শিরোনাম

  ভুটানকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা   খাগড়াছড়িতে সেটেলার কর্তৃক পাহাড়ী নারীকে ধর্ষণ চেষ্ঠা   গুলো-গুলি || আলোময় চাকমা   বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা   মহালছড়িতে আবার ৩ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা   আজ খালেদা জিয়ার জন্মদিন!   বাঙালির শোকের দিন আজ   বঙ্গবন্ধুর শোক দিবসে ২১০টি গরু জবাই দিয়ে কাঙালি ভোজ আয়োজন !   পিসিপি ২৬ তম কাউন্সিল ও ছাত্র সম্মেলন সম্পন্ন , নিপন ত্রিপুরাকে সভাপতি ও অমর শান্তি চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক   পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন : অর্থনৈতিক না রাজনৈতিক সমস্যা ?   খাগড়াছড়িতে ৪ গ্রামবাসীকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে   শান্তি চুক্তির পর পাহাড়ে যে উন্নয়ন হয়েছে তা টেলিটক থেকে মেসেজ করে আমরা পৌঁছে দেব : তারানা হালিম   এবার বিশ্বের মধ্যে খারাপ শহরের তালিকায় ২য় স্থানের নাম লিখেছে ঢাকা , বাংলাদেশ   জিয়াউর রহমানই পাহাড়ে সমতল থেকে মানুষ নিয়ে অশান্তির বীজ বপন করেছিল   সরকারি চাকরিজীবীরা বেতন-বোনাস পাচ্ছেন বৃহস্পতিবার   নেপালকে ৩-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে মারিয়া মান্দার দল বাংলাদেশ   দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই   শহিদুলের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন নোবেলজয়ী স্টিগলিজসহ ১৩ বরেণ্য ব্যক্তিত্ব   খাগড়াছড়িতে ৪ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা   রিমান্ড শেষে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন অভিনেত্রী নওশাবা
প্রচ্ছদ / জাতীয় / পাহাড়ে জুম চাষ করার ফলে মাটি নরম হয়ে পাহাড় ধস হচ্ছে : পরিবেশমন্ত্রী

পাহাড়ে জুম চাষ করার ফলে মাটি নরম হয়ে পাহাড় ধস হচ্ছে : পরিবেশমন্ত্রী

প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২৫ ১১:৩৯:৫০

   আপডেট: ২০১৮-০৭-২৫ ১২:৪৫:৫০

অনলাইন ডেস্ক

পরিবেশমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, কেউ বন সাফ করে জুম চাষ করছে, কেউ বন কেটে উজাড় করে ফেলছে, বনখেকোরা মাটি ও গাছ কাটছে এতে মাটি নরম হয়ে পাহাড় ধসে পড়েছে। তিনি বলেন, পাহাড়ের ওপরে মাটি আঁকড়ে রাখার গাছের শিকড় না থাকায় মাটি নরম হয়ে তা ধসে পড়ছে।

বৃষ্টির মৌসুমে পাহাড় ধস হবেই, তবে আমাদের সাবধান থাকতে হবে। পাহাড় ধস রোধে গাছ লাগানো এবং বনের জমি ইজারা না দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, ‘জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে বন ও নদী দখল এবং দূষণ রোধের বিভিন্ন উপায় নিয়ে আলোচনা করেছি। কক্সবাজারের রোহিঙ্গারা ৫ হাজার একর জমির গাছগাছালি উজাড় করে ফেলেছে। যেহেতু মানবিক কারণে তাদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে সেহেতু এই ক্ষতি আমাদের মানতেই হবে।’

পরিবেশমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বেশিরভাগ গাছ রোহিঙ্গারা ব্যবহার করেছে জ্বালানির কাজে। রোহিঙ্গাদের জ্বালানির কাজে ব্যবহারের জন্য আমরা গ্যাস সিলিন্ডার দেওয়ার কথা ভেবেছিলাম, কিন্তু দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে  এই চিন্তা থেকে আপাতত তা বাদ দিয়ে কয়লা দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।’

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘জমি, পাহাড় ও বন দখল একটি নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। একদিকে তাদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে, অপরদিক থেকে আবার তারা দখল করছে। এজন্য আলাদা একটি চক্রই রয়েছে।  আশা করছি এভাবে উচ্ছেদ করতে করতে একসময় সচেতনতা বাড়বে এবং এসব দখল কালচার বন্ধ হবে।’

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আরো বলেছেন, পাহাড় কাটা, বনের জমি লিজ নেয়া, বনভূমির অবৈধ দখল, নদী দখল, নদী দূষণ নিয়ে ডিসিদের সঙ্গে আলোচনা করছি। তারা কীভাবে এগুলোর সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারে সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

ডিসিরা কোনো সমস্যার কথা বলেছেন কিনা? - জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বলেছেন, যেমন কক্সবাজারের কথা বলেছেন, যেখানে বনের যথেষ্ট ক্ষতি হয়েছে। বনের প্রায় ৫ হাজার একরের মতো জমির ক্ষতি হয়েছে। সেটা আবার পুনরায় বনায়ন করার ব্যাপারে আমরা কী পদক্ষেপ নিচ্ছি, সেগুলো নিয়ে কথা হয়েছে।’

বুধবার (২৪ জুলাই) সচিবালয়ের মন্ত্রিসভার সভাকক্ষে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের প্রথম অধিবেশনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।  এতে সভাপতিত্ব করেছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব শফিউল আলম।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত