শিরোনাম

  নৌকার জয় সুনিশ্চিত : প্রধানমন্ত্রী   আজ ইউপিডিএফ’র ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী   এবার থাইল্যান্ডে বৈধ হলো গাঁজা   ইউপিডিএফ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকলকে সংগ্রামী শুভেচ্ছা জানালেন প্রসিত বিকাশ খীসা   চীনা শিশুরা আর স্কুল পালাতে পারবে না!   আবার ক্ষমতায় গেলে ভুল সংশোধন করা হবে : কাদের   প্রধানমন্ত্রী থেকে মাতৃভাষার বই পেয়েছে ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর শিশুরা   শুভ বড়দিন আজ   রোহিঙ্গাদের জন্য শীতবস্ত্র পাঠাল ভারত   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০০ অধিক ছাড়িয়েছে   টাকার মালা উপহার পেলেন ফখরুল!   মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী মাঠে সেনাবাহিনী   ভোটের দিন ২৪ ঘণ্টা সব যান চলাচল বন্ধ   সেনা মোতায়েনে ভোটারদের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে: সিইসি   পানছড়িতে ইউপিডিএফের নির্বাচনী অফিসে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে ২ জন নিহত!   জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ   আগামী ৩০ তারিখ আমরা নৌকার বিজয় নিয়ে ঘরে ফিরবো: দীপংকর তালুকদার   ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২২ জন   যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে তাদের ভোট দেবেন নাঃ প্রধানমন্ত্রী   ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত ৪ দিন মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা
প্রচ্ছদ / ফিচার / বিয়ের সনদ না থাকায় আদিবাসী নারীরা উত্তরাধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে

বিয়ের সনদ না থাকায় আদিবাসী নারীরা উত্তরাধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে

প্রকাশিত: ২০১৭-০৩-০৭ ১১:১৪:১৫

ডেইলি সিএইচটি ডেস্ক

পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত আইন সংস্কার ও আদিবাসী নারীর প্রতি বৈষম্য দূর করার দাবিতে সোমবার রাঙামাটিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের সহযোগিতায় ও স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা প্রোগ্রেসিভের আয়োজনে আশিকা সম্মেলন কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রীতা চাকমা, প্রোগ্রেসিভের নির্বাহী পরিচালক সূচরিতা চাকমা, নারী নেত্রী নুকু চাকমা। লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন আশিকা মানববিক উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক এ্যাডভোকেট কঙ্কিতালুকদার।

তিনি বলেন, আদিবাসী সমাজে বিয়ের সনদ বা দালিলিক প্রমাণপত্র না থাকার কারণে বিয়ে অস্বীকারের প্রবণতা বেড়ে চলছে। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত নারী তার স্বামীর ঔরসজাত সন্তানের ভরণ-পোষণ আদায় করতে পারছে না। বিবাহিত নারী ও তার সন্তানরা বঞ্চিত হচ্ছে উত্তরাধিকার থেকে।

তিনি বিবাহ সনদ প্রদানের মাধ্যমে আদিবাসী নারী-পুরুষের বৈবাহিক সম্পর্কের দালিলিক প্রমাণ, স্ত্রী ও সন্তানদের উত্তরাধিকার প্রদানসহ আদিবাসী নারীদের বিচারিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত করার দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, নারী নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্যে পুরুষের পাশাপাশি যোগ্যতা সম্পন্ন নারীদের হেডম্যান বা কারবারি নিয়োগের জন্য প্রথাগত তিন সার্কেল চিফকে আরও মনোযোগী হতে হবে। পাশাপাশি আদিবাসী নারীদের সম্পত্তির উত্তরাধিকার প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় নীতিমালার জন্য স্ব-স্ব সমাজের উদ্যোগ গ্রহণ এবং নারীদের প্রথাগত বৈষম্য ও অনৈতিক শাস্তির বিধান রহিতকরণসহ সব ধরনের প্রথাগত বিধান লিখিতরূপে সংরক্ষণের পরামর্শ  দেন তারা।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত