শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার

ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার

প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-১৮ ১৫:৩৭:১৬

   আপডেট: ২০১৮-০৮-১৯ ০৭:৩৪:৩২

খাগড়াছড়ি >>

ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার ধীরাজ চাকমার।

আজ ১৮ (আগস্ট)শনিবার সকালে খাগড়াছড়ি স্বনির্ভর এলাকা থেকে পানছড়ি যাওয়ার পথে ধীরাজ চাকমা সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ারে নিহত হয়েছেন। ধীরাজ রাজনৈতিক কোন দলের সদস্য ছিল না বলে এলাকাবাসীরা জানিয়েছেন। গতকাল তিনি ঢাকা থেকে রওনা হয়ে আজ সকালে খাগড়াছড়িতে পোঁছালে নির্মম হামলার শিকার হন।ধীরাজের বহু বন্ধু বড় ভাই ও আত্মীয়স্বজন তার মৃত্যুতে শোকাহত হয়েছেন। এছাড়াও ফেসবুকে ধীরাজের বন্ধুবান্ধব শোক জানিয়েছেন।

কোশিক চাকমা তাঁর স্ট্যাটাসে লিখেছেন,
 
দাদা তোমার দোষ কী!??
এমন তো হওয়ার কথা ছিল না। ছোটবেলায় বাবাকে হারিয়েছ। কাকিমা ও পরিবারের অনেক কষ্টের পর বিএসসি টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পাসের পর ভালো চাকুরিতে পেয়ে যখন পরিবারের লালিত স্বপ্ন সফল হতে লাগল, তখন তুমি নেই!!! দাদা তোমার দোষ কী? তুমি তো কোনো রাজনৈতিক দলে যুক্ত নয়। আর যতটা সম্ভব হতো সামাজিক কাজে ও মানুষের জন্য কাজ করতে। আর কোনো দিন আদর করে কৌশিক কেমন আছ বলবে না!!! এভাবে আর কতদিন...?
 
এরিক ওরফে পরিতোষ তালুকদার লিখেছেন,
 
ধীরাজ চাকমা আমার বন্ধু একজন সৎ এবং শিক্ষিত ভদ্র এবং মানবতাবাদী ছিলেন এবং রক্ত দাতা ও, তার অকাল মৃত্যু ,আমরা কখনো মানতে পারি না,,,আমরা তীব্র প্রতিবাদ এবং নিন্দা জানাই এবং দোষীদের আইনের আওতায় এনে ফাঁসির দাবি জানায়..

রক্তদাতা ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার "জুবদা'র" সহ সাধারণ সম্পাদক ও নিয়মিত রক্তদাতা #ধীরাজ চাকমা আজ আমাদের মাঝে নেই ।

ঈদের ছুটি নিয়ে গতরাতে ঢাকা থেকে নিজ বাড়ী পানছড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন । সকালে স্বনির্ভর বাজারে থেকে সিএনজি নিয়ে পানছড়ি যাওয়ার পথে আকস্মিক সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে নিহত হন । তিনি বিএসসি টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং পাস করে বেসরকারী চাকরির পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে কাজ করতেন ।

তার মৃত্যুতে জুবদা হারালো একজন নিয়মিত রক্তদাতা ও স্বেচ্ছাসেবককে আর জাতি হারালো এক মেধাবী ও নিবেদিত প্রাণ তরুনকে ।আমি হারালাম একজন বন্ধু


উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি জেলা সদরের স্বনির্ভর এলাকায় ৬ জনকে গুলি করে হত্যা করার পর আবার খাগড়াছড়ি পেড়াছড়া এলাকায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। হাসপাতালে নেওয়ারর আরো ১ জন মারা গেছেন। তাঁর নাম সন কুমার চাকমা(৭০)। এছাড়াও আহত হয়েছেন আরো নিরীহ মানুষ ও পিসিপির কর্মী।

শনিবার (১৮ আগস্ট) প্রথমে সকাল ৯ টার দিকে ৬ জনকে ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা করা হয়। এতে পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি তপন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলাসহ সভাপতি পলাশ চাকমা, পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ সাধারণ সম্পাদক এল্টন চাকমা, উত্তর খবংপয্যা গ্রামের বাসিন্দা ও মহালছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য সহকারী জিতায়ন চাকমা (৫৩), একই গ্রামের কান্দারা চাকমার ছেলে রুপম চাকমা ও স্বনির্ভর বাজারের চা দোকানদার বিধান চাকমা নিহত হন।এসময় আহত হয়েছেন আরো কয়েকজন। আহতদের মধ্যে ৩ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন- সমর বিকাশ চাকমা (৪৮), সুকিরন চাকমা (৩৫) ও সোহেল চাকমা (২২)। তাদের ৩ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে, দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে খাগড়াছড়ি সদরের পেরাছড়া এলাকায় আবার হামলার ঘটনা ঘটে। এতে কয়েকজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তারা হলেন- ভাইবোন ছড়ার ৫নং যৌথ খামার এলাকার সন কুমার চাকমা, খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্রী উর্মি চাকমা, গুলকানা গ্রামের বাসিন্দা মিনু চাকমা ও শিবন্দির এলাকার সোনা রঞ্জন চাকমা।

ঘটনার সত্যটা নিশ্চিত করে খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাৎ হোসেন টিটো জানিয়েছেন, ঘটনাটি মূলত অতর্কিতভাবে হয়েছে। ঘটনার সময় সন্ত্রাসীরা এলোপাথাড়ি জনসম্মুখে হামলা চালায়। এতে নিরীহ মানুষ নিহত ও আহত হয়েছেন।

জানা গেছে, স্বনির্ভর বাজার এলাকায় ‘ইউপিডিএফ’র সমাবেশে যোগদানের জন্য মিছিল নিয়ে আসার সময় পেরাছড়া ব্রিজের সামনে দুপুরের দিকে দ্বিতীয় দফায় সশস্ত্র হামলাটি চালানো হয়।

এ ঘটনার জন্য মূল ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ) সংস্কার ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে।

গণমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতি তারা বলেন- ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)-এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত প্রধান সংগঠক, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর সভাপতি ও শ্রমজীবী ফ্রন্ট(ওয়ার্কার্স ফ্রন্ট)-এর সভাপতি সচিবসহ ৬ জনকে হত্যার পেছনে সংস্কারবাদী জেএসএস ও নব্য মুখোশ বাহিনীর সন্ত্রাসীরা জড়িত।

তবে প্রতিপক্ষ অভিযোগ অস্কীকার করছে। ঘটনার পরপর পরিস্থিতি উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকায় দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত