আজ শনিবার, | ২১ অক্টোবর ২০১৭ ইং

শিরোনাম

  কুমিল্লায় বিশ্ব শান্তি প্যাগোডা উদ্বোধন   আগামীকাল থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু   নিজ নিজ মাতৃভাষা শেখার আহ্বান জানালেন \'উন্দুচ্যে বৈদ্য\'   বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ক্যবামং মারমা পুনরায় উপজেলা চেয়ারম্যানে দায়িত্ব নিলেন   রোহিঙ্গাদের সংক্রামক রোগ পার্বত্য চট্টগ্রামে ছড়িয়ে পড়তে পারে || বিশেষজ্ঞদের কড়া সতর্ক   বৃষ্টি হতে পারে সারাদেশে, তিন নম্বর সংকেত দেখিয়ে যাওয়ার বুলেটিন   শিক্ষক এবং শিক্ষকতা || মুহম্মদ জাফর ইকবাল   ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু   মিয়ানমারের বিলাসবহুল হোটেল অগ্নিকান্ডে পুড়ে ছাই   যারা সন্ত্রাসের সাথে জড়িত তাদের ধর্ম পরিচয় আর থাকেনাঃ দলাই লামা   বিশ্বের সবচেয়ে বেশি শীত যেখানে   মন্ট্রিয়লে রোহিঙ্গাদের সহায়তায় চ্যারেটি ফান্ড ‘রেইজিং গালা’   বাঁশ কোড়ল আদিবাসীদের ঐতিহ্যবাহী প্রিয় খাবার   ঢাবির \'ক\' ও \'চ\' ইউনিটের ফল প্রকাশ   দেশে ফিরেছেন খালেদা জিয়া   শ্যামা পূজা বৃহস্পতিবার   মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় চীনে আদিবাসীদের থামি পড়ে অংশগ্রহণ করবেন জেসিয়া ইসলাম   সন্ত্রাসীদের ধরতে শীঘ্রই তিন পার্বত্য জেলায় র‍্যাবের নতুন ইউনিট যাচ্ছে   পূর্ণ্য তীর্থ পূর্ব বিনাজুরী গ্রামের নিয়তি রানী বড়ুয়া চলে গেলেন না ফেরার দেশে   বেরোবির প্রভাষক পদে মাহমুদুলকে নিয়োগ দিতে উচ্চ আদালতের নির্দেশ

স্কুল জীবনে যে ৭ কাজ সবাই উপভোগ করেছেন

প্রকাশিত: ২০১৭-০৩-২০ ০১:৪১:০২

ডেইলি সিএইচটি রিপোর্ট

প্রত্যেকের কাছেই জীবনের সেরা সময়- তার ‘স্কুল জীবন’। ঠিক যেন স্বপ্নে মতো স্কুল জীবনের দিনগুলো৷ সত্যিই, স্কুল জীবনের এক আশ্চর্য মাধুর্য ছিল। কিন্তু ঠিক কী কারণে স্কুল জীবনকে সবার কাছে এতো মধুর মনে হয়? এ প্রশ্নের উত্তর জানেন না অরেকেই। তবে আজকের প্রতিবেদনে রয়েছে সে উত্তর। আজ রইল এমন কয়েকটি বিষয়, যা স্কুল জীবনের আনন্দকে বহুগুণে বাড়িয়ে দিত বলেই মনে করা যায়। দেখে নিন, আপনার মতের সাথে মেলে কি না।

ছুটির আনন্দ: স্কুলে কাটানো সময়টুকু যতই আনন্দের হোক না কেন, ছুটির ঘন্টা বেজে উঠতেই এক আশ্চর্য আনন্দে ভরে উঠত মনটা। সেই আনন্দের কোনো তুলনা হয় না।

প্রথম প্রেম: জীবনে প্রথম কাউকে ভালো লাগার ঘটনাটা নিশ্চয়ই স্কুল জীবনেই ঘটেছিল? স্কুলের কোনো এক সহপাঠী বা সহপাঠিনীর দিকে তাকিয়ে উদাস হয়ে যাওয়ার ঘটনা স্কুলেই ঘটত। তার পরে তার দিক থেকে যদি একটুকরো হাসি উপহার পাওয়া যায়, তা হলে তো কথাই নেই। সেই অনুভূতি যেন স্বর্গীয়।

নিজেকে অপরাজেয় মনে করার অনুভূতি: স্কুল জীবনে নিজেকে অপরাজেয় মনে করেননি, এমন কেউ নেই। সেই ভাবনায় সারল্য ছিল, অপরিপক্কতা ছিল, কিন্তু তাতেই ছিল আনন্দ।

উদ্বেগেরও ছিল আলাদা মজা: পরীক্ষার উদ্বেগ ছিল, টিউশনের টেনশন, বাবা-মাযের বকা খাওয়ার ভয়ও কম ছিল না- কিন্তু চাকরি জীবনের উদ্বেগের চেয়ে তো কম ছিল সেই স্ট্রেস।

বন্ধুদের গ্রুপ: সমস্ত সহপাঠীর সাথে তো আর সমান বন্ধুত্ব ছিল না, স্পেশাল ফ্রেন্ডদের নিয়ে ছিল একটি বিশেষ গ্রুপ। তাদের মধ্যে চলত সমস্ত গুপ্তকথার আদানপ্রদান, চলত কোড ল্যাঙ্গুয়েজে কথাবার্তা। যার আনন্দও কম নয়।

প্রিয় টিচারের ক্লাস: শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বাদ দিয়ে কি আর স্কুল হয়? অনেক টিচারের মধ্যে কোনো কোনো টিচার ছিলেন বিশেষ প্রিয়। তাদের ক্লাস করতে যে শুধু ভালো লাগত তা নয়, তাদের ব্যক্তিত্বও ছিল বিশেষ মোহসঞ্চারী।

স্কুলের অনুষ্ঠান: স্কুল মানে তো আর শুধু পড়াশোনা নয়, সেই সাথেই ছিল কালচারাল ইভেন্টস, স্পোর্টস- আরও কত কী! সেই সমস্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের মজাই ছিল আলাদা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত