শিরোনাম

  ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর জন্য মাতৃভাষায় পুস্তক প্রকাশনার বিধান রেখে খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা   সরকারী চাকরিতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য কোটা না হলেও সমস্যা হবে না   রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু   দুই আদিবাসী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি   দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণ হতে পারে   আদিবাসী মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মীদের সম্মেলন ২০১৮ উদযাপন   ব্লগার বাচ্চু হত্যার সঙ্গে ‘জড়িত’ ২ জঙ্গি নিহত   জুমের বাম্পার ফলনে রাঙ্গামাটির চাষিদের মুখে হাসি   সরকারি চাকরিতে আদিবাসী কোটা বহাল দাবি জানাল আদিবাসীরা   আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা   শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে   মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত   শহীদ আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৮ বছর: হত্যাকারীদের দ্রুত বিচারের দাবি জাতীয় আদিবাসী পরিষদের   ভারতের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশের মেয়েরা   সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান মারা গেছেন   ঈদের ছুটি কাটানো হলোনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার নিরীহ ধীরাজ চাকমার   খাগড়াছড়িতে পৃথক ঘটনার জন্য জেএসএস(সংস্কারবাদী) ও নব্য মুখোশ বাহিনীকে দায়ী করেছে : ইউপিডিএফ   নানিয়ারচর থেকে খাগড়াছড়ি   খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা !
প্রচ্ছদ / প্রবাস / আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা

আয়ারল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশের এক মন্ত্রী দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নিন্দা

প্রকাশিত: ২০১৮-০৯-০৭ ০৮:৫০:১৩

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

“সর্ব ইউরোপিয়ান হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ এবং আয়ারল্যান্ড শাখা” সম্মিলিতভাবে আয়ারল্যান্ডে বসবাসরত প্রবাসী বিশ্বজিৎ সাহা তনু যিনি আয়ারল্যান্ড ঐক্য পরিষদের উপদেষ্টা, উনাকে বাংলাদেশের এক মন্ত্রীর দ্বারা হেনস্ত হওয়াতে আমরা নিন্দাজ্ঞাপন এবং তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।  
 
আয়ারল্যান্ডে বসবাসরত শ্রী বিশ্বজিৎ সাহা তনু” অতি সম্প্রতি বাংলাদেশে ভগবান শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী পালন করার জন্য উনার দেশের বাড়ি ফরিদপুরে যান।   
 
০২ রা সেপ্টম্বর, ২০১৮ জন্মাষ্টমীর উৎসব কে সাফল্য মন্ডিত করে তোলার জন্য বিশ্বজিৎ সাহা তনু, তাঁর মেধা, অর্থ এবং পরিশ্রম দিয়ে ফরিদপুর বাসীদের সহযোগিতায় এবার স্মরণকালের রেকর্ডসংখ্যক পদযাত্রায় হাজার হাজার মানুষের সমাগমে মুখরিত হয়ে উঠে। 
 
শ্রী বিশ্বজিৎ সাহা তনুর অসাধারন সাফল্যের জন্য কমিটির সকলের অনুরোধে প্রতিবছরের মতো এবারো হাতির পিঠে চড়ে ফরিদপুর শহর প্রদক্ষিণ করছিলেন। 
 
উক্ত সময়ে জ্ন্মাষ্টমীর সভার প্রধান অতিথী হিসাবে উপস্থিত থাকা বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের “গৃহায়ণ ও গণপুর্ত মন্ত্রী উপস্হিত ছিলেন। যা উক্ত  মন্ত্রী মহদয়ের আত্ম সম্মানে আঘাত লাগে যে তাঁর সামনে দিয়ে হাতির পিঠে চড়া’ কে ঔদ্যত্ত হিসাবে দেখেন এবং জনমতে জানা যায় যে, একজন সংখ্যালঘুর হয়ে হাতির পিঠে চড়াকে মন্ত্রী মহদয় মেনে নিতে না পেডে রেগে গিয়ে পুলিশকে নির্দেশ দেন “বিশ্বজিৎ সাহা তনু” কে  গ্রেফতার করার জন্য।  
 
অতপর, পুলিশ “বিশ্বজিৎ সাহা তনু” কে উনার নিবাস থেকে গ্রেফতার করে এবং সারাদিন জেলে রেখে পরেরদিন উনাকে থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয় কিন্তু উনাকে ছেড়ে দেয়ার আগে মুচলেকাসহ সাদা কাগজে লিখিত নেয়া হয় যে যাতে বিশ্বজিৎ সাহা কোন মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগ না করে এবং এ ব্যাপারে যেন কোন সংবাদ প্রকাশ না হয়।  
 
এই ঘটনায়, ফরিদপুরের সনাতন বিশ্বাসী এবং সকল জনসাধারনের  মধ্যে এক ক্ষেপের সৃষিট হয় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংখ্যালঘুর বিরুদ্ধে এই নেক্কারজনক এবং বিদ্বেষমুলক আচরনের খবর আমরা জানতে পারি।   
 
ফরিদপুরের সংসদ সদস্য এবং প্রভাবশালী মন্ত্রী সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে এই রকম ভয়ানক বিদ্বেষ দেখানো নতুন নয়, এর আগেও এই মন্ত্রী “বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের” কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক শ্রী রানা দাশগুপ্তের “চোখ তুলে নেবার” হুমকি দেন জনসমাবেশে ! এছাড়া এই মন্ত্রীই বিখ্যাত সংখ্যালঘু সাংবাদিক শ্রী প্রবীর শিকদারকে জেলে পাঠিয়েছিলেন এবং মুক্তিযাদ্ধা মানস মুর্খাজীকেও জেলে পাঠিয়েছিলেন।   
 
আমরা জানতে চাই, সংসদ সদস্য এবং মন্ত্রিত্ব উভয় পদে থাকা একজন সন্মানি মন্ত্রী হয়ে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে এমন প্রচন্ড বিদ্বেষ অমানবিক মনভাব কেন? তা বাংলাদেশের মুক্তিযু্দ্ধে বিশ্বাসীরা জানতে চায়! যে ব্যক্তি জনগনের ভোটেই  নির্বাচিত সে একজন জনপ্রতিনিধী, কি করে এই মন্ত্রী জনগনের বিরুদ্ধে ধর্ম বিদ্বেষ তৈরী করেন? 
 
আমরা মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জাতির জনকের কন্যা জন নেত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষন করছি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চাই এটা কি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ধর্মনিরপেক্ষ সোনার বাংলা নাকি, ৭১ এর সেই রাজাকারদের রাজত্ব?  
 
সামনে সাধারন নির্বাচন আসছে সংখ্যালঘুরা এমনিতেই নিরাপত্তা হীনতায় রাতে তাঁদের ঘুম নেই, তার উপর যদি  মন্ত্রী মহদয়দের এমন বিদ্দেষ মুলক আচরন এবং কার্যকলাপ পরিলক্ষিত হয় তবে সংখ্যালংঘুরা কার কাছে আশ্রয় পাবে? 
 
মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছে বিনীত আবেদন আপনি বাংলাদেশের মানুষের মনে যে ভাবে স্হান করে নিয়েছেন সেই অর্জন কতিপয় মানুষ ধংস করে দিচেছ। অতি সত্তর এদের বিচার করুন এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাকে রক্ষা করে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ কে বিশ্বের কাছে মাথা উচু করে দাঁড়াতে দিন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত