শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / জাতীয় / প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জাতিসংঘ মহাসচিব-বিশ্বব্যাংক প্রধানের বৈঠক

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জাতিসংঘ মহাসচিব-বিশ্বব্যাংক প্রধানের বৈঠক

প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-০১ ১৬:৫১:২৭

ইউএনবি, ঢাকা

রোহিঙ্গা ইস্যুর যৌক্তিক সমাধানে মিয়ানমারের ওপর আরো বল প্রয়োগের কথা বলেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেস।

তিনি বলেন, তাদের (মিয়ানমার) ওপর আরো বল প্রয়োগ করতে হবে, যাতে তারা রোহিঙ্গা ইস্যুতে কি করতে হবে তা বুঝতে পারে।

রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎকালে জাতিসংঘ মহাসচিব এ মন্তব্য করেন। এসময় বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান।

তিনি জানান, বৈঠককালে জাতিসংঘ এবং বিশ্বব্যাংক রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থেকে সহায়তা অব্যাহত রাখার কথা দিয়েছে।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি অন্য দেশগুলোর সংহতির বিষয়টি জাতিসংঘ মহাসিচব পুনারাবৃত্তি করেন। তিনি রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দানের জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

এসময় তিনি রোহিঙ্গাদের সহায়তায় বিশ্বব্যাংককে এগিয়ে আসার জন্যও ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রী এসময় জাতিসংঘ মহাসচিবকে রোহিঙ্গাদের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে অবহিত করেন। পাশাপাশি ১৯৭৭ সাল থেকে রোহিঙ্গারা এদেশে প্রবেশ করছে বলে জানান।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত ১.১ মিলিয়ন রোহিঙ্গা সদস্যকে আশ্রয় দিয়েছে। মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়া এই বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে স্বাস্থ্য সেবা সহ বিভিন্ন মানবিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, সরকার ইতিমধ্যে একটি দ্বীপকে এক লাখ রোহিঙ্গার জন্য বাস উপযোগী করে তুলছে। সেখানে স্থানান্তর করা হলে রোহিঙ্গারা আরো ভালো থাকবে।

১০ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সদস্যকে আশ্রয়দানের কারণে স্থানীয় জনগোষ্ঠি যে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছে সে বিষয়টিও প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ মহাসচিবকে অবহিত করেন।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির সম্মানজনক ও যৌক্তিক প্রত্যাবাসনের জন্য বাংলাদেশের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর হলেও মিয়ানমারের পক্ষ থেকে এখনো বাস্তবিক কোনো পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়নি।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত