শিরোনাম

  আগামী ২৪ ডিসেম্বর জেএসসি ও প্রাথমিক সমাপনীর ফল প্রকাশ   নির্বাচনকালীন ইউএনও-ডিসির স্বাক্ষরে শিক্ষকদের বেতন-ভাতা : শিক্ষা মন্ত্রণালয়   খালেদার মনোনয়ন বাতিলের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ   'তিন পার্বত্য জেলায় ৩৮ টি ভোটকেন্দ্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হবে'   সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন নিশ্চিত করার আহ্বান ইউরোপীয় দেশগুলোর   তরুণ ও নারী ভোটাররাই আওয়ামী লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ারঃ কাদের   গত ৫ বছরে জেএসএস এমপি উন্নয়ন করতে পারেনি, যা করেছে আওয়ামীলীগ করেছে : দিপংকর তালুকদার   এখন থেকে সরকারি চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে মাদক পরীক্ষা বাধ্যতামূলক   'বান্দরবানে বিদেশি পর্যটকদের ভ্রমণে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই'   'নির্বাচনী প্রচারণায় রঙিন পোস্টার বা ব্যানার ব্যবহার করা যাবে না'   ৫৮টি নিউজ পোর্টাল খুলে দিয়েছে বিটিআরসি   বুধবার থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবেন প্রধানমন্ত্রী   বিএনপি ক্ষমতায় এলে শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করার চেষ্ঠা করবো: মনি স্বপন দেওয়ান   তিন পাহাড়ে নৌকা নিয়ে মাঠে দৌড়াবেন যারা   আগামীকাল খালেদা জিয়ার অগ্নিপরীক্ষা   হিরোকে জিরো বানানো এত সহজ নয়, সফল হিরো আলমের চ্যালেঞ্জ   খাগড়াছড়িতে বনের রাজা পেয়েছেন ইউপিডিএফের প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা   বিশ্বের প্রথম উঁচু ভাস্কর্য 'চীনের স্প্রিং টেম্পল বুদ্ধ'   আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস || আদিবাসীদের মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসার অাহ্বান   বনের রাজা সিংহকে নিয়ে রাঙ্গামাটিতে দৌড়াবেন ঊষাতন তালুকদার
প্রচ্ছদ / তথ্য-প্রযুক্তি / আগামী মেয়াদে ক্ষমতায় এলে ৫-জি সেবা চালু হবে: জয়

আগামী মেয়াদে ক্ষমতায় এলে ৫-জি সেবা চালু হবে: জয়

প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২৫ ২১:৩৭:৩৭

তথ্য-প্রযুক্তি ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার আগামী মেয়াদে ক্ষমতায় এলে ফাইভ-জি এর পরীক্ষামূলক কার্যক্রম থেকে বাস্তবায়ন করবে।

বুধবার (২৫ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে পরীক্ষামূলক ৫-জি (পঞ্চম জেনারেশন) ইন্টারনেট সেবার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

জয় বলেন, ফাইভ-জি চালুর ক্ষেত্রে বিশ্বের প্রথম শ্রেণির দেশগুলোর কাতারে থাকবে বাংলাদেশ। এ সেবা এখনই ভোক্তা পর্যায়ে ব্যবহার করা যাবে না। এই সংযোগ শুধু ফাইভ-জি কার্যক্রমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করতে পারবে।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, “ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং ভিশন-২০২১” নিয়ে ১০ বছর আগে নির্বাচন করে আমরা ক্ষমতায় আসি। আর আজ আমরা তা বাস্তবায়ন করেছি। আমরা ইন্টারনেটের দাম ৯৯% পর্যন্ত কমিয়েছি। আগে ১জিবি ব্রডব্যান্ডের দাম হাজার ডলারের উপরে ছিল। আর আজকে বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশে ইন্টারনেটের দাম সবচেয়ে কম। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এসব সম্ভব হয়েছে, এজন্য আমি গর্বিত।

ইন্টারনেটের গতির উন্নয়ন সম্পর্কে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে আমার বাসায় ইন্টারনেটের গতি ১জিবি। সেটাই আমার কাছে অনেক মনে হতো। আর আজ ৫জি ব্যবহার করতে গিয়ে গতি পেলাম ৪জিবি`র ওপরে৷ এটা আমাদের সরকারের সাফল্য।

জয় বলেন, আমি নিজে একজন টেকি। তাই সর্বশেষ প্রযুক্তি নিয়ে আমার আগ্রহ থাকে। সে কারণেই ফোর-জি চালুর পর আমি ৫-জি নিয়ে কাজ শুরু করেছি।

তিনি বলেন, আমরা যখন ক্ষমতায় আসি তখন দেশের প্রযুক্তি খাত অনেক পিছিয়ে ছিল। আমরা অনেকগুলো কর্মসূচি হাতে নেই। এরপর ছয় বছরের মধ্যে ওয়ান, টু, থ্রি ও ফোর-জি চালু করি। যা কোনও দেশ পারেনি।

ফোর-জি চালুতে যারা সহযোগিতা করেছিলেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, বিটিআরসির সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার, রবির এমডি ও সিইও মাহতাব উদ্দিন, হুয়াওয়ে বাংলাদেশের সিইও ঝ্যাং জেনজুন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত