শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / খাগড়াছড়িতে ডুবে আছে হাসপাতাল-শিক্ষা প্রতিষ্ঠান , আতঙ্ক কাটেনি এখনো

খাগড়াছড়িতে ডুবে আছে হাসপাতাল-শিক্ষা প্রতিষ্ঠান , আতঙ্ক কাটেনি এখনো

প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-১৩ ২১:৪০:২৮

খাগড়াছড়ি জেলা সদর ও মহালছড়ির বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হলেও জেলার দীঘিনালার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। ছবি : ফোকাস বাংলা

অনলাইন ডেস্ক

পাহাড়ে গত তিন দিন টানা বর্ষণের ফলে খাগড়াছড়ি জেলা সদর ও মহালছড়ির বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হলেও জেলার দীঘিনালার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। দীঘিনালার মেরুং ইউনিয়নে এখনো ডুবে আছে হাসপাতাল, পুলিশ ফাঁড়ি এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ মেরুং বাজারের তিন শতাধিক দোকানসহ ঘরবাড়ি।

দীঘিনালা উপজেলা চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা জানান, দীঘিনালা উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত থাকায় প্রায় তিন হাজার মানুষ মানতেবর জীবন কাটাচ্ছে। বিভিন্ন আশ্রয় শিবিরে ও স্বজনদের বাড়ীতে দুই হাজার পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। সেনাবাহিনীর সহায়তায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছে।

টানা বর্ষণে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যা খাগড়াছড়ি শহরের অধিকাংশ এলাকা ও মহালছড়ি উপজেলার পাঁচটি গ্রাম পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে অন্তত চার হাজার মানুষ পানিবন্দী ও সহস্রাধিক পরিবার ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে এসেছে। পাহাড় ধসে মাটিচাপা পড়ে বেশ কিছু কাচা ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খাগড়াছড়ির পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এবং সড়ক ও জনপদ বিভাগের অফিসে পানি ঢুকে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র নষ্ট হয়ে যায়।

খাগড়াছড়ি জেলা সদর ও মহালছড়ির বন্যা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে এখনো নিজবসত বাড়িতে ফিরতে পারেনি লোকজন। ভাসিয়ে নিয়ে গেছে কয়েকশত পুকুরের মাছ, গবাদি পশু ও ক্ষেতের ফসল। চেঙ্গী নদীর পানি কমার সঙ্গে নদীভাঙনের তীরবর্তী মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

বন্যার শুরু থেকে গত তিন দিন ধরে ওই এলাকায় বিদ্যুৎ সেবা বন্ধ রয়েছে। চাষ করা পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি ও দীঘিনালা-লংগদু সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। একইসঙ্গে নদীভাঙনের আতঙ্কে রয়েছেন মেরুংবাসী। আকস্মিক এই বন্যায় থমকে গেছে খাগড়াছড়িবাসীর ঈদ আনন্দ।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম জানান, পর্যাপ্ত ত্রাণ রয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন করে সবার কাছে সাহার্য্য পৌঁছে দেওয়া হবে। 

আপনার মন্তব্য

আলোচিত