শিরোনাম

  রাঙ্গামাটি কুদুকছড়িতে চান্দের গাড়ি উল্টে ১ জন নিহত   এই বছর বাড়ির ছাদেও থার্টিফাস্ট নাইট পালন করা যাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   ১০ বছরে ২৫ লাখ বিএনপির নেতাকর্মী আসামী : মামলা সংখ্যা ৯০ হাজার   রাষ্ট্র এবং রাজনীতি সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয় বলেই তারা দেশ ত্যাগ করে : রানা দাশগুপ্ত   না ফেরার দেশে ব্রাজিলের হলুদ জার্সির রূপকার   দীঘিনালায় প্রধান শিক্ষক ঊষা আলো চাকমাকে মুক্তি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা   এবারের বিসিএস আবেদনকারীর সংখ্যা মালদ্বীপ ও আইসল্যান্ডের জনসংখ্যার থেকেও বেশি!   কাল থেকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা শুরু   রোহিঙ্গা বিদ্রোহী (আরসার) ভয়ে রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরেনি: পুনর্বাসন মন্ত্রী   মিয়ানমারের ইয়াংগুনের উপকূলে শতাধিক রোহিঙ্গা আটক   নেইমারের গোলে জিতল ব্রাজিল   ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলে নিহত ৭১, নিখোঁজ ১ হাজার   মুক্তি পেল চলচ্চিত্র ‘হাসিনা : এ ডটার'স টেল’   ৪০তম বিসিএসে রেকর্ড সংখ্যক প্রার্থীর আবেদন   নির্বাচনে গুজব ঠেকাতে প্রস্তুত রয়েছে র‌্যাব-পুলিশ   ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’র আঘাতে মৃত ৩০   এসিল্যান্ড নাজিম উদ্দিনসহ রাঙ্গামাটির ১০ উপজেলায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে   জনগণ আমাদের সাথে রয়েছে, বিএনপিকে অপকর্ম থেকে বিরত থাকার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আহবান   নির্বাচন আর পেছানো হচ্ছে না : ইসি   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নবান্ন উৎসব শুরু
প্রচ্ছদ / আর্টস / বিশ্বের মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার ৭ টি বৌদ্ধ মন্দিরকে পবিত্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো

বিশ্বের মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার ৭ টি বৌদ্ধ মন্দিরকে পবিত্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো

প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-০২ ০৮:৪৬:০৬

   আপডেট: ২০১৮-০৭-০২ ০৮:৪৮:৫৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বিশ্বে ঐতিহ্য ও পবিত্র স্থানের মধ্যে আরো নতুন নাম ঘোষণা করেছে জাতিসংঘের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো।

ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের নতুন তালিকায় স্থান করে নিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ার ৭টি বৌদ্ধ মন্দির,একটি সৌদি মরূদ্যান ও মুম্বইয়ের একটি গথিক ও আর্ট ডেকো ইত্যাদি।

২৯ জুন শুক্রবার বাহরাইনে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির ৪২তম অধিবেশনে এসব নতুন নাম ঘোষণা করা হয়।

ঘোষণা অনুসারে দক্ষিণ কোরিয়ার সবগুলো মন্দির পাহাড় অবস্থিত। সাতটি মন্দিরের মধ্যে- বেপজু সংনি পর্বতে, থংদো-ইংচুক পাহাড়ে,বোইশক-বংয়াং,ডাউং-ডুরেন, বংজিয়ং-সিয়ংডিউন,মগক-টিঊয়া ও সিনম জগি পাহাড়ে অবস্থিত।

গেল বছর ২০১৭ সালে কোরিয়ান সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য প্রশাসন (সিএইচএ) -এর একজন কর্মকর্তা ঐতিহ্যবাহী স্থানের স্থাবর সম্পত্তির জন্য আন্তর্জাতিকভাবে ঐতিহ্য বিষয়ক সংস্থায় আবেদন করেছেন।

আবেদন পত্রে তিনি উল্লেখ করেন, দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থিত মন্দিরগুলো থেকে এই সাতটি মন্দির খুব পবিত্র স্থান ও ঐতিহ্যবাহী। এখানে হাজার হাজার দর্শনার্থী ও পুন্যার্থী আসে। যা মন্দিরগুলি প্রতিষ্ঠার পর থেকে কোরিয়ান বৌদ্ধধর্মের ঐতিহ্যকে অব্যাহত রেখেছে।এবং মানুষ এসব মন্দিরে পবিত্রতা প্রতিফলন পেয়েছে।

সাতটি মন্দিরের রয়েছে উন্মুক্ত প্রাঙ্গণ, লেকচার হল, প্যাভিলিয়ন ও বৌদ্ধ কক্ষ। তাই বিষয়টি আমলে নিয়ে ইউনেস্কো এই স্থানগুলো পবিত্র ও ধর্মীয় সংস্কৃতিতে ঐতিহ্যবাহী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।