শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / ফিচার / ইমোনা চাকমার চিকিৎসার্থে দায়িত্ব নিলেন সেনা

ইমোনা চাকমার চিকিৎসার্থে দায়িত্ব নিলেন সেনা

প্রকাশিত: ২০১৭-০৫-২৮ ১৮:০৯:০৫

   আপডেট: ২০১৭-১১-২৩ ১৯:৪৪:০৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাঙ্গামাটি জুরাছড়ি এক পাহাড়ি ৪র্থ শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রীর চিকিৎসার্থে রাংগামাটি সেনা রিজিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব নিয়েছেন। মেয়েটির সুস্থ করে তোলার দায়িত্ব বিষয়টি লালন চাকমা নিশ্চিত করেছেন।

লালন চাকমা জানান শনিবার রাত ১১ টার সময় মুঠোফোনে তাকে রোববার রাঙ্গামাটি সেনা জোনে আসতে বলা হয়। তারপর লালন চাকমা সেখানে গেলে রোববার দুপুরে সেনাবাহিনীর রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ গোলাম ফারুক মহোদয় ইমোনা চাকমার সুচিকিৎসায় সকল ব্যয় বহন করবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত,মেয়েটির নাম ইমোনা চাকমা। ঘিলাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী। রোলঃ৪। তার বাবার নামঃ মরদ স চাকমা,মায়ের নামঃ পদ্মানন্দী চাকমা (মৃত)। তার গ্রাম : ঘিলাতলী, জুরাছড়ি।

মেয়েটি প্রায় অনাথ। গরীব বাবা মায়ের সন্তান। ইমোনা যখন ছোট ছিল তখন তার মা মারা যান। বর্তমানে পিতা ছাড়া আর কেউ নেই। তার বাবা একজন গরীব কৃষক। কোনরকম দিনমজুর ও কৃষি কাজ করে জীবন চালাচ্ছে।

ছোটবেলায় মেয়েটির শরীর আগুন লেগে অনেকটা পুড়ে গেছে। শনিবার ২৭ তারিখ তার পুরো চিকিৎসার জন্য ড: রনজিৎ কুমার কাছে শরণাপন্ন হলে ডাক্টার চিকিৎসার জন্য প্রায় দুই লাখ টাকার উপরে লাগবে বলে জানান।

এদিকে তার বাবা একজন হতদরিদ্র। তার মেয়েকে চিকিৎসা করাতে চাইলে ও করাতে পারছেন না তিনি । কারণ সে একজন দরিদ্র কৃষক।

এমতাবস্থায় তার বাবা নিঃস্ব হয়ে মেয়েকে সুস্থ জীবন ফিরিয়ে আনতে সমাজে সচেতন ও মহানুভব মানুষের কাছে আকুতি জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত