শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / মুক্তিযুদ্ধ / বান্দরবানে ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা বাদ পড়লেন

বান্দরবানে ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা বাদ পড়লেন

প্রকাশিত: ২০১৭-০২-১৯ ২২:৩৩:০০

ডেইলি সিএইচটি ডেস্ক

দীর্ঘদিন ধরে সরকারী সুবিধা ভোগকারী যাচাই বাছাইয়ে তালিকা থেকে ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা বাদ পড়ছেনে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বপক্ষে যথার্থ তথ্য প্রমাণাদী দেখাতে না পারায় সাবেক উপজেলা কমান্ডার’সহ আরও ৭ জন মুক্তিযোদ্ধা অপেক্ষমান তালিকায় রয়েছেন। নতুন আবেদনকারীদের মধ্যে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম মো. মাহাবুবুর রহমানের নাম মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকায় নাম অন্তর্ভূক্ত করার সুপারিশ করেছে যাচাই বাছাই কমিটি। শুক্রবার জেলা প্রশাসন কার্যালয় মিলনায়তনে ছয় সদস্যের যাচাই বাছাই কমিটির সভায় বিষয়গুলো চূড়ান্ত করা হয়।

প্রশাসন ও মুক্তিযোদ্ধারা জানায়, শুক্রবার মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের তত্বাবধানে বান্দরবানের মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাই কমিটির সভা সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে করা হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে যাচাই বাছাই কমিটির সদস্য সচিব ও বান্দরবান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মাকসুদ চৌধুরী, ঢাকা মন্ত্রণালয় নিযুক্ত প্রতিনিধি মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, মৃদুল কান্তি সরকার, মুক্তিযোদ্ধা রাজা মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

সভায় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বপক্ষে তথ্য প্রমাণাদী এবং স্বাক্ষী না থাকায় মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযোদ্ধা এবং সরকারী সুযোগ সুবিধা ভোগকারী ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা। এরা হলেন আলী আহম্মদ, আলী আকবর, আব্দুল জলিল, সুশীল বড়ুয়া, আবুল হোসেন, মো. ইমাইল, মো. সোলেমান, এস্তাফ মিয়া, মনোরঞ্জন বড়ুয়া এবং সাধন বড়ুয়া।

অপরদিকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বপক্ষে উপস্থাপন করা তথ্য প্রমাণাদীতে গড়মিল থাকায় অপেক্ষমান তালিকায় আছেন একজন সাবেক উপজেলা কমান্ডার’সহ ৭ জন মুক্তিযোদ্ধা। এরা হলেন সাবেক সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের কমান্ডার সত্যন্দ্র মজুমদার, মো. শফিকুর রহমান, সেলিম আহমেদ চৌধুরী, কাজল কান্তি বিশ্বাস, সামশুল ইসলাম সিকদার, শুকুমার বড়ুয়া, কল্যানী রানী ভট্টাচার্য। তবে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে চার উপজেলা থেকে নতুন ৪৫ জন আবেদনকারীদের মধ্যে একজনের আবেদনপত্র গৃহিত হয়েছে। ইনি হচ্ছে বান্দরবান আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা জেলা সভাপতি মরহুম মাহাবুবুর রহমান।

যাচাই বাছাই কমিটির সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা সদর উপজেলা ইউনিট কমান্ডার সফিকুর রহমান জানান, যাচাই বাছাই কমিটির সভায় তথ্য প্রমাণাদী দেখাতে না পারায় ১০ জন মুক্তিযোদ্ধার নাম তালিকা থেকে বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এছাড়াও ৭ জন মুক্তিযোদ্ধার তথ্য প্রমাণে গড়মিল থাকায় কমিটি দ্বিধাবিভক্ত হিসেবে অপেক্ষমান তালিকা রেখেছেন। সভায় নেয়া সিদ্ধান্তগুলো মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ে সুপারিশনামা সহ জমা দেয়া হবে। তবে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান থাকায় লামা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাই হয়নি।

অপরদিকে তালিকা থেকে বাদ পড়া মুক্তিযোদ্ধারা আদালতের আশ্রয় নেয়ার কথা জানিয়েছেন। বাদ পড়া মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল ও মুক্তিযোদ্ধা আলী আহমদের সন্তান জাফর আলম বলেন, মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় আমাদের নাম রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে আমাদের পরিবার মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সরকারী সুযোগ সুবিধা ভোগ করে আসছেন। হঠাৎ যাচাই বাছাই কমিটির একতরফা সিদ্ধান্ত আমরা মানিনা। এর বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতের আশ্রয় নেব।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত