শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / জাতীয় / শান্তি চুক্তির মৌলিক ধারাগুলো এখনো বাস্তবায়ন হয়নি : বাঞ্চিতা চাকমা

শান্তি চুক্তির মৌলিক ধারাগুলো এখনো বাস্তবায়ন হয়নি : বাঞ্চিতা চাকমা

প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৩ ১৮:২২:৫৩

   আপডেট: ২০১৭-১২-০৩ ২৩:৩৫:২০

অনলাইন ডেস্ক

রাঙামাটি সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও জাতীয় মানবধিকার কমিশনের সদস্য বাঞ্চিতা চাকমা বলেছেন শান্তি চুক্তির মৌলিক ধারা তথা মুখ্য বিষয়গুলো এখনো বাস্তবায়ন হয়নি। শনিবার রাতে আরটিভির সৌজন্য ' আওয়ার ডেমোক্রেসি' টকশোতে এসব মন্তব্য করেন।

তিনি বলেছেন শান্তিচুক্তির মোতাবেক যদি প্রধান ধারাগুলো বাস্তবায়ত হতো তাহলে হয়ত চুক্তির সমস্যা অনেকটা নিরসন পেত। কিন্তু দীর্ঘ ২০ টি বছরেও তা পুরোপুরি বাস্তবায়ন হয়নি বলে তিনি মনে করেন।

ভূমি সমস্যার ব্যাপারে তিনি বলেন, ভূমি সংস্কার কমিশন হয়েছে কিন্তু তার সাথে সংশ্লিষ্ট কার্যধারাগুলো আইন, অফিস, জনবল এগুলো এখনো হয়ে উঠেনি।

তিনি আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে ১৯৫১ সালে আদিবাসী জনসংখ্যা ছিল ৯১% এবং বাঙালি ছিল ৯% , ১৯৭৪ সালে বাঙালি বেড়ে ২৬% ১৯৮১ সালে ৪১% এবং ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী 'ষোল লক্ষ্য ৬৩ হাজার দুইশ চোদ্দ জন'। তারমধ্যে আদিবাসী ছিল ৮ লক্ষ ৫৬ হাজার পাঁচশ ৪১ জন আর বাঙালি ৮ লক্ষ ৬ হাজার ছয়শ ৭৩ জন। যা বর্তমানে এখন বাঙালি এবং আদিবাসী জনসংখ্যা সেখানে প্রায় সমান সমান হিসেবে দাঁড়িয়েছে।  

এছাড়াও তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলে আদিবাসী জনগণ যুগ যুগ ধরে সেখানে জুম চাষ করে ভূমি গুলো সংরক্ষণ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। সেখানে জনসংখ্যা বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে তিনি উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন সমতল থেকে বাঙ্গালিরা সেখানে গেলে ভূমির সমস্যা সৃষ্টি হয়। আর প্রতিনয়ত সেখানে জনংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে পার্বত্য অঞ্চল আরো জঠিল ইস্যুতে পরিণত হচ্ছে।

জাতীয় মানবধিকার কমিশনের সদস্য বাঞ্চিতা চাকমা মনে করেন শান্তি চুক্তি মোতাবেক যদি প্রধান ধারাগুলো অনুযায়ী ভূমির সমস্যা সমাধান করা যেত তাহলে অনেকটা জঠিলতা হ্রাস পেত।

পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২০ বছর: সংকট ও করণীয় টকশোতে মামুনুর রহমান খানের সঞ্চালনায় আরো স্টুডিওতে উপস্থিত ছিলেন,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য বাঞ্ছিতা চাকমা, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. তোফায়েল আহমেদ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. মেসবাহ কামাল।

এদিকে, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি ও আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় (সন্তু) লারমা বলেছেন, দুই দশকেও পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন হয় নি। পার্বত্য চট্টগ্রামে এখন ঔপনিবেশিক শাসন ব্যবস্থা চলছে। সংবিধান থেকে আমাদের মুছে দেওয়া হয়েছে। আমাদের অস্তিত্বহীন করে ফেলা হয়েছে। পাহাড়ি জনগণ এখন কোথায় যাবে? কোথায় আশ্রয় নেবে? ইত্যাদি মন্তব্য করেছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বিষয়ে বলেছেন, পার্বত্য শান্তিচুক্তির অধিকাংশ শর্ত বাস্তবায়িত হয়েছে এবং যে সব শর্ত এখনও বাকি আছে সেগুলোও অতিশীঘ্রই বাস্তবায়িত হবে। তিনি আশা করেন , সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে জাতির পিতার সুখী-সমৃদ্ধ, শান্তিপূর্ণ স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সক্ষম হওয়া যাবে।

আপনার মন্তব্য

এ বিভাগের আরো খবর



আলোচিত