আজ বুধবার, | ২৩ আগস্ট ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  প্যারিসে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস পালিত   বাংলাদেশ হাই-কমিশন অটোয়ায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচী পালন   বার্লিনে সুন্দরবন রক্ষা এবং বাংলাদেশের বিকল্প জ্বালানী সম্ভাবনা শীর্ষক ইউরোপীয় সম্মেলন   কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে আদিবাসী শিক্ষার্থীরা আদিবাসী দিবস পালন করেছে   সমান অধিকার নিয়ে বেঁচে থাকতে হলে সংগ্রাম চাইঃ সন্তু লারমা   আদিবাসী মানুষরা লড়াই সংগ্রাম করে অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে:ঊষাতন তালুকদার   আজ বিশ্ব আদিবাসী দিবস   রাত পোহালেই আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তির আবেদন শুরু   লংগদুতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১৬ জন সেটেলার বাঙ্গালি কারাগারে   টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ও বাংলাদেশের আদিবাসী নারী   ফ্রান্সের ,প্যারিসে সংঘদান ও অষ্টপরিষ্কার দান অনুষ্ঠিত   বাঙালি নারীদের চেয়ে আদিবাসী নারীরা জাতিগতভাবে অধিক নিপীড়নের শিকারঃসন্তু লারমা   আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের যেসব দাবী রয়েছে   পাহাড়ে ক্ষুধা ও অভাবের হাহাকার অথচ সরকার উন্নয়নের অহংকারে ভাসছেঃ সন্তু লারমা   সংখ্যালঘু নির্যাতনকারীকে মনোনয়ন দিলে ভোট বর্জন:রানা দাশগুপ্ত   আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আগামীকাল ৬ আগস্ট ডেইলি স্টার সেন্টারে আলোচনা সভা   রাংগামাটি রাজবন বিহারে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ   আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আগামীকাল ৫ আগস্ট ঢাকা হোটেল সুন্দরবনে সংবাদ সম্মেলন   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা: ৭ আগস্ট আবেদন শুরু

রাংগামাটি রাজবন বিহারে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ

প্রকাশিত: ২০১৭-০৮-০৫ ১১:৩৯:০৪

   আপডেট: ২০১৭-০৮-০৫ ১৬:২৯:৪৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটি

রাংগামাটি রাজবন বিহার আশেপাশে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ বহুদিন ধরে উঠেছে। সাম্প্রতিক সময়েও এইসব ধর্মীয় তীর্থ ভূমিতে উৎশৃংখলভাবে পরিবেশ সৃষ্টিসহ বিহারের নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করে অনেকে বিহারের আশেপাশে উচ্চস্বরে হৈচৈ করছে। বিকাল ঘনিয়ে এলে বাড়ে পর্যটকের আনাঘোনা সহ আশেপাশে জড়ো হওয়া।

বিহারের স্বর্গঘরস্থ আশেপাশে পর্যটন কেন্দ্র সদৃশ তুলনা করে তাদের নিজস্ব নানারকম আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলা, ভিডিও করা, ঘোরাঘুরি, চিৎকার, উচ্চ শব্দ-মহাশব্দ, হৈচৈ,যেখানে সেখানে সিগারেট খাওয়া,টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ করা,বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের আড্ডা ইত্যাদি আচরনের পরিপ্রেক্ষিতে বিহারের স্থিতিশীল ও শান্ত পরিবেশকে নষ্ট করা হচ্ছে। যা রাজবন বিহারের ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন,রাজবন বিহারের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সাধারণ পর্যটকদের উপর বিধিনিষেধ উপেক্ষা অনেকে জেনেশুনে ও তা মানছেনা। এতে ধর্মীয় নীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।বিহারের প্রবেশ করতে যেসব নিয়ম-নীতি মেনে চলতে বলা হয়েছে তা অনেকে না মেনে উৎশৃংখল পরিবেশ সৃষ্টি করছে।

অন্যদিকে, দুর দুরান্ত থেকে বিভিন্ন দেশী-বিদেশী আগত পর্যটক ও দর্শণার্থী অকস্মাৎ এসে ধমীর্য় পবিত্রার নীতি না জেনে অজ্ঞাতে তারা এসব কাজ করে ফেলেন। এতে বিহারের পবিত্রতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

বিহারের ভান্তেরা বলছেন,রাজবন বিহার কোন পর্যটন কেন্দ্র নয় ধর্মীয় তীর্থ ভূমি। এখানে প্রবেশ করতে হলে ধর্মীয় পরিবেশ বজায় রেখে সুস্বভাবযুক্ত পরিবেশ বজায় রাখা উচিত।কিন্তু অনেকে তা না করে বিকাল হলে আড্ডা, টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ, আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলাসহ ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করে যাচ্ছে।

এদিকে, বিহারে পবিত্রটা বজায় থাকার জন্য বিভিন্ন পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা সহ কাগজে ছাপানো তথ্য বিহারে দেয়ালে দেয়ালে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।কিন্তু বিহারের সংশ্লিষ্টরা এই বিষয়ে জেনেও অনেকে না জানার ভান করে উৎশৃংখলকারীদের থামাচ্ছেন না বলে নানান সূত্রে অভিযোগ রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত