আজ শুক্রবার, | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  সন্তুু লারমার কুশপুত্তলিকা দাহ করার প্রতিবাদে ও স্বেচ্ছায় বাঘাইছড়িতে আ. লীগের অর্ধশত পাহাড়ী নেতা-কর্মীর পদত্যাগ   পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তিতে যেসব বিষয় অবাস্তবায়িত রয়ে গেছে   অনাদী রঞ্জন চাকমা হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি   রাংগামাটি বাঘাইছড়ি পৌরসভা ও ইউনিয়নে স্বেচ্ছায় আরো ২১ জন পাহাড়ি আ. লীগ নেতার পদত্যাগ   এবার আয়ারল্যান্ড থেকে সু চির \'ফ্রিডম অব ডাবলিন সিটি’ পুরস্কার প্রত্যাহার   শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য ১৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিবে যুক্তরাষ্ট্র   ২০ হাজার ভিক্ষু নিয়ে মান্দালয়ে অনুষ্ঠিত হবে থাইল্যান্ড এবং মিয়ানমারের মহাদান অনুষ্ঠান   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিক আটক, দোষী সাব্যস্ত হলে ১৪ বছর কারাদন্ড হতে পারে   ত্রিপুরা রাজ্যে মায়েদের সন্তান পালনের জন্য ছুটি দুই বছর   প্যারিসে শীর্ষক গণশুনানি ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ   আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ কনফেডারেশন মহাসচিব হিসেবে নির্বাচিত হলেন ত্রিপুরা বৌদ্ধ ভিক্ষু   জালালাবাদ এসোসিয়েশন অফ টরোন্টোর ট্রাস্টী এবং উপদেষ্টামণ্ডলীর পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত   ত্রাণের উপর ঘুমাচ্ছে রোহিঙ্গারা , শীতে কেমন আসে লংগদুর পাহাড়িরা?   পার্বত্য এলাকায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষার প্রাথমিক দায়িত্ব আঞ্চলিক ও জেলা পরিষদের ওপর ন্যস্ত করার সুপারিশ   হামলার অভিযোগে আটককৃত ব্যক্তিরা রাঙ্গাপানি ও ভেদভেদী এলাকার অটোরিক্সা চালক, ছাত্র ও দিনমজুর   তিব্বতীয় মুসলমানরা দালাই লামাকে এখনো নেতা হিসেবে মনে করে   রাঙ্গামাটিতে ৬৯ গ্রামবাসী ও জেএসএস সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, নিরীহ ১৯ জনকে গ্রেফতার, ১২ জনকে হয়রানির অভিযোগ   নিউইয়র্কে হামলাকারী সন্দেহভাজন ব্যক্তি চট্টগ্রাম থেকে, পরিবার আতঙ্কিত   বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চ ভাষণের বিশ্ব স্বীকৃতিতে কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের আনন্দ শোভাযাত্রা

ত্রিপিটকের বাংলা অনুবাদ হলো ৫৯ খণ্ডে

প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৫ ১৩:৪৭:৪০

নিউজ ডেস্ক

পালি ভাষায় রচিত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মুখ্য ধর্মীয় গ্রন্থ ত্রিপিটকের বাংলা অনুবাদের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ১৮৮৭ সালে পণ্ডিত ধর্মরাজ বড়ুয়ার সুত্তনিপাতের মাধ্যমে পালি থেকে বাংলা অনুবাদের কাজ শুরু হয়ে ২০১৬ সালে উজ্জ্বল বড়ুয়া বাসু কর্তৃক সর্বশেষ কথাবত্থুর মাধ্যমে ৫৯ খণ্ডে প্রথমবারের মতো প্রিন্ট ভার্সনে এর অনুবাদ কাজ শেষ হয়েছে।

ষষ্ঠ সংগীতির শ্রেণিবিন্যাস অনুসারে পূর্ণাঙ্গ ত্রিপিটককে দেশে ‘বড়ুয়া বৌদ্ধ’রা প্রথমবারের মতো বোধিদর্পণ প্রকাশনীর মাধ্যমে ৫৯ খণ্ডে আলাদা আলাদা খণ্ডে প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে।
 
পূর্ণাঙ্গ ত্রিপিটক প্রকাশনা ও বিতরণ অনুষ্ঠান উদপাপন কমিটির উদ্যোগে ৮ ডিসেম্বর নগরীর চান্দগাঁও সর্বজনীন বৌদ্ধবিহারে অনূদিত এসব বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করবেন বৌদ্ধদের সর্ব্বোচ্চ ধর্মীয়গুরু সংঘরাজ ধর্মসেন মহাথের।
 
কমিটির মহাসচিব উজ্জ্বল বড়ুয়া বাসু বলেন, ‘আড়াই হাজার বছরেরও আগে মহামানব গৌতম বুদ্ধ তৎকালীন পালি ভাষাতেই ধর্মপ্রচার করেছিলেন। গৌতম বুদ্ধ ৪৫ বছর ধরে যে ধর্মপ্রচার করেছিলেন তা সংগৃহীত হয় পবিত্র গ্রন্থ ত্রিপিটকে। সময়ের প্রয়োজনে বৌদ্ধরা পালি ভাষায় রচিত ত্রিপিটক গ্রন্থটিকে বাংলা অনুবাদের উদ্যোগ নেন। যেটির স্বপ্নদ্রষ্টা ছিলেন অগ্রমহাপণ্ডিত প্রজ্ঞালোক মহাথেরো।’
 
‘প্রজ্ঞালোক মহাথের পূর্ণাঙ্গ ত্রিপিটক বাংলায় অনুবাদের জন্য ১৯২৮ সালের ১২ আগস্ট রেঙ্গুনে ১৫ সদস্যের ‘বৌদ্ধ মিশন প্রেস’ গঠন করেন। এই প্রেস থেকে তৎকালীন সময়ে বেশ কিছু বই প্রকাশিত হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে ১৯৪২ সালের ২২ ডিসেম্বর বোমার আঘাতে এই প্রেসের ব্যাপক ক্ষতিসাধন হয়। বিশেষ করে প্রেসের যন্ত্রপাতি, মুদ্রিত বই, পাণ্ডুলিপির ক্ষতি হয় বেশি। ‘বৌদ্ধ মিশন প্রেস’ প্রতিষ্ঠার পরবর্তী সময়ে আরও কিছু সংস্থার খবর জানা যায়, যেসব সংস্থা ত্রিপিটক প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছিল যেমন : ‘যোগেন্দ্র-রূপসীবালা ট্রাস্ট’, ‘শ্রী ত্রিপিটক প্রকাশনী প্রেস’, ‘ত্রিপিটক প্রচার বোর্ড’, ‘পালি বুক সোসাইটি’, ‘ধর্মাধার বৌদ্ধ গ্রন্থ প্রকাশনী’, ‘মহাবোধি বুক এজেন্সী’সহ আরও অনেক। এ সময়ে খণ্ড খণ্ড ভাবে অনেকেই ত্রিপিটক অনুবাদ করেন। তারপরেও বেশ কিছু খণ্ড অননূদিত থেকে যায়।’
 
‘পরবর্তীতে পরমপূজ্য সাধনানন্দ মহাস্থবির বনভান্তের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং প্রজ্ঞাবংশ মহাথেরোর মেধা ও প্রচেষ্টায় ত্রিপিটকের অননূদিত বইগুলো অনুবাদ ও প্রকাশিত হতে ত্রিপিটকের বাংলা অনুবাদ হলো ৫৯ খণ্ডে থাকে।

অতঃপর ২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর ত্রিপিটকের অনুবাদ হয়নি এরকম সর্বশেষ গ্রন্থ কথাবত্থু অনুবাদের মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো প্রিন্ট ভার্সনে প্রকাশনার কাজ শেষ হয়। বোধিদর্পণ প্রকাশনীর মাধ্যমে ৫৯ খণ্ডে প্রকাশিত ত্রিপিটক বিতরণের প্রথম পর্বের অনুষ্ঠান ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।’

এসব বই প্রকাশনার ক্ষেত্রে কোটি টাকার বেশি খরচ হয়েছে বলেও জানান তিনি।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার সভাপতি অজিতানন্দ মহাথেরোর সভাপতিত্বে সভায় আরও থাকবেন বৌদ্ধদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চগুরু উপসংঘরাজ ড. জ্ঞানশ্রী মহাথের, শীলানন্দ মহাথের, সত্যপ্রিয় মহাথের, ধর্মপ্রিয় মহাথের ও সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার মহাসচিব এস লোকজিৎ থের।

সূত্রঃ বাংলা নিউজ ২৪।

আপনার মন্তব্য

এ বিভাগের আরো খবর




আলোচিত