শিরোনাম

  বিএনপি কাউন্সিলর দিয়ে রাজশাহীতে ৪০ আদিবাসী পরিবারকে উচ্ছেদের হুমকি   কাজাখস্তানে বাসে আগুননিহত ৫২ , প্রাণে বেঁচে গেল মাত্র পাঁচজন   'ওমাদু' এবার নিয়ে এসেছে আকর্ষনীয় চাকমা ফিল্ম 'VCR'   চাকমা জনগোষ্ঠীর গোজা বা গোত্তি পরিচিতি   প্রণব মুখার্জীকে সাকিবের উপহার   বেসরকারি ইক্যুইটি আসছে ভুটানে   কক্সবাজারে হিন্দু সম্প্রদায়ের একই পরিবারের চারজনের মৃতদেহ উদ্ধার   ঢাকা সিটিতে নির্বাচন না হলে পেছাবে না এসএসসি পরীক্ষা   কুমিল্লায় উদ্ধার করা হলো ৩শ’ বছর পুরোনো মূল্যবান বৌদ্ধ মন্দির সদৃশ নকশা   নিউজিল্যান্ডের নতুন চমক বেন হুইলার   রাখাইনে সহিংসতার পর শত শত স্কুল বন্ধ   চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডি.লিট ডিগ্রি পেলেন প্রণব মুখার্জি   রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র বানাচ্ছে মিয়ানমার   ২ বছরের মধ্যে রোহিঙ্গারা ফিরে যাবে, রূপরেখা চূড়ান্ত   আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী ঢাকাতে ' কাচালং ওয়েলফেয়ার সোসাইটি'র' এক যুগপূর্তি উপলক্ষ্যে জুম্মদের পুনর্মিলনী ও বনভোজন   আদিবাসী নারীদের মধ্যে প্রথম পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন রূপানন্দা   ১০ বছর পর বেনজির ভুট্টোর হত্যার দায় স্বীকার করেছে তালেবান   আজ চবিতে যাচ্ছেন প্রণব মুখার্জি   মানুষের মনের ও চিন্তার দূষণ দূর করতে হবে : প্রণব মুখার্জি   ২ এপ্রিল থেকে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু
প্রচ্ছদ / আর্টস / নিজ নিজ মাতৃভাষা শেখার আহ্বান জানালেন 'উন্দুচ্যে বৈদ্য'

নিজ নিজ মাতৃভাষা শেখার আহ্বান জানালেন 'উন্দুচ্যে বৈদ্য'

প্রকাশিত: ২০১৭-১০-২১ ১৬:২২:৪৩

   আপডেট: ২০১৭-১২-৩১ ১৪:১৪:০৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

চাকমা ফিল্ম জগতে প্রখ্যাত অভিনেতা এবং পরিচালক অনিল কুমার চাকমা যিনি অনেকের কাছে উন্দুচ্যে বৈদ্য নামে সুপরিচিত। প্রায় কয়েকটি উন্দুচ্যে বৈদ্য চাকমা ফিল্ম সিরিজে তিনি অভিনয় করেছেন। চাকমা চলচ্চিত্রে তাই অনিল একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। অভিনয় করে চলচ্চিত্র ভক্তদের কাছে আলোচিত হন । এভাবে তিনি সাফ্যল্যের সাথে নাম পান। সম্প্রতি একটি শর্ট ফিল্মে বলেছেন আমরা আমাদের নিজস্ব ভাষা কেন দিন দিন হারিয়ে ফেলছি? বর্তমান আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে যেসব ভাষা আমরা ব্যবহার করছি তা নিজস্ব মৌলিকত্ব বহন করেনা।হ্যা আমরা অন্যের ভাষাও শিখব,জানব,পড়বো ও লিখবো তবে তার আগে নিজেদের ভাষাকে মর্যাদা দেব।

তিনি বলেছেন,

আমরা যদি পাঁচমিশালী শব্দ ব্যবহার করে আমাদের ভাষা ব্যবহার করতে থাকি তাহলে একদিন আমাদের নিজস্ব মৌলিক ভাষা চিরতরে হারিয়ে যাবে বা বিলুপ্ত হতে থাকবে।

সেজন্য আমাদের ভাষা যাতে হারিয়ে না যায় আজ থেকে আমাদের নিজস্ব মাতৃভাষা ব্যবহার করব এবং ছোট ছোট সোনামুনিদেরকে ও শেখার উৎসাহিত করব।তিনি বর্তমান প্রজন্ম ও ভবিষ্যত প্রজন্ম সকল আদিবাসীদেরকে উদাত্ত আহ্বান জানান যাতে আমরা আজ থেকে নিজস্ব ভাষাকে প্রাধান্য দিয়ে নিজেদের মুখ্য ভাষা ব্যবহার করি।

একটা কথা বলা বাহুল্যঃ আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলাতে মিলাতে আমাদের নিজস্ব ভাষা দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে।আমাদের চেতনা শক্তি হ্রাস পাচ্ছে। আমরা স্বকীয় ভাষা ব্যবহার না করে মিশ্রণ ভাষা ব্যবহার করে অন্যের সাথে ভাব বিনিময় করছি।এভাবে ব্যবহার করতে থাকলে একদিন আমাদের ভাষা ধ্বংস হয়ে চিরতরে হারিয়ে যাবে। মানুষের মনে যখন কোন ভাব মূর্ত হয়ে ওঠে তখন তা নাকি স্বতঃই ভাষায় প্রকাশ পায়। একটি ভাষা একটি সংস্কৃতির পরিচায়ক। আমাদের বৃদ্ধাঙ্গুলির মতো এর এক অনন্য বৈশিষ্ট্য রয়েছে। ভাষা কেবল একটি প্রকাশ-মাধ্যম নয়, প্রকাশের বিষয় ও বক্তব্যকে ভাষা রূপ, রস ও রঙে অর্থবহ করে তোলে।

একটি জাতি তার ভাষার অধিকার রক্ষার জন্য কেন জীবন দিতে পিছপা হয় না, সেটা আমরা আমাদের জীবনের অভিজ্ঞতা দিয়ে বুঝি। কারণ, ভাষা মানে শুধু কিছু শব্দ বা বাক্য নয়; ভাষার সঙ্গে জড়িয়ে থাকে ওই জাতির সংস্কৃতি, সামাজিক মূল্যবোধ, জীবনের নানা সম্পর্ক, চিন্তাভাবনা, ধ্যানধারণা—এক কথায় সামগ্রিক সামাজিক অস্তিত্ব। সুতরাং মাতৃভাষা না থাকলে সমাজের মানুষগুলোরও অস্তিত্ব বিলুপ্ত হয়। সাধারণভাবে বলা যায়, ভাষা ছাড়া মানুষ পরস্পরের মধ্যে ভাববিনিময়, এমনকি চিন্তাভাবনা পর্যন্ত করতে পারে না। এটা আমরা সহজেই বুঝতে পারি। আমরা যখনই মনে মনে কিছু চিন্তা করি, সেটা করতে হয় কোনো ভাষার মাধ্যমে।

সুতরাং মাতৃভাষা মানুষের সামাজিক ও মনস্তাত্ত্বিক বিকাশে বিশেষ অবদান রাখে। মাতৃভাষা সহজে শেখা যায়, ইচ্ছাশক্তি থাকলে  এর জন্য ব্যাকরণ শিখতে হয় না। মাতৃভাষার মাধ্যমে একটি শিশু চারপাশের জগত্ সম্পর্কে সামগ্রিক ধারণা লাভ করে। এরপর দ্বিতীয় কোনো বিদেশি ভাষা শিখতে চাইলে অনায়াসে সেটা সে পারে।

তাই আসুন আজ থেকে আমরা নিজ নিজ মাতৃভাষাকে গুরুত্ব দিই এবং ছেলে-মেয়ে ছোট-ছোট সোনামুনিদেরকেও শেখাতে উৎসাহিত করি।

ভিডিও :

আপনার মন্তব্য


আলোচিত