আজ শুক্রবার, | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  সন্তুু লারমার কুশপুত্তলিকা দাহ করার প্রতিবাদে ও স্বেচ্ছায় বাঘাইছড়িতে আ. লীগের অর্ধশত পাহাড়ী নেতা-কর্মীর পদত্যাগ   পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তিতে যেসব বিষয় অবাস্তবায়িত রয়ে গেছে   অনাদী রঞ্জন চাকমা হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি   রাংগামাটি বাঘাইছড়ি পৌরসভা ও ইউনিয়নে স্বেচ্ছায় আরো ২১ জন পাহাড়ি আ. লীগ নেতার পদত্যাগ   এবার আয়ারল্যান্ড থেকে সু চির \'ফ্রিডম অব ডাবলিন সিটি’ পুরস্কার প্রত্যাহার   শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য ১৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার অনুদান দিবে যুক্তরাষ্ট্র   ২০ হাজার ভিক্ষু নিয়ে মান্দালয়ে অনুষ্ঠিত হবে থাইল্যান্ড এবং মিয়ানমারের মহাদান অনুষ্ঠান   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিক আটক, দোষী সাব্যস্ত হলে ১৪ বছর কারাদন্ড হতে পারে   ত্রিপুরা রাজ্যে মায়েদের সন্তান পালনের জন্য ছুটি দুই বছর   প্যারিসে শীর্ষক গণশুনানি ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ   আন্তর্জাতিক বৌদ্ধ কনফেডারেশন মহাসচিব হিসেবে নির্বাচিত হলেন ত্রিপুরা বৌদ্ধ ভিক্ষু   জালালাবাদ এসোসিয়েশন অফ টরোন্টোর ট্রাস্টী এবং উপদেষ্টামণ্ডলীর পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত   ত্রাণের উপর ঘুমাচ্ছে রোহিঙ্গারা , শীতে কেমন আসে লংগদুর পাহাড়িরা?   পার্বত্য এলাকায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষার প্রাথমিক দায়িত্ব আঞ্চলিক ও জেলা পরিষদের ওপর ন্যস্ত করার সুপারিশ   হামলার অভিযোগে আটককৃত ব্যক্তিরা রাঙ্গাপানি ও ভেদভেদী এলাকার অটোরিক্সা চালক, ছাত্র ও দিনমজুর   তিব্বতীয় মুসলমানরা দালাই লামাকে এখনো নেতা হিসেবে মনে করে   রাঙ্গামাটিতে ৬৯ গ্রামবাসী ও জেএসএস সদস্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, নিরীহ ১৯ জনকে গ্রেফতার, ১২ জনকে হয়রানির অভিযোগ   নিউইয়র্কে হামলাকারী সন্দেহভাজন ব্যক্তি চট্টগ্রাম থেকে, পরিবার আতঙ্কিত   বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চ ভাষণের বিশ্ব স্বীকৃতিতে কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের আনন্দ শোভাযাত্রা

রাংগামাটি রাজবন বিহারে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ

প্রকাশিত: ২০১৭-০৮-০৫ ১১:৩৯:০৪

   আপডেট: ২০১৭-০৮-০৫ ১৬:২৯:৪৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটি

রাংগামাটি রাজবন বিহার আশেপাশে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ বহুদিন ধরে উঠেছে। সাম্প্রতিক সময়েও এইসব ধর্মীয় তীর্থ ভূমিতে উৎশৃংখলভাবে পরিবেশ সৃষ্টিসহ বিহারের নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করে অনেকে বিহারের আশেপাশে উচ্চস্বরে হৈচৈ করছে। বিকাল ঘনিয়ে এলে বাড়ে পর্যটকের আনাঘোনা সহ আশেপাশে জড়ো হওয়া।

বিহারের স্বর্গঘরস্থ আশেপাশে পর্যটন কেন্দ্র সদৃশ তুলনা করে তাদের নিজস্ব নানারকম আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলা, ভিডিও করা, ঘোরাঘুরি, চিৎকার, উচ্চ শব্দ-মহাশব্দ, হৈচৈ,যেখানে সেখানে সিগারেট খাওয়া,টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ করা,বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের আড্ডা ইত্যাদি আচরনের পরিপ্রেক্ষিতে বিহারের স্থিতিশীল ও শান্ত পরিবেশকে নষ্ট করা হচ্ছে। যা রাজবন বিহারের ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন,রাজবন বিহারের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সাধারণ পর্যটকদের উপর বিধিনিষেধ উপেক্ষা অনেকে জেনেশুনে ও তা মানছেনা। এতে ধর্মীয় নীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।বিহারের প্রবেশ করতে যেসব নিয়ম-নীতি মেনে চলতে বলা হয়েছে তা অনেকে না মেনে উৎশৃংখল পরিবেশ সৃষ্টি করছে।

অন্যদিকে, দুর দুরান্ত থেকে বিভিন্ন দেশী-বিদেশী আগত পর্যটক ও দর্শণার্থী অকস্মাৎ এসে ধমীর্য় পবিত্রার নীতি না জেনে অজ্ঞাতে তারা এসব কাজ করে ফেলেন। এতে বিহারের পবিত্রতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

বিহারের ভান্তেরা বলছেন,রাজবন বিহার কোন পর্যটন কেন্দ্র নয় ধর্মীয় তীর্থ ভূমি। এখানে প্রবেশ করতে হলে ধর্মীয় পরিবেশ বজায় রেখে সুস্বভাবযুক্ত পরিবেশ বজায় রাখা উচিত।কিন্তু অনেকে তা না করে বিকাল হলে আড্ডা, টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ, আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলাসহ ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করে যাচ্ছে।

এদিকে, বিহারে পবিত্রটা বজায় থাকার জন্য বিভিন্ন পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা সহ কাগজে ছাপানো তথ্য বিহারে দেয়ালে দেয়ালে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।কিন্তু বিহারের সংশ্লিষ্টরা এই বিষয়ে জেনেও অনেকে না জানার ভান করে উৎশৃংখলকারীদের থামাচ্ছেন না বলে নানান সূত্রে অভিযোগ রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

এ বিভাগের আরো খবর




আলোচিত