শিরোনাম

  ঢাবি শিক্ষার্থী প্রকট চাকমাসহ ১৩ শিক্ষার্থী পেলেন জগন্নাথ হল স্বর্ণপদক   চট্টগ্রামসহ অনেক জায়গায় ভারী বর্ষণ হতে পারে   ভিয়েতনামে বন্যায় ২০ জনের মৃত্যু , ১ লাখ ১০ হাজার হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট   দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলা   ছাত্রলীগকে প্রধানমন্ত্রী সতর্ক করেছেন: কাদের   থানকুনি পাতার জাদুকরি উপকারিতা   চট্টগ্রাম কর্ণফুলীতে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, গ্রেফতার ৩   পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়নে সেনাবাহিনীর ভূমিকা অপরিসীম : প্রধানমন্ত্রী   চিকিৎসা খাতে নতুন আবিষ্কার রঙিন ও থ্রি-ডি এক্স-রে   গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেঁদেছেন প্রধানমন্ত্রী   না ফেরার দেশে রাজীব মীর   নানিয়াচর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান প্রীতিময় চাকমাকে অপহরণ   ছেলেদের চেয়ে এবারও এগিয়ে মেয়েরা   চট্টগ্রাম বোর্ডের পাশের হার ৬২.৭৩ %   যারা ফেল করেছে তাদের বকাঝকা করবেন না : প্রধানমন্ত্রী   এইচএসসি তে পাসের ধস নেমেছে এবার   এইচএসসি ও সমমানে পাসের হার এবার ৬৬.৬৪   হাসপাতাল ছাড়ার পর এবার থাই কিশোররা সবাই শ্রামণ হয়ে প্রবজ্যা গ্রহণ করবে   থাইল্যান্ডের গুহায় আটকা পড়া কিশোররা হাসপাতাল ছেড়েছে   ৮ দল নিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আত্মপ্রকাশ
প্রচ্ছদ / ফিচার / ইমোনা চাকমার চিকিৎসার্থে দায়িত্ব নিলেন সেনা

ইমোনা চাকমার চিকিৎসার্থে দায়িত্ব নিলেন সেনা

প্রকাশিত: ২০১৭-০৫-২৮ ১৮:০৯:০৫

   আপডেট: ২০১৭-১১-২৩ ১৯:৪৪:০৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাঙ্গামাটি জুরাছড়ি এক পাহাড়ি ৪র্থ শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রীর চিকিৎসার্থে রাংগামাটি সেনা রিজিয়ন কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব নিয়েছেন। মেয়েটির সুস্থ করে তোলার দায়িত্ব বিষয়টি লালন চাকমা নিশ্চিত করেছেন।

লালন চাকমা জানান শনিবার রাত ১১ টার সময় মুঠোফোনে তাকে রোববার রাঙ্গামাটি সেনা জোনে আসতে বলা হয়। তারপর লালন চাকমা সেখানে গেলে রোববার দুপুরে সেনাবাহিনীর রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ গোলাম ফারুক মহোদয় ইমোনা চাকমার সুচিকিৎসায় সকল ব্যয় বহন করবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত,মেয়েটির নাম ইমোনা চাকমা। ঘিলাতলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী। রোলঃ৪। তার বাবার নামঃ মরদ স চাকমা,মায়ের নামঃ পদ্মানন্দী চাকমা (মৃত)। তার গ্রাম : ঘিলাতলী, জুরাছড়ি।

মেয়েটি প্রায় অনাথ। গরীব বাবা মায়ের সন্তান। ইমোনা যখন ছোট ছিল তখন তার মা মারা যান। বর্তমানে পিতা ছাড়া আর কেউ নেই। তার বাবা একজন গরীব কৃষক। কোনরকম দিনমজুর ও কৃষি কাজ করে জীবন চালাচ্ছে।

ছোটবেলায় মেয়েটির শরীর আগুন লেগে অনেকটা পুড়ে গেছে। শনিবার ২৭ তারিখ তার পুরো চিকিৎসার জন্য ড: রনজিৎ কুমার কাছে শরণাপন্ন হলে ডাক্টার চিকিৎসার জন্য প্রায় দুই লাখ টাকার উপরে লাগবে বলে জানান।

এদিকে তার বাবা একজন হতদরিদ্র। তার মেয়েকে চিকিৎসা করাতে চাইলে ও করাতে পারছেন না তিনি । কারণ সে একজন দরিদ্র কৃষক।

এমতাবস্থায় তার বাবা নিঃস্ব হয়ে মেয়েকে সুস্থ জীবন ফিরিয়ে আনতে সমাজে সচেতন ও মহানুভব মানুষের কাছে আকুতি জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত