘরের শিল্পীরা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত