আজ শনিবার, | ২১ অক্টোবর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  কুমিল্লায় বিশ্ব শান্তি প্যাগোডা উদ্বোধন   আগামীকাল থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু   নিজ নিজ মাতৃভাষা শেখার আহ্বান জানালেন \'উন্দুচ্যে বৈদ্য\'   বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ক্যবামং মারমা পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যানে দায়িত্ব নিলেন   রোহিঙ্গাদের সংক্রামক রোগ পার্বত্য চট্টগ্রামে ছড়িয়ে পড়তে পারে || বিশেষজ্ঞদের কড়া সতর্ক   বৃষ্টি হতে পারে সারাদেশে, তিন নম্বর সংকেত দেখিয়ে যাওয়ার বুলেটিন   শিক্ষক এবং শিক্ষকতা || মুহম্মদ জাফর ইকবাল   ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু   মিয়ানমারের বিলাসবহুল হোটেল অগ্নিকান্ডে পুড়ে ছাই   যারা সন্ত্রাসের সাথে জড়িত তাদের ধর্ম পরিচয় আর থাকেনাঃ দলাই লামা   বিশ্বের সবচেয়ে বেশি শীত যেখানে   মন্ট্রিয়লে রোহিঙ্গাদের সহায়তায় চ্যারেটি ফান্ড ‘রেইজিং গালা’   বাঁশ কোড়ল আদিবাসীদের ঐতিহ্যবাহী প্রিয় খাবার   ঢাবির \'ক\' ও \'চ\' ইউনিটের ফল প্রকাশ   দেশে ফিরেছেন খালেদা জিয়া   শ্যামা পূজা বৃহস্পতিবার   মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় চীনে আদিবাসীদের থামি পড়ে অংশগ্রহণ করবেন জেসিয়া ইসলাম   সন্ত্রাসীদের ধরতে শীঘ্রই তিন পার্বত্য জেলায় র‍্যাবের নতুন ইউনিট যাচ্ছে   পূর্ণ্য তীর্থ পূর্ব বিনাজুরী গ্রামের নিয়তি রানী বড়ুয়া চলে গেলেন না ফেরার দেশে   বেরোবির প্রভাষক পদে মাহমুদুলকে নিয়োগ দিতে উচ্চ আদালতের নির্দেশ

রাংগামাটি রাজবন বিহারে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ

প্রকাশিত: ২০১৭-০৮-০৫ ১১:৩৯:০৪

   আপডেট: ২০১৭-০৮-০৫ ১৬:২৯:৪৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটি

রাংগামাটি রাজবন বিহার আশেপাশে পুণ্যার্থী সেজে উৎশৃংখল করার অভিযোগ বহুদিন ধরে উঠেছে। সাম্প্রতিক সময়েও এইসব ধর্মীয় তীর্থ ভূমিতে উৎশৃংখলভাবে পরিবেশ সৃষ্টিসহ বিহারের নিয়ম-নীতি ভঙ্গ করে অনেকে বিহারের আশেপাশে উচ্চস্বরে হৈচৈ করছে। বিকাল ঘনিয়ে এলে বাড়ে পর্যটকের আনাঘোনা সহ আশেপাশে জড়ো হওয়া।

বিহারের স্বর্গঘরস্থ আশেপাশে পর্যটন কেন্দ্র সদৃশ তুলনা করে তাদের নিজস্ব নানারকম আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলা, ভিডিও করা, ঘোরাঘুরি, চিৎকার, উচ্চ শব্দ-মহাশব্দ, হৈচৈ,যেখানে সেখানে সিগারেট খাওয়া,টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ করা,বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের আড্ডা ইত্যাদি আচরনের পরিপ্রেক্ষিতে বিহারের স্থিতিশীল ও শান্ত পরিবেশকে নষ্ট করা হচ্ছে। যা রাজবন বিহারের ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী বলছেন,রাজবন বিহারের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সাধারণ পর্যটকদের উপর বিধিনিষেধ উপেক্ষা অনেকে জেনেশুনে ও তা মানছেনা। এতে ধর্মীয় নীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।বিহারের প্রবেশ করতে যেসব নিয়ম-নীতি মেনে চলতে বলা হয়েছে তা অনেকে না মেনে উৎশৃংখল পরিবেশ সৃষ্টি করছে।

অন্যদিকে, দুর দুরান্ত থেকে বিভিন্ন দেশী-বিদেশী আগত পর্যটক ও দর্শণার্থী অকস্মাৎ এসে ধমীর্য় পবিত্রার নীতি না জেনে অজ্ঞাতে তারা এসব কাজ করে ফেলেন। এতে বিহারের পবিত্রতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

বিহারের ভান্তেরা বলছেন,রাজবন বিহার কোন পর্যটন কেন্দ্র নয় ধর্মীয় তীর্থ ভূমি। এখানে প্রবেশ করতে হলে ধর্মীয় পরিবেশ বজায় রেখে সুস্বভাবযুক্ত পরিবেশ বজায় রাখা উচিত।কিন্তু অনেকে তা না করে বিকাল হলে আড্ডা, টুপিমাথায় বিহারে প্রবেশ, আপত্তিকর ভঙ্গিমায় ছবি তোলাসহ ধর্মীয় পরিবেশকে কলুষিত করে যাচ্ছে।

এদিকে, বিহারে পবিত্রটা বজায় থাকার জন্য বিভিন্ন পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা সহ কাগজে ছাপানো তথ্য বিহারে দেয়ালে দেয়ালে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।কিন্তু বিহারের সংশ্লিষ্টরা এই বিষয়ে জেনেও অনেকে না জানার ভান করে উৎশৃংখলকারীদের থামাচ্ছেন না বলে নানান সূত্রে অভিযোগ রয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত