শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / আর্টস / ত্রিপুরা রাজ্যের মানুষের আমন্ত্রণে চাকমা রাজ্য পরিষদের রাজ্যভিত্তিক সম্মেলনে চাকমা রাজা

ত্রিপুরা রাজ্যের মানুষের আমন্ত্রণে চাকমা রাজ্য পরিষদের রাজ্যভিত্তিক সম্মেলনে চাকমা রাজা

প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৫ ১৮:১৭:২৮

   আপডেট: ২০১৮-০৫-১৫ ২১:৩৩:৪৩

ডেস্ক রিপোর্ট

ত্রিপুরা রাজ্য চাকমা সামাজিক পরিষদের রাজ্য ভিত্তিক দ্বিতীয়বারের সম্মেলনে এবারের অন্যতম একটা প্রাপ্তি বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে আগত চাকমা রাজা দেবাশিস রায় এবং ত্রিপুরা সরকারের প্রথম চাকমা মন্ত্রী শান্তনা চাকমা। পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী শনিবার ১২ মে তারিখে শুরু হয় সামাজিক পরিষদের রাজ্যভিত্তিক সম্মেলন। যা শেষ হয় ১৩ মে রবিবার। এই প্রথমবার ত্রিপুরায় চাকমা সমাজ বিজেপি নেতৃত্বের সার্বিক পরিচালনায় পেয়েছেন নিজেদের সম্প্রদায়ের কোন মন্ত্রী।

ত্রিপুরার একটি সংবাদমাধ্যম প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, বাম সরকারের আমলে জনপ্রতিনিধি থাকলেও কারোর ভাগ্যেই মন্ত্রীর আসনে বসার সৌভাগ্য হয়নি। কিন্তু প্রথমবারের বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার বুঝিয়ে দিল জনজাতিদের প্রত্যেককে সমান সম্মানের সাথে দেখতে চায় তারা।সেদিক থেকে ত্রিপুরা রাজ্য চাকমা সামাজিক পরিষদের রাজ্যভিত্তিক দ্বিতীয় সম্মেলন একটা ইতিহাসের সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়েই অনুষ্ঠিত হল।

বলা হচ্ছে, রাজ্যের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের জনগোষ্ঠী মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটানোই বর্তমান বিজেপি সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। আর সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ ও পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে।

জনজাতিদের উন্নয়ন হলেই রাজ্যের সার্বিক বিকাশের গতি ত্বরান্বিত হবে। অমরপুর মহকুমার ঝরঝরি এলাকায় আয়োজিত ত্রিপুরা রাজ্য চাকমা সামাজিক পরিষদের রাজ্য ভিত্তিক সম্মেলনে এভাবেই আলোচনা করলেন রাজ্য সরকারের দুই মন্ত্রী শান্তনা চাকমা ও মেবার কুমার জমাতিয়া।

এর পাশাপাশি এই সম্মেলনে হাজির থাকলেন চাকমা সমাজের রাজা দেবাশিষ রায়। যিনি বিলেত ফেরত একজন স্বনামধন্য ব্যরিস্টার। বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামের বাসিন্দা তিনি। তবে আদতে অনেক যুগ থেকে চলে আসা রাজন্য সমাজ ব্যবস্থায় নীতিগতভাবে চাকমা সমাজের রাজা বলে বিবেচিত হন তিনি। নিজের যোগ্যতার খাতিরে সংযুক্ত রাষ্ট্রপুঞ্জ পর্যন্ত ছুটে যেতে হয় তাঁকে। ঠিক এই একটা পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে শনিবার আয়োজিত হল ত্রিপুরা রাজ্য চাকমা সামাজিক পরিষদের রাজ্যভিত্তিক দ্বিতীয় সম্মেলন।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অন্য জরুরি কাজে আটকে পড়ায় এদিন তিনি হাজির হতে পারেন নি। তবে রাজ্য সরকারের প্রতিনিধি হয়ে এদিন সম্মেলনে উপস্থিত থাকেন সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী শান্তনা চাকমা এবং উপজাতি কল্যাণ মন্ত্রী মেবার কুমার জমাতিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে আগত চাকমা রাজা দেবাশিস রায়।

এছাড়া বিশিষ্ট অতিথিদের মধ্যে ছিলেন তরুণ বিধায়ক শম্ভুলাল চাকমা, বিধায়ক বুর্বো মোহন ত্রিপুরা, বিধায়ক রঞ্জিত দাস, বিশিষ্ট সমাজসেবী বিমল চাকমা, সম্মেলন আয়োজক কমিটির অন্যতম পৃষ্ঠপোষক শান্তি বিকাশ চাকমা সহ অন্যান্যরা।

সম্মেলনে রাজ্যের প্রায় সব জায়গা থেকে চাকমা সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ গ্রহণ করেন। দুদিনের সম্মেলনে ছিল ব্যাপক উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনা।

আলোচনায় অংশ নিয়ে মন্ত্রী শান্তনা চাকমা এই অঞ্চলের জনগোষ্ঠী অংশের মানুষের সার্বিক উন্নয়নের বিষয়ে সরকারের দৃষ্টিভঙ্গির কথা তুলে ধরেন। রাজ্যের সার্বিক উন্নয়নের ধারা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার উপরও গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। সম্মেলনে আলোকপাত করতে গিয়ে রাজা দেবাশিস রায় সমাজ ব্যবস্থার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। আলোচনায় অংশ নেন বিধায়ক শম্ভুলাল চাকমাও। ।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত